আজঃ ৪ঠা পৌষ ১৪২৫ - ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪২

মেসির জাদুতে চেলসিকে উড়িয়ে শেষ আটে বার্সা

Published: মার্চ ১৫, ২০১৮ - ৩:৫৮ পূর্বাহ্ণ

ক্রীড়া ডেস্ক :: ম্যাচের শুরুর দিকে প্রতিপক্ষের ভুলের সুযোগ দারুণভাবে কাজে লাগালেন লিওনেল মেসি। জোড়া গোল করার পাশাপাশি সতীর্থকে দিয়ে করালেন একটি। আর্জেন্টাইন তারকার নৈপুণ্যে চেলসিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা।

বুধবার কাম্প নউয়ে শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে ৩-০ গোলে জিতে দুই লেগ মিলিয়ে ৪-১ ব্যবধানে এগিয়ে পরের রাউন্ডে উঠেছে বার্সেলোনা। ম্যাচের অন্য গোলটি উসমান দেম্বেলের।

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে প্রথম পর্বে পিছিয়ে পড়ার পর শেষ দিকে মেসির গোলেই ১-১ সমতায় ফিরেছিল বার্সেলোনা।

ঘরের মাঠে প্রতিপক্ষের ভুলে বার্সেলোনার শুরুটা হয় দুর্দান্ত। ডান দিক থেকে আক্রমণে ওঠা মেসি উসমান দেম্বেলের সঙ্গে পাস দেওয়া-নেওয়ার চেষ্টায় ছিলেন; কিন্তু সতীর্থের বাড়ানো বল মার্কো আলোনসোর পায়ে লেগে চলে যায় লুইস সুয়ারেসের কাছে। উরুগুয়ে স্ট্রাইকারের ফিরতি পাস পেয়ে বাইলাইনের কাছ থেকে ডান পায়ে শট নেন মেসি। বল গোলরক্ষকের দুপায়ের মধ্যে দিয়ে ভিতরে ঢুকে।

দ্বাদশ মিনিটে দূরপাল্লার শটে বার্সেলোনা গোলরক্ষকের প্রথম পরীক্ষা নেন উইলিয়ান। অবশ্য ডান দিকে ঝাঁপিয়ে বেশ সহজেই বল আটকান মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

দ্বিতীয় গোলও নিজেদের ভুলে হজম করে চেলসি। মাঝমাঠে সেস ফাব্রেগাসের ভুলে বল পেয়ে মেসি একজনকে কাটিয়ে আরেক জনকে দারুণ ক্ষিপ্রতায় এড়িয়ে ডি-বক্সে ঢুকে ডান দিকে দেম্বেলেকে পাস দেন। জোরালো শটে দূরের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।

বিরতির ঠিক আগে ব্যবধান কমাতে পারতো চেলসি। কিন্তু প্রায় ২২ গজ দূর থেকে মার্কো আলোনসোর নেওয়া দারুণ ফ্রি-কিকে বল ভাগ্যের ফেরে পোস্টে লাগে।

দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটে বার্সেলোনার ডি-বক্সে জেরার্দ পিকের চ্যালেঞ্জে মার্কো আলোনসো পড়ে গেলে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করে চেলসির কোচ-খেলোয়াড়েরা। তবে সাড়া মেলেনি রেফারির। উল্টো রেফারির দিকে হাত ছুড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে হলুদ কার্ড দেখেন অলিভিয়ে জিরুদ।

৬৩তম মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন মেসি। সুয়ারেসের ছোট পাস পেয়ে দারুণ ক্ষিপ্রতায় ডি-বক্সে ঢুকে সঙ্গে লেগে থাকা ডিফেন্ডারদের কোনো সুযোগ না দিয়ে কোনাকুনি শটে থিবো কর্তোয়ার দুপায়ের ফাঁক দিয়ে বল জালে পাঠান পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

Facebook Comments

ক্রীড়া ডেস্ক :: ম্যাচের শুরুর দিকে প্রতিপক্ষের ভুলের সুযোগ দারুণভাবে কাজে লাগালেন লিওনেল মেসি। জোড়া গোল করার পাশাপাশি সতীর্থকে দিয়ে করালেন একটি। আর্জেন্টাইন তারকার নৈপুণ্যে চেলসিকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা।

বুধবার কাম্প নউয়ে শেষ ষোলোর ফিরতি লেগে ৩-০ গোলে জিতে দুই লেগ মিলিয়ে ৪-১ ব্যবধানে এগিয়ে পরের রাউন্ডে উঠেছে বার্সেলোনা। ম্যাচের অন্য গোলটি উসমান দেম্বেলের।

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে প্রথম পর্বে পিছিয়ে পড়ার পর শেষ দিকে মেসির গোলেই ১-১ সমতায় ফিরেছিল বার্সেলোনা।

ঘরের মাঠে প্রতিপক্ষের ভুলে বার্সেলোনার শুরুটা হয় দুর্দান্ত। ডান দিক থেকে আক্রমণে ওঠা মেসি উসমান দেম্বেলের সঙ্গে পাস দেওয়া-নেওয়ার চেষ্টায় ছিলেন; কিন্তু সতীর্থের বাড়ানো বল মার্কো আলোনসোর পায়ে লেগে চলে যায় লুইস সুয়ারেসের কাছে। উরুগুয়ে স্ট্রাইকারের ফিরতি পাস পেয়ে বাইলাইনের কাছ থেকে ডান পায়ে শট নেন মেসি। বল গোলরক্ষকের দুপায়ের মধ্যে দিয়ে ভিতরে ঢুকে।

দ্বাদশ মিনিটে দূরপাল্লার শটে বার্সেলোনা গোলরক্ষকের প্রথম পরীক্ষা নেন উইলিয়ান। অবশ্য ডান দিকে ঝাঁপিয়ে বেশ সহজেই বল আটকান মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

দ্বিতীয় গোলও নিজেদের ভুলে হজম করে চেলসি। মাঝমাঠে সেস ফাব্রেগাসের ভুলে বল পেয়ে মেসি একজনকে কাটিয়ে আরেক জনকে দারুণ ক্ষিপ্রতায় এড়িয়ে ডি-বক্সে ঢুকে ডান দিকে দেম্বেলেকে পাস দেন। জোরালো শটে দূরের পোস্ট দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।

বিরতির ঠিক আগে ব্যবধান কমাতে পারতো চেলসি। কিন্তু প্রায় ২২ গজ দূর থেকে মার্কো আলোনসোর নেওয়া দারুণ ফ্রি-কিকে বল ভাগ্যের ফেরে পোস্টে লাগে।

দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটে বার্সেলোনার ডি-বক্সে জেরার্দ পিকের চ্যালেঞ্জে মার্কো আলোনসো পড়ে গেলে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করে চেলসির কোচ-খেলোয়াড়েরা। তবে সাড়া মেলেনি রেফারির। উল্টো রেফারির দিকে হাত ছুড়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে হলুদ কার্ড দেখেন অলিভিয়ে জিরুদ।

৬৩তম মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে জয় প্রায় নিশ্চিত করে ফেলেন মেসি। সুয়ারেসের ছোট পাস পেয়ে দারুণ ক্ষিপ্রতায় ডি-বক্সে ঢুকে সঙ্গে লেগে থাকা ডিফেন্ডারদের কোনো সুযোগ না দিয়ে কোনাকুনি শটে থিবো কর্তোয়ার দুপায়ের ফাঁক দিয়ে বল জালে পাঠান পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর