আজঃ ৪ঠা পৌষ ১৪২৫ - ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৩৯

মৃতদেহ আনতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চায় ইউএস বাংলা

Published: মার্চ ১৪, ২০১৮ - ৩:৪২ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেপালে বিমান বিধ্বস্তে নিহতদের মৃতদেহ দেশে আনতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছে ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষ।

বুধবার বারিধারায় ইউএস বাংলার জিএম কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি জানান, নিহতদের স্বজনের মধ্যে যাদের পাসপোর্ট নেই তারা যোগাযোগ করলে ইউএস বাংলা নিজ খরচে পাসপোর্ট করে তাদের নেপালে নিয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, পুড়ে যাওয়ার কারণে মৃতদেহ শনাক্ত করতে সমস্যা হচ্ছে। এ জন্য ডিএনএ পরীক্ষার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। তবে ডিএনএ পরীক্ষা একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। নেপাল প্রশাসনকে আমার আশানুরূপ ভাবে পাচ্ছি না। এ জন্য দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী আলোচনায় বসলে সহজে সমস্যার সমাধান হতে পারে। বিমানমন্ত্রী এখন নেপালে আছেন, ওনার মাধ্যমে এ উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে।

তিনি বলেন, ডিএনএ পরীক্ষা করাতে হলে বাবা, মা, ভাই-বোনের যে কারও যেতে হতে পারে। এ জন্য যাদের পাসপোর্ট নেই তারা যোগাযোগ করলে আমরা নিজ খরচে তাদের পাসপোর্টের ব্যবস্থা করবো। যদি এক-দুই দিনের মধ্য পাসপোর্ট করার সুযোগ থাকে, আমরা নিজ খরচে সেটাও করবো।

আহতদের ভালো চিকিৎসারর জন্য যদি সিঙ্গাপুর নিতে হয় ইউএস বাংলা নিজ খরচে নিয়ে যাবে বলেও জানান তিনি।

কবে নাগাদ মৃতদেহ দেশে আসতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা আমরা বলতে পারবো না। তবে মৃতদেহ শনাক্ত করতে ডিএনএ পরীক্ষার প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।

স্বজনদের মৃতদেহ দেখতে না দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা তাদের (নেপালের) প্রক্রিয়ার অংশ।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেপালে বিমান বিধ্বস্তে নিহতদের মৃতদেহ দেশে আনতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছে ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষ।

বুধবার বারিধারায় ইউএস বাংলার জিএম কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি জানান, নিহতদের স্বজনের মধ্যে যাদের পাসপোর্ট নেই তারা যোগাযোগ করলে ইউএস বাংলা নিজ খরচে পাসপোর্ট করে তাদের নেপালে নিয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, পুড়ে যাওয়ার কারণে মৃতদেহ শনাক্ত করতে সমস্যা হচ্ছে। এ জন্য ডিএনএ পরীক্ষার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। তবে ডিএনএ পরীক্ষা একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। নেপাল প্রশাসনকে আমার আশানুরূপ ভাবে পাচ্ছি না। এ জন্য দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী আলোচনায় বসলে সহজে সমস্যার সমাধান হতে পারে। বিমানমন্ত্রী এখন নেপালে আছেন, ওনার মাধ্যমে এ উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে।

তিনি বলেন, ডিএনএ পরীক্ষা করাতে হলে বাবা, মা, ভাই-বোনের যে কারও যেতে হতে পারে। এ জন্য যাদের পাসপোর্ট নেই তারা যোগাযোগ করলে আমরা নিজ খরচে তাদের পাসপোর্টের ব্যবস্থা করবো। যদি এক-দুই দিনের মধ্য পাসপোর্ট করার সুযোগ থাকে, আমরা নিজ খরচে সেটাও করবো।

আহতদের ভালো চিকিৎসারর জন্য যদি সিঙ্গাপুর নিতে হয় ইউএস বাংলা নিজ খরচে নিয়ে যাবে বলেও জানান তিনি।

কবে নাগাদ মৃতদেহ দেশে আসতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা আমরা বলতে পারবো না। তবে মৃতদেহ শনাক্ত করতে ডিএনএ পরীক্ষার প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।

স্বজনদের মৃতদেহ দেখতে না দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা তাদের (নেপালের) প্রক্রিয়ার অংশ।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর