আজঃ ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৮ - বিকাল ৫:৩১

মালয়েশিয়ায় অভিযানে ৫৫ বাংলাদেশি শ্রমিক আটক

Published: সেপ্টে ২৩, ২০১৮ - ২:৫৬ পূর্বাহ্ণ

শ্রমিকদের আটক রাখা হয়েছে এখানেই। ছবি- সংগৃহীত

প্রতিদিন ডেস্ক ::মালয়েশিয়ায় একটি কারখানায় অভিযানে ধরা পড়েছেন বিদেশী নাগরিকসহ ৫৫ বাংলাদেশি শ্রমিক। মালয়েশিয়ার সংবাদপত্র স্টার এর অনলাইন সংস্করণে শনিবার এখবর প্রকাশিত হয়েছে। সাইবারজায়ার ওই কারখানায় অভিযান চালায় মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগের কর্মকর্তারা।বিভাগের প্রধান মুস্তাফার আলী বলেছেন, এই শ্রমিকরা ভিন্ন কোম্পানির অস্থায়ী নিয়োগপত্র নিয়ে ওই কারখানায় কাজ করছিলেন। অভিযানে ৫৫ জন বাংলাদেশি ছাড়াও ইন্দোনেশিয়ার ১০৮ জন নর-নারী, মিয়ানমারের ২৮ জন নর-নারী এবং নেপালের ৪৭ জন পুরুষ শ্রমিককে আটক করা হয়।

মুস্তাফার বলেন, “আমরা মোট ২২৩০ জন শ্রমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে ৩৩৮ জনকে আটক করেছি। মালয়েশিয়ায় যে সব কোম্পানি জনশক্তি আমদানি করে, তাদের একটি কোম্পানির সঙ্গে নিবন্ধিত হতে হয়; কিন্তু কোম্পানিগুলো সেই নিয়ম ভেঙে অন্য সংস্থার জন্যও কর্মী নেয় বলে দেশটির অভিবাসন দপ্তরের তদন্তে ধরা পড়ে।

“কর্মীদের ওয়ার্ক পারমিট যে কোম্পানির নামে, সেই ঠিকানায়ই তার কাজ করার কথা। সেটা জেনেও নিয়োগকর্তা কোম্পানি বিদেশি কর্মী সহজে পেতে নিয়ম ভেঙে আসছিল,” বলেন মুস্তাফার।

কোম্পানিগুলোর এই অনিয়মের দায় শ্রমিকদের উপরও পড়ে। অভিযানে তাদের আটক করা হয় এবং বাতিল করা হয় তাদের নিয়োগপত্র। সাইবারজায়ার কারখানায় অভিযানে আটক শ্রমিকদের কেউ কেউ তাদের নিয়োগপত্রের মেয়াদ শেষের পরও অবৈধভাবে অবস্থান করছিলেন বলে জানান অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার। আটক শ্রমিকদের সবাইকে ইমিগ্রেশন বিভাগের বুকিত কারাগারে রাখা হয়েছে।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক ::মালয়েশিয়ায় একটি কারখানায় অভিযানে ধরা পড়েছেন বিদেশী নাগরিকসহ ৫৫ বাংলাদেশি শ্রমিক। মালয়েশিয়ার সংবাদপত্র স্টার এর অনলাইন সংস্করণে শনিবার এখবর প্রকাশিত হয়েছে। সাইবারজায়ার ওই কারখানায় অভিযান চালায় মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগের কর্মকর্তারা।বিভাগের প্রধান মুস্তাফার আলী বলেছেন, এই শ্রমিকরা ভিন্ন কোম্পানির অস্থায়ী নিয়োগপত্র নিয়ে ওই কারখানায় কাজ করছিলেন। অভিযানে ৫৫ জন বাংলাদেশি ছাড়াও ইন্দোনেশিয়ার ১০৮ জন নর-নারী, মিয়ানমারের ২৮ জন নর-নারী এবং নেপালের ৪৭ জন পুরুষ শ্রমিককে আটক করা হয়।

মুস্তাফার বলেন, “আমরা মোট ২২৩০ জন শ্রমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে ৩৩৮ জনকে আটক করেছি। মালয়েশিয়ায় যে সব কোম্পানি জনশক্তি আমদানি করে, তাদের একটি কোম্পানির সঙ্গে নিবন্ধিত হতে হয়; কিন্তু কোম্পানিগুলো সেই নিয়ম ভেঙে অন্য সংস্থার জন্যও কর্মী নেয় বলে দেশটির অভিবাসন দপ্তরের তদন্তে ধরা পড়ে।

“কর্মীদের ওয়ার্ক পারমিট যে কোম্পানির নামে, সেই ঠিকানায়ই তার কাজ করার কথা। সেটা জেনেও নিয়োগকর্তা কোম্পানি বিদেশি কর্মী সহজে পেতে নিয়ম ভেঙে আসছিল,” বলেন মুস্তাফার।

কোম্পানিগুলোর এই অনিয়মের দায় শ্রমিকদের উপরও পড়ে। অভিযানে তাদের আটক করা হয় এবং বাতিল করা হয় তাদের নিয়োগপত্র। সাইবারজায়ার কারখানায় অভিযানে আটক শ্রমিকদের কেউ কেউ তাদের নিয়োগপত্রের মেয়াদ শেষের পরও অবৈধভাবে অবস্থান করছিলেন বলে জানান অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার। আটক শ্রমিকদের সবাইকে ইমিগ্রেশন বিভাগের বুকিত কারাগারে রাখা হয়েছে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর