আজঃ ১লা কার্তিক ১৪২৫ - ১৬ই অক্টোবর ২০১৮ - দুপুর ১২:৫৪

‘পাইলট অবসাদগ্রস্ত ছিলেন না’

Published: মার্চ ১৪, ২০১৮ - ১০:১৬ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেপালের কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত হওয়া উড়োজাহাজের পাইলট আবিদ সুলতান ‘অবসাদগ্রস্ত’ ছিলেন না বলে দাবি করেছে বেসরকারি বিমান পরিবহন সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

প্রতিষ্ঠানটির জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম বুধবার দুপুরে ইউএস-বাংলার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থার (আইসিএও) নিয়ম অনুযায়ী একজন পাইলটের কর্মঘণ্টা ১৪ ঘণ্টা, এর মধ্যে তিনি ১১ ঘণ্টা ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারেন। অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে সময় লাগে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট। প্রতিবার ফ্লাই করার পর ৩০ মিনিট গ্রাউন্ড টাইম। এখানে অবসাদগ্রস্ত হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

কামরুল বলেন, নেপাল, ‘বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে নানা বক্তব্য আসছে। বর্তমান পরিস্থিতিকে একটা দুর্যোগ হিসেবে দেখছি। আমরা নিশ্চিত না হয়ে কোনো কথা বলছি না। গণমাধ্যমে মনগড়া ও বিভ্রান্তিকর কথাবার্তা আসছে। প্রথম দিনের সঙ্গে আজকের দিনের তফাৎ রয়েছে, এখন ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা তদন্ত করছেন। এখানে মনগড়া বক্তব্য দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

লাশ হস্তান্তর প্রক্রিয়া নিয়ে কামরুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশ ও নেপাল সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে নির্দেশনা এলে তারা যে কোনো মুহূর্তে নেপাল থেকে মরদেহগুলো বাংলাদেশে নিয়ে আসতে প্রস্তুত।

তিনি বলেন, দেশে লাশ কবে আসছে, এখনও তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। অধিকাংশ মৃতদেহ আগুনে পুড়ে যাওয়ায় লাশ শনাক্তকরণে ডিএনএ টেস্ট করা হচ্ছে। ফলে লাশ কবে আসছে, তা এখনও বলা যাচ্ছে না।

নেপালের আরও দ্রুত সহায়তা কামনা করে ইউএস-বাংলার এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এ ঘটনায় বাংলাদেশের প্রশাসনকে যেভাবে দেখতে পাচ্ছি, নেপালের প্রশাসনকে সেভাবে দেখতে পাচ্ছি না। সরাসরি কোনো গাফিলতি লক্ষ্য করা না গেলেও তাদের আরও উদ্যোগী হওয়া উচিত। নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ। এ দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ দ্রুত হস্তান্তরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর কথা হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, নেপাল সরকার অনুমতি দিলে আহতদের অন্য দেশে নিয়ে যেতে পারি। গুরুতর আহতদের সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। আহতদের স্বজন, যারা এখনও নেপাল যেতে পারেননি, পাসপোর্ট হলে তাদের দ্রুত পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেপালের কাঠমান্ডুতে বিধ্বস্ত হওয়া উড়োজাহাজের পাইলট আবিদ সুলতান ‘অবসাদগ্রস্ত’ ছিলেন না বলে দাবি করেছে বেসরকারি বিমান পরিবহন সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

প্রতিষ্ঠানটির জনসংযোগ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক কামরুল ইসলাম বুধবার দুপুরে ইউএস-বাংলার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান চলাচল সংস্থার (আইসিএও) নিয়ম অনুযায়ী একজন পাইলটের কর্মঘণ্টা ১৪ ঘণ্টা, এর মধ্যে তিনি ১১ ঘণ্টা ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারেন। অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে সময় লাগে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট। প্রতিবার ফ্লাই করার পর ৩০ মিনিট গ্রাউন্ড টাইম। এখানে অবসাদগ্রস্ত হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

কামরুল বলেন, নেপাল, ‘বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে নানা বক্তব্য আসছে। বর্তমান পরিস্থিতিকে একটা দুর্যোগ হিসেবে দেখছি। আমরা নিশ্চিত না হয়ে কোনো কথা বলছি না। গণমাধ্যমে মনগড়া ও বিভ্রান্তিকর কথাবার্তা আসছে। প্রথম দিনের সঙ্গে আজকের দিনের তফাৎ রয়েছে, এখন ব্ল্যাকবক্স উদ্ধার হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা তদন্ত করছেন। এখানে মনগড়া বক্তব্য দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

লাশ হস্তান্তর প্রক্রিয়া নিয়ে কামরুল ইসলাম জানান, বাংলাদেশ ও নেপাল সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে নির্দেশনা এলে তারা যে কোনো মুহূর্তে নেপাল থেকে মরদেহগুলো বাংলাদেশে নিয়ে আসতে প্রস্তুত।

তিনি বলেন, দেশে লাশ কবে আসছে, এখনও তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। অধিকাংশ মৃতদেহ আগুনে পুড়ে যাওয়ায় লাশ শনাক্তকরণে ডিএনএ টেস্ট করা হচ্ছে। ফলে লাশ কবে আসছে, তা এখনও বলা যাচ্ছে না।

নেপালের আরও দ্রুত সহায়তা কামনা করে ইউএস-বাংলার এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এ ঘটনায় বাংলাদেশের প্রশাসনকে যেভাবে দেখতে পাচ্ছি, নেপালের প্রশাসনকে সেভাবে দেখতে পাচ্ছি না। সরাসরি কোনো গাফিলতি লক্ষ্য করা না গেলেও তাদের আরও উদ্যোগী হওয়া উচিত। নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ। এ দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ দ্রুত হস্তান্তরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর কথা হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, নেপাল সরকার অনুমতি দিলে আহতদের অন্য দেশে নিয়ে যেতে পারি। গুরুতর আহতদের সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি। আহতদের স্বজন, যারা এখনও নেপাল যেতে পারেননি, পাসপোর্ট হলে তাদের দ্রুত পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর