আজঃ ৪ঠা পৌষ ১৪২৫ - ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪৩

পদার্থবিজ্ঞানী অধ্যাপক স্টিফেন হকিং আর নেই

Published: মার্চ ১৪, ২০১৮ - ১১:২০ পূর্বাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক::জগদ্বিখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী অধ্যাপক স্টিফেন হকিং মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। বিশিষ্ট এই বিজ্ঞানীর পরিবারের বরাত দিয়ে আজ বুধবার বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

স্টিফেন হকিংয়ের সন্তান লুসি, রবার্ট এবং টিম বলেন, ‘আজ আমাদের প্রিয় বাবা চলে যাওয়ায় আমরা গভীরভাবে মর্মাহত। তিনি একজন বিখ্যাত বিজ্ঞানী এবং অসাধারণ মানুষ ছিলেন। তার কর্ম ও অবদান অনেক বছর বেঁচে থাকবে।’

স্টিফেন হকিং-এর মনোবল ও অধ্যবসায়ের প্রশংসা করে তার সন্তানরা আরও বলেন, ‘তার বুদ্ধিমত্তা সারা বিশ্বের লোকদের অনুপ্রাণিত করবে। আমরা তাকে খুব মিস করব।’

১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডে জন্মগ্রহণ করেন স্টিফেন হকিং। ২১ বছর বয়স থেকেই তিনি দুরারোগ্য মটর নিউরন রোগে ভুগছিলেন। শারীরিক অক্ষমতা তার কর্মে বাধা হয়ে থাকেনি। সেই অবস্থার মধ্যেও হকিং মহাবিশ্ব সৃষ্টির রহস্য ‘বিগ ব্যাং থিউরি’ দেন।

মহাবিশ্বের সৃষ্টি রহস্যের তাত্ত্বিক ব্যাখায় কৃষ্ণ গহ্বর ও আপেক্ষিকতা তত্ত্বের ব্যাখা দিয়ে বর্তমান সময়ের শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানীর স্থান দখল করে আছেন স্টিফেন হকিং।

১৯৮৮ সালে ‘অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব টাইম’ বইয়ের কারণে তিনি বিশ্বব্যাপী পরিচিতি লাভ করেন। বইটিতে তিনি মহাবিশ্বের সৃষ্টি রহস্য নিয়ে তত্ত্ব দেন। আন্তর্জাতিকভাবে বেস্ট সেলার হিসেবে বইটির কয়েক কোটি কপি বিক্রি হয়। মহাবিশ্ব নিয়ে প্রকাশিত তাঁর সর্বশেষ বই ‘দ্য গ্র্যান্ড ডিজাইন’।

আইনস্টাইনের পর হকিংকে বিখ্যাত পদার্থবিদ হিসেবে গণ্য করা হয়। তার কর্মময় জীবনে প্রিন্স অব অস্ট্রিয়ান্স পুরস্কার, জুলিয়াস এডগার লিলিয়েনফেল্ড পুরস্কার, উলফ পুরস্কার, কোপলি পদক, এডিংটন পদক, হিউ পদক, আলবার্ট আইনস্টাইন পদকসহ বহু ডিগ্রি লাভ করেছিলেন তিনি।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক::জগদ্বিখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী অধ্যাপক স্টিফেন হকিং মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। বিশিষ্ট এই বিজ্ঞানীর পরিবারের বরাত দিয়ে আজ বুধবার বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

স্টিফেন হকিংয়ের সন্তান লুসি, রবার্ট এবং টিম বলেন, ‘আজ আমাদের প্রিয় বাবা চলে যাওয়ায় আমরা গভীরভাবে মর্মাহত। তিনি একজন বিখ্যাত বিজ্ঞানী এবং অসাধারণ মানুষ ছিলেন। তার কর্ম ও অবদান অনেক বছর বেঁচে থাকবে।’

স্টিফেন হকিং-এর মনোবল ও অধ্যবসায়ের প্রশংসা করে তার সন্তানরা আরও বলেন, ‘তার বুদ্ধিমত্তা সারা বিশ্বের লোকদের অনুপ্রাণিত করবে। আমরা তাকে খুব মিস করব।’

১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডে জন্মগ্রহণ করেন স্টিফেন হকিং। ২১ বছর বয়স থেকেই তিনি দুরারোগ্য মটর নিউরন রোগে ভুগছিলেন। শারীরিক অক্ষমতা তার কর্মে বাধা হয়ে থাকেনি। সেই অবস্থার মধ্যেও হকিং মহাবিশ্ব সৃষ্টির রহস্য ‘বিগ ব্যাং থিউরি’ দেন।

মহাবিশ্বের সৃষ্টি রহস্যের তাত্ত্বিক ব্যাখায় কৃষ্ণ গহ্বর ও আপেক্ষিকতা তত্ত্বের ব্যাখা দিয়ে বর্তমান সময়ের শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞানীর স্থান দখল করে আছেন স্টিফেন হকিং।

১৯৮৮ সালে ‘অ্যা ব্রিফ হিস্ট্রি অব টাইম’ বইয়ের কারণে তিনি বিশ্বব্যাপী পরিচিতি লাভ করেন। বইটিতে তিনি মহাবিশ্বের সৃষ্টি রহস্য নিয়ে তত্ত্ব দেন। আন্তর্জাতিকভাবে বেস্ট সেলার হিসেবে বইটির কয়েক কোটি কপি বিক্রি হয়। মহাবিশ্ব নিয়ে প্রকাশিত তাঁর সর্বশেষ বই ‘দ্য গ্র্যান্ড ডিজাইন’।

আইনস্টাইনের পর হকিংকে বিখ্যাত পদার্থবিদ হিসেবে গণ্য করা হয়। তার কর্মময় জীবনে প্রিন্স অব অস্ট্রিয়ান্স পুরস্কার, জুলিয়াস এডগার লিলিয়েনফেল্ড পুরস্কার, উলফ পুরস্কার, কোপলি পদক, এডিংটন পদক, হিউ পদক, আলবার্ট আইনস্টাইন পদকসহ বহু ডিগ্রি লাভ করেছিলেন তিনি।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর