আজঃ ১লা কার্তিক ১৪২৫ - ১৬ই অক্টোবর ২০১৮ - দুপুর ১২:৫৪

নাফনদে বিজিবি-বিজিপি’র যৌথ টহল

Published: মার্চ ১৪, ২০১৮ - ৬:৪৬ অপরাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক :: কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে নাফনদে বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) যৌথ টহল অনুষ্টিত হয়েছে।

বুধবার সকাল ১০ টা থেকে দ্বিতীয় বারের মতো নাফনদে এ টহল শুরু হয় বলে জানিয়েছেন টেকনাফ ২ নম্বর ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আছাদুদ জামান চৌধুরী।

তিনি জানান, রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে সীমান্ত শান্ত রাখতে বুধবার সকাল ১০ টার দিকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার জলসীমানার মাঝামাঝি নাফনদে বিজিবি ও বিজিপি যৌথ টহল শুরু হয়েছে। টহলে ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ টেকনাফ বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকা বিআরএম-৫ হতে বিআরএম-৭ পর্যন্ত টহল দেওয়া হয়। উক্ত টহলে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন সুবেদার মো. ইব্রাহিম হোসেন এবং বিজিপির পক্ষে নম্বর (৪) বর্ডার গার্ড পুলিশ ব্রাঞ্চের হটিং লিং মাং। স্পিডবোডে ওই টহলে টেকনাফ ২ নাম্বার ব্যাটালিয়ন বিজিবির ১৩ ও মিয়ানমার ৪ নম্বার ব্যাটালিয়নের বিজিপির ১৬ জন সদস্য অংশ নেন।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আছাদুদ জামান আরও জানান, কয়েকদিন আগে বিজিবির পক্ষ থেকে বিজিপির কাছে সীমান্তে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে নাফনদে যৌথ টহলের প্রস্তাব পাঠাই। তারই সূত্রে দুই দেশের মধ্যে এ যৌথ টহল শুরু হয়। তবে এই যৌথ টহল নিয়মিত নয়, কয়েকদিন পর পর এ টহল চলবে। এর আগে ৫ মার্চ নাফনদীতে বিজিবি-বিজিপির এ যৌথ টহল শুরু হয়েছিল।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসান বলেন, সীমান্ত পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তাছাড়া বিজিবি সর্তক অবস্থান থেকে টহল দিয়ে যাচ্ছে।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক :: কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে নাফনদে বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) যৌথ টহল অনুষ্টিত হয়েছে।

বুধবার সকাল ১০ টা থেকে দ্বিতীয় বারের মতো নাফনদে এ টহল শুরু হয় বলে জানিয়েছেন টেকনাফ ২ নম্বর ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আছাদুদ জামান চৌধুরী।

তিনি জানান, রোহিঙ্গা পরিস্থিতি নিয়ে সীমান্ত শান্ত রাখতে বুধবার সকাল ১০ টার দিকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার জলসীমানার মাঝামাঝি নাফনদে বিজিবি ও বিজিপি যৌথ টহল শুরু হয়েছে। টহলে ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ টেকনাফ বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকা বিআরএম-৫ হতে বিআরএম-৭ পর্যন্ত টহল দেওয়া হয়। উক্ত টহলে বিজিবির পক্ষে নেতৃত্ব দেন সুবেদার মো. ইব্রাহিম হোসেন এবং বিজিপির পক্ষে নম্বর (৪) বর্ডার গার্ড পুলিশ ব্রাঞ্চের হটিং লিং মাং। স্পিডবোডে ওই টহলে টেকনাফ ২ নাম্বার ব্যাটালিয়ন বিজিবির ১৩ ও মিয়ানমার ৪ নম্বার ব্যাটালিয়নের বিজিপির ১৬ জন সদস্য অংশ নেন।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আছাদুদ জামান আরও জানান, কয়েকদিন আগে বিজিবির পক্ষ থেকে বিজিপির কাছে সীমান্তে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে নাফনদে যৌথ টহলের প্রস্তাব পাঠাই। তারই সূত্রে দুই দেশের মধ্যে এ যৌথ টহল শুরু হয়। তবে এই যৌথ টহল নিয়মিত নয়, কয়েকদিন পর পর এ টহল চলবে। এর আগে ৫ মার্চ নাফনদীতে বিজিবি-বিজিপির এ যৌথ টহল শুরু হয়েছিল।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসান বলেন, সীমান্ত পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তাছাড়া বিজিবি সর্তক অবস্থান থেকে টহল দিয়ে যাচ্ছে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর