আজঃ ১লা কার্তিক ১৪২৫ - ১৬ই অক্টোবর ২০১৮ - দুপুর ১২:৫৫

আফসোসের হার বাংলাদেশের, ফাইনালে ভারত

Published: মার্চ ১৪, ২০১৮ - ১১:২৫ অপরাহ্ণ

ক্রীড়া ডেস্ক :: শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গত ম্যাচে ৩৫ বল খেলে ৭২ রান করে দলকে জিতিয়েছিলন মুশফিকুর রহিম। আজ ভারতের বিপক্ষে তিনি করলেন ৫৫ বল খেলে ৭২ রান। কিন্তু আজ জিততে পারল না বাংলাদেশ। আফসোসের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে টাইগারদের। নিদাহাস ট্রফির ম্যাচে আজ ভারতের বিপক্ষে ১৭ রানে হেরেছে বাংলাদেশ।

ভারত এই জয়ের মাধ্যমে পয়েন্ট টেবিলে সেরা অবস্থানে থেকে ফাইনালে উঠে গেছে। লিগ পর্বে আজ ভারতের শেষ ম্যাচ ছিল। এই পর্বে তারা চারটি ম্যাচ খেলে তিনটিতে জয় পেয়েছে। আজ হারলেও বাংলাদেশের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। ফাইনালে খেলতে আগামী ১৬ মার্চ শ্রীলঙ্কাকে অবশ্যই হারাতে হবে টাইগারদের। মূলত ওই ম্যাচে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে যারা জিতবে তারাই ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে। আগামী ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল ম্যাচ।

বুধবার কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে ভারতের দেয়া ১৭৭ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। দলের পক্ষে মুশফিকুর রহিম হাফ সেঞ্চুরি করেন। ৫৫ বল খেলে ৭২ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। এছাড়া সাব্বির রহমান করেন ২৭ রান। ভারতের পক্ষে ওয়াশিংটন সুন্দর ৩টি, যুজবেন্দ্র চাহাল ১টি, শারদুল ঠাকুর ১টি ও মোহাম্মদ সিরাজ ১টি করে উইকেট নেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১২ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে স্ট্যাম্পিং হন লিটন দাস। সাত বল খেলে সাত রান করেন তিনি। এরপর দলীয় ৩৫ রানে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে বোল্ড হন সৌম্য সরকার। তিন বল খেলে এক রান করেন তিনি।

দলীয় ৪০ রানে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে বোল্ড হন তামিম ইকবাল। ১৯ বল খেলে ২৭ রান করেন তিনি। দলীয় ৬১ রানে যুজবেন্দ্র চাহালের বলে লোকেশ রাহুলের হাতে ক্যাচ হন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ফেরার আগে আট বল খেলে ১১ রান করেন তিনি।

এরপর ৬৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান। দলীয় ১২৬ রানে শারদুল ঠাকুরের বলে বোল্ড হন সাব্বির রহমান। মূলত এখানেই বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে যায়। ইনিংসের শেষ ওভারে মোহাম্মদ সিরাজের বলে সুরেশ রায়নার হাতে ক্যাচ হন মোহাম্মদ মিরাজ।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে ভারত। ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মা আজ ৬১ বল খেলে ৮৯ রান করেন। এই ইনিংস খেলার পথে তিনি পাঁচটি চার ও পাঁচটি ছক্কা হাঁকান। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে রোহিত শর্মার এটি ১৩তম হাফ সেঞ্চুরি।

এছাড়া সুরেশ রায়না ৩০ বল খেলে করেন ৪৭ রান। ২৭ বল খেলে ৩৫ রান করেন শিখর ধাওয়ান। দুই বল খেলে দুই রান করে অপরাজিত থাকেন দিনেশ কার্তিক। বাংলাদেশের পক্ষে রুবেল হোসেন ২টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ১৭ রানে জয়ী ভারত।

ভারত ইনিংস: ১৭৬/৩ (২০ ওভার)

(রোহিত শর্মা ৮৯, শিখর ধাওয়ান ৩৫, সুরেশ রায়না ৪৭, দিনেশ কার্তিক ২*; আবু হায়দার রনি ০/৪৩, নাজমুল ইসলাম অপু ০/২৭, রুবেল হোসেন ২/২৭, মোস্তাফিজুর রহমান ০/৩৮, মেহেদী হাসান মিরাজ ০/৩১, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০/৯)।

বাংলাদেশ ইনিংস: ১৫৯/৬ (২০ ওভার)

(তামিম ইকবাল ২৭, লিটন দাস ৭, সৌম্য সরকার ১, মুশফিকুর রহিম ৭২*, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১১, সাব্বির রহমান ২৭, মেহেদী হাসান মিরাজ ৭, আবু হায়দার রনি ০*; মোহাম্মদ সিরাজ ১/৫০, ওয়াশিংটন সুন্দর ৩/২২, শারদুল ঠাকুর ১/৩৭, যুজবেন্দ্র চাহাল ১/২১, বিজয় শঙ্কর ০/২৮)।

Facebook Comments

ক্রীড়া ডেস্ক :: শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গত ম্যাচে ৩৫ বল খেলে ৭২ রান করে দলকে জিতিয়েছিলন মুশফিকুর রহিম। আজ ভারতের বিপক্ষে তিনি করলেন ৫৫ বল খেলে ৭২ রান। কিন্তু আজ জিততে পারল না বাংলাদেশ। আফসোসের হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে টাইগারদের। নিদাহাস ট্রফির ম্যাচে আজ ভারতের বিপক্ষে ১৭ রানে হেরেছে বাংলাদেশ।

ভারত এই জয়ের মাধ্যমে পয়েন্ট টেবিলে সেরা অবস্থানে থেকে ফাইনালে উঠে গেছে। লিগ পর্বে আজ ভারতের শেষ ম্যাচ ছিল। এই পর্বে তারা চারটি ম্যাচ খেলে তিনটিতে জয় পেয়েছে। আজ হারলেও বাংলাদেশের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা রয়েছে। ফাইনালে খেলতে আগামী ১৬ মার্চ শ্রীলঙ্কাকে অবশ্যই হারাতে হবে টাইগারদের। মূলত ওই ম্যাচে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যে যারা জিতবে তারাই ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে। আগামী ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল ম্যাচ।

বুধবার কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে ভারতের দেয়া ১৭৭ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। দলের পক্ষে মুশফিকুর রহিম হাফ সেঞ্চুরি করেন। ৫৫ বল খেলে ৭২ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। এছাড়া সাব্বির রহমান করেন ২৭ রান। ভারতের পক্ষে ওয়াশিংটন সুন্দর ৩টি, যুজবেন্দ্র চাহাল ১টি, শারদুল ঠাকুর ১টি ও মোহাম্মদ সিরাজ ১টি করে উইকেট নেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১২ রানে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে স্ট্যাম্পিং হন লিটন দাস। সাত বল খেলে সাত রান করেন তিনি। এরপর দলীয় ৩৫ রানে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে বোল্ড হন সৌম্য সরকার। তিন বল খেলে এক রান করেন তিনি।

দলীয় ৪০ রানে ওয়াশিংটন সুন্দরের বলে বোল্ড হন তামিম ইকবাল। ১৯ বল খেলে ২৭ রান করেন তিনি। দলীয় ৬১ রানে যুজবেন্দ্র চাহালের বলে লোকেশ রাহুলের হাতে ক্যাচ হন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ফেরার আগে আট বল খেলে ১১ রান করেন তিনি।

এরপর ৬৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান। দলীয় ১২৬ রানে শারদুল ঠাকুরের বলে বোল্ড হন সাব্বির রহমান। মূলত এখানেই বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে যায়। ইনিংসের শেষ ওভারে মোহাম্মদ সিরাজের বলে সুরেশ রায়নার হাতে ক্যাচ হন মোহাম্মদ মিরাজ।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে ভারত। ভারতীয় ওপেনার রোহিত শর্মা আজ ৬১ বল খেলে ৮৯ রান করেন। এই ইনিংস খেলার পথে তিনি পাঁচটি চার ও পাঁচটি ছক্কা হাঁকান। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে রোহিত শর্মার এটি ১৩তম হাফ সেঞ্চুরি।

এছাড়া সুরেশ রায়না ৩০ বল খেলে করেন ৪৭ রান। ২৭ বল খেলে ৩৫ রান করেন শিখর ধাওয়ান। দুই বল খেলে দুই রান করে অপরাজিত থাকেন দিনেশ কার্তিক। বাংলাদেশের পক্ষে রুবেল হোসেন ২টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ১৭ রানে জয়ী ভারত।

ভারত ইনিংস: ১৭৬/৩ (২০ ওভার)

(রোহিত শর্মা ৮৯, শিখর ধাওয়ান ৩৫, সুরেশ রায়না ৪৭, দিনেশ কার্তিক ২*; আবু হায়দার রনি ০/৪৩, নাজমুল ইসলাম অপু ০/২৭, রুবেল হোসেন ২/২৭, মোস্তাফিজুর রহমান ০/৩৮, মেহেদী হাসান মিরাজ ০/৩১, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০/৯)।

বাংলাদেশ ইনিংস: ১৫৯/৬ (২০ ওভার)

(তামিম ইকবাল ২৭, লিটন দাস ৭, সৌম্য সরকার ১, মুশফিকুর রহিম ৭২*, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১১, সাব্বির রহমান ২৭, মেহেদী হাসান মিরাজ ৭, আবু হায়দার রনি ০*; মোহাম্মদ সিরাজ ১/৫০, ওয়াশিংটন সুন্দর ৩/২২, শারদুল ঠাকুর ১/৩৭, যুজবেন্দ্র চাহাল ১/২১, বিজয় শঙ্কর ০/২৮)।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর