আজঃ ১৩ই বৈশাখ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ - ২৬শে এপ্রিল, ২০১৮ ইং - দুপুর ১:৫২

নাসিরপুরে ৭-৮ জঙ্গির ছিন্নভিন্ন মরদেহ….

Published: Mar 30, 2017 - 5:54 pm

sylpro24

নাসিরপুরের বাগানবাড়ির জঙ্গি আস্তানায় ৭-৮ জন জঙ্গির ছিন্নভিন্ন মরদেহ পড়ে আছে বলে জানালেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। আত্মঘাতী বিস্ফোরণেই এদের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ সময় নাসিরপুরে সোয়াটের অভিযান ‘অপারেশন হিটব্যাক’ প্রাথমিকভাবে শেষ হয়েছে বলে ঘোষণা করেন মনিরুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার (মার্চ ৩০) বিকেল ৫টায় ঘটনাস্থলের কাছেই মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ১নং খলিলপুর ইউনিয়ন কমপ্লেক্স ভবনে এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশের সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি (‌উপ মহাপরিদর্শক) কামরুল আহসান ও অন্যান্য সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তারা।

মনিরুল বলেন, মৌলভীবাজারের নাসিরপুরের জঙ্গি আস্তানায় ড্রোন ব্যবহার করে আইইডি ও অন্যান্য বিস্ফোরক শনাক্ত করেন সোয়াট টিমের সদস্যরা।

নাসিরপুরে নিহত জঙ্গিরা নব্য জেএমবির বলেও ধারণা প্রকাশ করেন তিনি। ভেতরের হতাহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে কি না সে বিষয়টি এখনও পরিষ্কার নয় বলে সাংবাদিকদের জানান তিনি।

তিনি বলেন, ভেতরের দেহগুলো ছিন্নভিন্ন অবস্থায় রয়েছে। কোথাও তাদের হাত পড়ে আছে। কোথাও তাদের পা পড়ে আছে। এজন্য তাদেরকে এই মুহূর্তে আলাদাভাবে শনাক্ত করা মুশকিল। এসব দেখে আমাদের মনে হয়েছে ৭-৮ জন জঙ্গি এ ঘ্টনায় নিহত হয়েছে।

এছাড়া রাতে যখন অভিযান স্থগিত রাখা হয়, তখন পালাবার কোনো পথ নেই জেনেই জঙ্গিরা আত্মঘাতী হয়েছে বলে মনে করছি আমরা-যোগ করেন মনিরুল।

মনিরুল আরও বলেন, আতিয়ামহলে অভিযানের সময় গত শনিবার সংঘটিত জোড়া বিস্ফোরণের সূত্র ধরেই কাউন্টার টেরোরিজম এর গোয়েন্দারা এই আস্তানার সন্ধান পায়। ওই বিস্ফোরণে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ছয়জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি আহত হন ৪৪ জন।

এছাড়া নাসিরপুরের এই আস্তানাটিকে জঙ্গিরা নিজেদের ‘হাইডআউট’ হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলো বলেও জানান মনিরুল। এদিকে নাসিরপুরের অভিযান শেষ হওয়ার পর এখন সোয়াট টিমের সদস্যরা ঘটনাস্থল থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে মৌলভীবাজার পৌরশহরের বড়হাটে অবস্থিত অন্য জঙ্গি আস্তানার দিকে রওনা হবেন বলে জানান মনির।

বৃহস্পতিবার (মার্চ ৩০) বিকেল ৫টায় ঘটনাস্থলের কাছেই মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ১নং খলিলপুর ইউনিয়ন কমপ্লেক্স ভবনে এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশের সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি (‌উপমহাপরিদর্শক) কামরুল আহসান।

Facebook Comments

আরো খবর

পারিবারিক ঐতিহ্যে আমি নৌকার দাবিদার’... এম. এ. কাইয়ুম, মৌলভীবাজার ::কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভা...
কুলাউড়ায় পরীক্ষা কেন্দ্রের মাঠে মেলার প্রস্তুতি ... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ::চলমান এইচ.এস.সি পরীক্ষা কেন্দ্র মৌলভীবা...
মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন,চার বলয়ের দৌড়ঝা... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি::রাত পুহালেই মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের স...
কুলাউড়ায় টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টর ফাইনাল সম্পন্ন... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: কুলাউড়ায় উপজেলার জয়চণ্ডী ইউনিয়নের সোনা...
মৌলভীবাজারে হচ্ছে ‘আগর শিল্পপার্ক’-শিল... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:: নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বর্তমা...

নাসিরপুরের বাগানবাড়ির জঙ্গি আস্তানায় ৭-৮ জন জঙ্গির ছিন্নভিন্ন মরদেহ পড়ে আছে বলে জানালেন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। আত্মঘাতী বিস্ফোরণেই এদের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ সময় নাসিরপুরে সোয়াটের অভিযান ‘অপারেশন হিটব্যাক’ প্রাথমিকভাবে শেষ হয়েছে বলে ঘোষণা করেন মনিরুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার (মার্চ ৩০) বিকেল ৫টায় ঘটনাস্থলের কাছেই মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ১নং খলিলপুর ইউনিয়ন কমপ্লেক্স ভবনে এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশের সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি (‌উপ মহাপরিদর্শক) কামরুল আহসান ও অন্যান্য সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তারা।

মনিরুল বলেন, মৌলভীবাজারের নাসিরপুরের জঙ্গি আস্তানায় ড্রোন ব্যবহার করে আইইডি ও অন্যান্য বিস্ফোরক শনাক্ত করেন সোয়াট টিমের সদস্যরা।

নাসিরপুরে নিহত জঙ্গিরা নব্য জেএমবির বলেও ধারণা প্রকাশ করেন তিনি। ভেতরের হতাহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে কি না সে বিষয়টি এখনও পরিষ্কার নয় বলে সাংবাদিকদের জানান তিনি।

তিনি বলেন, ভেতরের দেহগুলো ছিন্নভিন্ন অবস্থায় রয়েছে। কোথাও তাদের হাত পড়ে আছে। কোথাও তাদের পা পড়ে আছে। এজন্য তাদেরকে এই মুহূর্তে আলাদাভাবে শনাক্ত করা মুশকিল। এসব দেখে আমাদের মনে হয়েছে ৭-৮ জন জঙ্গি এ ঘ্টনায় নিহত হয়েছে।

এছাড়া রাতে যখন অভিযান স্থগিত রাখা হয়, তখন পালাবার কোনো পথ নেই জেনেই জঙ্গিরা আত্মঘাতী হয়েছে বলে মনে করছি আমরা-যোগ করেন মনিরুল।

মনিরুল আরও বলেন, আতিয়ামহলে অভিযানের সময় গত শনিবার সংঘটিত জোড়া বিস্ফোরণের সূত্র ধরেই কাউন্টার টেরোরিজম এর গোয়েন্দারা এই আস্তানার সন্ধান পায়। ওই বিস্ফোরণে দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ ছয়জন নিহত হওয়ার পাশাপাশি আহত হন ৪৪ জন।

এছাড়া নাসিরপুরের এই আস্তানাটিকে জঙ্গিরা নিজেদের ‘হাইডআউট’ হিসেবে ব্যবহার করে আসছিলো বলেও জানান মনিরুল। এদিকে নাসিরপুরের অভিযান শেষ হওয়ার পর এখন সোয়াট টিমের সদস্যরা ঘটনাস্থল থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে মৌলভীবাজার পৌরশহরের বড়হাটে অবস্থিত অন্য জঙ্গি আস্তানার দিকে রওনা হবেন বলে জানান মনির।

বৃহস্পতিবার (মার্চ ৩০) বিকেল ৫টায় ঘটনাস্থলের কাছেই মৌলভীবাজার সদর উপজেলার ১নং খলিলপুর ইউনিয়ন কমপ্লেক্স ভবনে এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশের সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি (‌উপমহাপরিদর্শক) কামরুল আহসান।

Facebook Comments

আরো খবর

পারিবারিক ঐতিহ্যে আমি নৌকার দাবিদার’... এম. এ. কাইয়ুম, মৌলভীবাজার ::কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভা...
কুলাউড়ায় পরীক্ষা কেন্দ্রের মাঠে মেলার প্রস্তুতি ... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি ::চলমান এইচ.এস.সি পরীক্ষা কেন্দ্র মৌলভীবা...
মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন,চার বলয়ের দৌড়ঝা... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি::রাত পুহালেই মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগের স...
কুলাউড়ায় টি-২০ ক্রিকেট টুর্নামেন্টর ফাইনাল সম্পন্ন... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: কুলাউড়ায় উপজেলার জয়চণ্ডী ইউনিয়নের সোনা...
মৌলভীবাজারে হচ্ছে ‘আগর শিল্পপার্ক’-শিল... মৌলভীবাজার প্রতিনিধি:: নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বর্তমা...
error: কপি করবেন না, ধন্যবাদ