আজঃ ৮ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - সকাল ৭:৪০

দুলা ভাই নতুন বিয়ে করলেন আমাদের বকশিস কই!

Published: মার্চ ০৩, ২০১৮ - ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি ::সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা জুড়ে হিজরাদের দাপটে সাধারন মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছেন। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন কৌশলে তারা চাঁদাবাজি করে সাধারন মানুষদের কাছ থেকে আদায় করে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা এ কারণে সাধারণ মানুষের মনে হিজরাদের প্রতি তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হচ্ছে।

সরজমিনে দেখা যায় গতকাল শুক্রবার ও গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিশ্বনাথ উপজেলায় প্রবেশদ্বার পথ রশিদপুরে ২-৩ জনের হিজরার একটি দল অবস্থান নেয় কিছুক্ষণ পরেই বিয়ের বেশ কয়েকটি গাড়ি বিশ্বনাথ রোডে প্রবেশ করার মুখেই গাড়ির সামনে গিয়ে দাঁড়ায় পরে তাদের কাছে দুই হাজার টাকা দাবি করে টাকা না দেওয়ায় গাড়ির সামনে প্রায় ১৫ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকে ফলে রাস্তায় যানজট সৃষ্টি হয় ফলে রাস্তার এ রকম চিত্র প্রায় সময়ই দেখা যায় ।

বিশ্বনাথে প্রতিদিনই একটি সংঘবদ্ধ হিজরার দল এই রকম বিয়ের বর যাত্রী গাড়ী দেখলেই গাড়ীর সামনে দাড়িয়ে পাঁচ হাজার টাকা থেকে দশ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা দাবি করে। কখনো কখনো আবার দেখা যায় সেন্টারের ভিত্তরে প্রবেশ করে বরের কাছে টাকা দেওয়ার জন্যে দুলা ভাই নতুন বিয়ে করলেন আমাদের বকশি দেন নানা ধরণের কথাবার্তা বলে । তবে তাদের বেশিরভাগ সময় দেখা যায় উপজলার প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে অপেক্ষা করছে বরযাত্রীদের গাড়ির জন্যে। বরযাত্রীর গাড়ি দেখা মাত্র সামন দিয়ে দৌড়ে যায় এর ফলে যেকোনো সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।বিশ্বনাথ উপজেলার বিভিন্ন সেন্টারের আশপাশে গোড়াগোড়ি করে হিজরাদের দল।

অন্যদিকে অনেকেই অসহায় হয়ে হিজরাদের কথা মত টাকা দিতে বাধ্য হন বরসহ । আবার কেউ কেউ তাদের অশ্লীল কথাবার্তায় বিব্রতবোধ করেন। হিজড়াদের এই এধরনের চাদাবাজি বন্ধ করা না হলে উপজেলায় আরও বেশী চাঁদাবাজি হবে বলে ধারনা করছে সুশীল সমাজ। এ ব্যপারে প্রসাশনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ভূক্তভোগী লোকজন।

Facebook Comments

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি ::সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা জুড়ে হিজরাদের দাপটে সাধারন মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছেন। প্রতিনিয়ত নতুন নতুন কৌশলে তারা চাঁদাবাজি করে সাধারন মানুষদের কাছ থেকে আদায় করে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা এ কারণে সাধারণ মানুষের মনে হিজরাদের প্রতি তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হচ্ছে।

সরজমিনে দেখা যায় গতকাল শুক্রবার ও গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিশ্বনাথ উপজেলায় প্রবেশদ্বার পথ রশিদপুরে ২-৩ জনের হিজরার একটি দল অবস্থান নেয় কিছুক্ষণ পরেই বিয়ের বেশ কয়েকটি গাড়ি বিশ্বনাথ রোডে প্রবেশ করার মুখেই গাড়ির সামনে গিয়ে দাঁড়ায় পরে তাদের কাছে দুই হাজার টাকা দাবি করে টাকা না দেওয়ায় গাড়ির সামনে প্রায় ১৫ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকে ফলে রাস্তায় যানজট সৃষ্টি হয় ফলে রাস্তার এ রকম চিত্র প্রায় সময়ই দেখা যায় ।

বিশ্বনাথে প্রতিদিনই একটি সংঘবদ্ধ হিজরার দল এই রকম বিয়ের বর যাত্রী গাড়ী দেখলেই গাড়ীর সামনে দাড়িয়ে পাঁচ হাজার টাকা থেকে দশ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা দাবি করে। কখনো কখনো আবার দেখা যায় সেন্টারের ভিত্তরে প্রবেশ করে বরের কাছে টাকা দেওয়ার জন্যে দুলা ভাই নতুন বিয়ে করলেন আমাদের বকশি দেন নানা ধরণের কথাবার্তা বলে । তবে তাদের বেশিরভাগ সময় দেখা যায় উপজলার প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে অপেক্ষা করছে বরযাত্রীদের গাড়ির জন্যে। বরযাত্রীর গাড়ি দেখা মাত্র সামন দিয়ে দৌড়ে যায় এর ফলে যেকোনো সময় বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।বিশ্বনাথ উপজেলার বিভিন্ন সেন্টারের আশপাশে গোড়াগোড়ি করে হিজরাদের দল।

অন্যদিকে অনেকেই অসহায় হয়ে হিজরাদের কথা মত টাকা দিতে বাধ্য হন বরসহ । আবার কেউ কেউ তাদের অশ্লীল কথাবার্তায় বিব্রতবোধ করেন। হিজড়াদের এই এধরনের চাদাবাজি বন্ধ করা না হলে উপজেলায় আরও বেশী চাঁদাবাজি হবে বলে ধারনা করছে সুশীল সমাজ। এ ব্যপারে প্রসাশনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ভূক্তভোগী লোকজন।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর