আজঃ ৫ই পৌষ ১৪২৫ - ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ৮:৫১

১৪৩৭ হিজরী সনের ফিতরার মূল্য ৫৫ টাকা থেকে ৯৯০ টাকা

Published: জুন ২৯, ২০১৬ - ৭:৪৫ অপরাহ্ণ

সিলেট জালালাবাদ ইমাম সমিতির উদ্যোগে বিগত ১৬ রামাযান দিবাগত রাত ১১টার সময় জিন্দাবাজার বায়তুল আমান জামে মসজিদে সাদাকাতুল ফিতরের বর্তমান বাজার মূল্য নির্ধারনের লক্ষ্যে সিলেট শহর ও শহরতলীর মুফতী সাহেবানদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জালালাবাদ ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা হাফিজ মজদুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহিবুর রহমান মিটিপুরীর পরিচালনায় উপস্থিত উলামায়ে কেরামের বিষদ আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হল যেহেতু হাদীস শরীফে ৪ বস্তু দ্বারা ফিতরা আদায়ের বিধান হানাফী মাযহাব মত সর্বজন স্বীকৃত, ১) গম, ২) যব, ৩) খেজুর, ৪) কিসমিস। যব আমাদের দেশে দোষপ্রাপ্য আবার গম বর্তমান বাজারে সচরাচর ক্রয় বিক্রয় হয় না। তাই আটাকে তার স্থলে ধরা হল। আটা সিলেটের বাজারে দুই ধরনের পাওয়া যায়। এক খোলা আটা, প্রতি কেজি ২২ থেকে ২৫ মূল্যে বিক্রয় হচ্ছে। দুই প্যাকেট আটা বিক্রি হচ্ছে ২৮ টাকা থেকে ৩৩ টাকা পর্যন্ত। গরীবদের প্রতি দৃষ্টি রেখে ৩৩ টাকা প্রতি কেজির মূল্য হিসাবে অর্ধ সা’ = ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম প্রায় ১টি ফিতরার মূল্য দাড়াল ৫৫ টাকা। খেজুরের মূল্য বাজারে ৮০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত আছে। কিন্তু বহুল বিক্রিত খেজুর হল ১১০ টাকা প্রতি কেজি। সে হিসাবে এক সা’ = ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম প্রায় খেজুর একটি ফিতরার মূল্য ৩৬৫ টাকা ধার্য করা হল। ঠিক তেমনিভাবে কিসমিসের মূল্য ভিন্ন হলেও বহুল বিক্রিত মূল্য হল প্রতি কেজি কিসমিস ৩০০ টাকা, সেমতে এক সা’ = ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম কিসমিস দ্বারা একটি ফিতরার মূল্য দাড়াল ৯৯০ টাকা। উপরোক্ত বক্তেব্য সাথে একাত্মতা পোষণ করেন বৃহত্তর সিলেটের প্রধান মুফতী, সিলেট দরগাহ মাদরাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস মাওলানা মুফতী আবুল কালাম যাকারিয়া সাহেব, খাসদবির দারুস সালাম মাদরাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ বন্দর বাজারের পেশ ইমাম মুফতী মাওলানা হাফিজ ওলিউর রমানের সাহেব, কাজির বাজার মাদরাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা আহমদ আলী সাহেব, ভার্থখলা মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও মুফতী মাওলানা রফিকুল ইসলাম হক সাহেব, নয়াসড়ক মাদরাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা মুফতী আব্দুশ শুকুর সাহেব, সিলেট শাহী ঈদগাহ ও বন্দর বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মোস্তাক আহমদ খান সাহেব ও মুফতী মাওলানা হারুনুর রশীদ সাহেব।
মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা হোসাইন আহমদ, শাহপরান মাদরাসার মুফতী ও মুহাদ্দিস, জিন্দাবাজার বায়তুল আমান জামে মসজিদের ইমাম ও খতীব মাওলানা মুফতী রশিদ আহমদ ও মুফতী মাওলানা নূরুল আলম জাবের, সুবহানীঘাট মাদ্রাসার মুফতী ও মুহাদ্দিস মাওলানা রাশেদ আহমদ। দারুস সালাম মাদ্রাসার মুফতী ও মুহাদ্দিস মাওলানা যাকারিয়া, শাহ আবু তুরাব মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুশ শহিদ, কাজির বাজার মাদরাসার মুফতী মুহিউদ্দীন, খারপাড়া জামে মসজিদের ইমাম ও খতীব মাওলানা মুফতী হাফিজ আব্দুল্লাহ, মাওলানা হাফিজ মনজুর আহমদ, মাওলানা নুরুল হক, মাওলানা মোকদ্দাস, মাওলানা হাফিজ শরীফ উদ্দিন, হাফিজ মাওলানা আং ওয়াদুদ, মাওলানা ফারুক আহমদ, মাওলানা আব্দুল মালিক, মাওলানা বদরুল ইসলাম, মাওলানা হাফিজ শামসুল ইসলাম, মাওলানা সালাহ উদ্দীন ও হাফিজ মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং জালালাবাদ ইমাম সমিতির দায়িত্বশীল ও সদস্যবর্গ সহ বহু উলামায়ে কেরাম।

Facebook Comments

সিলেট জালালাবাদ ইমাম সমিতির উদ্যোগে বিগত ১৬ রামাযান দিবাগত রাত ১১টার সময় জিন্দাবাজার বায়তুল আমান জামে মসজিদে সাদাকাতুল ফিতরের বর্তমান বাজার মূল্য নির্ধারনের লক্ষ্যে সিলেট শহর ও শহরতলীর মুফতী সাহেবানদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জালালাবাদ ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা হাফিজ মজদুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহিবুর রহমান মিটিপুরীর পরিচালনায় উপস্থিত উলামায়ে কেরামের বিষদ আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হল যেহেতু হাদীস শরীফে ৪ বস্তু দ্বারা ফিতরা আদায়ের বিধান হানাফী মাযহাব মত সর্বজন স্বীকৃত, ১) গম, ২) যব, ৩) খেজুর, ৪) কিসমিস। যব আমাদের দেশে দোষপ্রাপ্য আবার গম বর্তমান বাজারে সচরাচর ক্রয় বিক্রয় হয় না। তাই আটাকে তার স্থলে ধরা হল। আটা সিলেটের বাজারে দুই ধরনের পাওয়া যায়। এক খোলা আটা, প্রতি কেজি ২২ থেকে ২৫ মূল্যে বিক্রয় হচ্ছে। দুই প্যাকেট আটা বিক্রি হচ্ছে ২৮ টাকা থেকে ৩৩ টাকা পর্যন্ত। গরীবদের প্রতি দৃষ্টি রেখে ৩৩ টাকা প্রতি কেজির মূল্য হিসাবে অর্ধ সা’ = ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম প্রায় ১টি ফিতরার মূল্য দাড়াল ৫৫ টাকা। খেজুরের মূল্য বাজারে ৮০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত আছে। কিন্তু বহুল বিক্রিত খেজুর হল ১১০ টাকা প্রতি কেজি। সে হিসাবে এক সা’ = ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম প্রায় খেজুর একটি ফিতরার মূল্য ৩৬৫ টাকা ধার্য করা হল। ঠিক তেমনিভাবে কিসমিসের মূল্য ভিন্ন হলেও বহুল বিক্রিত মূল্য হল প্রতি কেজি কিসমিস ৩০০ টাকা, সেমতে এক সা’ = ৩ কেজি ৩০০ গ্রাম কিসমিস দ্বারা একটি ফিতরার মূল্য দাড়াল ৯৯০ টাকা। উপরোক্ত বক্তেব্য সাথে একাত্মতা পোষণ করেন বৃহত্তর সিলেটের প্রধান মুফতী, সিলেট দরগাহ মাদরাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস মাওলানা মুফতী আবুল কালাম যাকারিয়া সাহেব, খাসদবির দারুস সালাম মাদরাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ বন্দর বাজারের পেশ ইমাম মুফতী মাওলানা হাফিজ ওলিউর রমানের সাহেব, কাজির বাজার মাদরাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা আহমদ আলী সাহেব, ভার্থখলা মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও মুফতী মাওলানা রফিকুল ইসলাম হক সাহেব, নয়াসড়ক মাদরাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা মুফতী আব্দুশ শুকুর সাহেব, সিলেট শাহী ঈদগাহ ও বন্দর বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মোস্তাক আহমদ খান সাহেব ও মুফতী মাওলানা হারুনুর রশীদ সাহেব।
মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা হোসাইন আহমদ, শাহপরান মাদরাসার মুফতী ও মুহাদ্দিস, জিন্দাবাজার বায়তুল আমান জামে মসজিদের ইমাম ও খতীব মাওলানা মুফতী রশিদ আহমদ ও মুফতী মাওলানা নূরুল আলম জাবের, সুবহানীঘাট মাদ্রাসার মুফতী ও মুহাদ্দিস মাওলানা রাশেদ আহমদ। দারুস সালাম মাদ্রাসার মুফতী ও মুহাদ্দিস মাওলানা যাকারিয়া, শাহ আবু তুরাব মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুশ শহিদ, কাজির বাজার মাদরাসার মুফতী মুহিউদ্দীন, খারপাড়া জামে মসজিদের ইমাম ও খতীব মাওলানা মুফতী হাফিজ আব্দুল্লাহ, মাওলানা হাফিজ মনজুর আহমদ, মাওলানা নুরুল হক, মাওলানা মোকদ্দাস, মাওলানা হাফিজ শরীফ উদ্দিন, হাফিজ মাওলানা আং ওয়াদুদ, মাওলানা ফারুক আহমদ, মাওলানা আব্দুল মালিক, মাওলানা বদরুল ইসলাম, মাওলানা হাফিজ শামসুল ইসলাম, মাওলানা সালাহ উদ্দীন ও হাফিজ মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন এবং জালালাবাদ ইমাম সমিতির দায়িত্বশীল ও সদস্যবর্গ সহ বহু উলামায়ে কেরাম।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর