আজঃ ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ - দুপুর ১:৪৯

স্বার্থান্বেষী মহলের ইন্ধনে রাজুকে হত্যা করা হয়েছে-আরিফ

Published: আগ ১২, ২০১৮ - ৪:৩০ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন::আমার বিজয়কে প্রশ্নবিদ্ধ করতে একটি স্বার্থান্বেষী মহলের ইন্ধনে ছাত্রদল নেতা ফয়জুল হক রাজুকে হত্যা করা হয়েছে।

বিজয়কে বিতর্কিত করতেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

রোবার (১২ আগস্ট) দুপুরে রাজুর মরদেহ দেখতে নেতাকর্মীদের নিয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে যান আরিফুল। সেখানে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করে রাজু হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি করেন।

শনিবার (১১ আগস্ট) রাত ৯টায় নগরীর কুমার পাড়ায় নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিজয় মিছিল শেষে ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ নতুন কমিটির কতিপয় ক্যাডারদের হামলায় গুরুতর আহত হন রাজুসহ তিন ছাত্রদলকর্মী।

তাদের উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে রাত সাড়ে ১১টার দিকে অস্ত্রোপচারকালে মারা যান রাজু। আহত জাকির হোসেন উজ্জ্বল ও সালাহ লিটনকে হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন।

নিহত ছাত্রদল নেতা রাজু উপশহর এ-ব্লকের ৯ নম্বর রোডের ১২ নম্বর বাসার বাসিন্দা ফজর আলীর ছেলে। তিনি সাবেক ছাত্রদল নেতা ইমরান চৌধুরী-রেজাউল করিম নাচন ও আজিজ গ্রুপের সদস্য এবং ছাত্রদলের জেলা কমিটির সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক ছিলেন।

এ ঘটনায় রাতভর অভিযান চালালেও পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি এবং মামলাও হয়নি বলে জানিয়েছেন সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন::আমার বিজয়কে প্রশ্নবিদ্ধ করতে একটি স্বার্থান্বেষী মহলের ইন্ধনে ছাত্রদল নেতা ফয়জুল হক রাজুকে হত্যা করা হয়েছে।

বিজয়কে বিতর্কিত করতেই এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

রোবার (১২ আগস্ট) দুপুরে রাজুর মরদেহ দেখতে নেতাকর্মীদের নিয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে যান আরিফুল। সেখানে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করে রাজু হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি করেন।

শনিবার (১১ আগস্ট) রাত ৯টায় নগরীর কুমার পাড়ায় নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিজয় মিছিল শেষে ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষ নতুন কমিটির কতিপয় ক্যাডারদের হামলায় গুরুতর আহত হন রাজুসহ তিন ছাত্রদলকর্মী।

তাদের উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে রাত সাড়ে ১১টার দিকে অস্ত্রোপচারকালে মারা যান রাজু। আহত জাকির হোসেন উজ্জ্বল ও সালাহ লিটনকে হাসাপাতালে চিকিৎসাধীন।

নিহত ছাত্রদল নেতা রাজু উপশহর এ-ব্লকের ৯ নম্বর রোডের ১২ নম্বর বাসার বাসিন্দা ফজর আলীর ছেলে। তিনি সাবেক ছাত্রদল নেতা ইমরান চৌধুরী-রেজাউল করিম নাচন ও আজিজ গ্রুপের সদস্য এবং ছাত্রদলের জেলা কমিটির সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক ছিলেন।

এ ঘটনায় রাতভর অভিযান চালালেও পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি এবং মামলাও হয়নি বলে জানিয়েছেন সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশাররফ হোসেন।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর