আজঃ ২৯শে কার্তিক ১৪২৫ - ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ - রাত ১১:০৭

স্বামীর মৃত্যুর অভিনয়ে দুই সন্তানসহ স্ত্রীর আত্মহত্যা

Published: অক্টো ১৮, ২০১৮ - ৫:২০ পূর্বাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::চীনে স্বামীর মৃত্যুর অভিনয়ের কারণে এক নারী সন্তান সহ পুকুরে ডুবে আত্মহত্যা করেছেন। বীমা সুবিধার কারনে ওই ব্যক্তি মৃত্যুর নাটক সাজিয়েছিলেন বলে স্থানীয় গণমামের বরাতে বিবিসি জানিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, হে নামের ৩৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি স্ত্রীকে না জানিয়ে গত সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে এক মিলিয়ন ইয়ান বীমা সুবিধা নেয়ার পরিকল্পনা করেন। তিনি ব্যবস্থা করেন, তার মৃত্যুর পর এই বীমা সুবিধা পাবে তার পরিবার।

তার এক লাখ ইয়ান লোন নেয়া ছিল বলেও পুলিশ জানায়। পরিকল্পনা মত তিনি ১৯ সেপ্টেম্বর একটি ভাড়া করা গাড়ি দুর্ঘটনায় তার মৃত্যুর নাটক সাজান। একটি নদীতে তার গাড়ি পাওয়া গেলেও তার মরদেহ পাওয়া যায়নি।

কিন্তু তিনি তার এই পরিকল্পনার কথা স্ত্রীকে কখনো জানাননি। পরে ১১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার তার ৩১ বছর বয়সী স্ত্রী, চার বছরের ছেলে ও তিন বছরের মেয়ের মরদহে বাড়ির পাশের পুকুরে পাওয়া যায়।

উইচ্যাটে ওই নারী একটি আত্মহত্যার নোট লিখে যান। তিনি স্বামীর উদ্দেশে এতে লেখেন, ‘‘তোমাকে সঙ্গ দিতে আমরাও আসছি। ’’ আমি সবময়ই চেয়েছি আমরা সপরিবারে একসঙ্গে থাকবো।’’

পরের দিন শুক্রবার মৃত্যুর নাটক সাজানো হে হুনান প্রদেশে জিংহুচায় পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করেন। তার বিরুদ্ধে বীমা জালিয়াতি ও ইচ্ছাকৃতভাবে সম্পদ নষ্টের অভিযোগে মামলা হয়েছে।

তার আগে তিনি অনলাইনে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। ভিডিওতে তিনি কেঁদে কেঁদে বলেন, রোগে ভোগা তিন বছরের মেয়ের জন্যই তিনি টাকা ধার নিয়েছিলেন। ভিডিওটি পরে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

গত সপ্তাহ জুড়েই ঘটনাটি নিয়ে চীনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা চলছে। কথা উঠেছে অর্থনৈতিক চাপ ও পারিবারিক বিষয় নিয়ে।

Facebook Comments

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::চীনে স্বামীর মৃত্যুর অভিনয়ের কারণে এক নারী সন্তান সহ পুকুরে ডুবে আত্মহত্যা করেছেন। বীমা সুবিধার কারনে ওই ব্যক্তি মৃত্যুর নাটক সাজিয়েছিলেন বলে স্থানীয় গণমামের বরাতে বিবিসি জানিয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, হে নামের ৩৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি স্ত্রীকে না জানিয়ে গত সেপ্টেম্বরের শুরুর দিকে এক মিলিয়ন ইয়ান বীমা সুবিধা নেয়ার পরিকল্পনা করেন। তিনি ব্যবস্থা করেন, তার মৃত্যুর পর এই বীমা সুবিধা পাবে তার পরিবার।

তার এক লাখ ইয়ান লোন নেয়া ছিল বলেও পুলিশ জানায়। পরিকল্পনা মত তিনি ১৯ সেপ্টেম্বর একটি ভাড়া করা গাড়ি দুর্ঘটনায় তার মৃত্যুর নাটক সাজান। একটি নদীতে তার গাড়ি পাওয়া গেলেও তার মরদেহ পাওয়া যায়নি।

কিন্তু তিনি তার এই পরিকল্পনার কথা স্ত্রীকে কখনো জানাননি। পরে ১১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার তার ৩১ বছর বয়সী স্ত্রী, চার বছরের ছেলে ও তিন বছরের মেয়ের মরদহে বাড়ির পাশের পুকুরে পাওয়া যায়।

উইচ্যাটে ওই নারী একটি আত্মহত্যার নোট লিখে যান। তিনি স্বামীর উদ্দেশে এতে লেখেন, ‘‘তোমাকে সঙ্গ দিতে আমরাও আসছি। ’’ আমি সবময়ই চেয়েছি আমরা সপরিবারে একসঙ্গে থাকবো।’’

পরের দিন শুক্রবার মৃত্যুর নাটক সাজানো হে হুনান প্রদেশে জিংহুচায় পুলিশের কাছে আত্মসমর্পন করেন। তার বিরুদ্ধে বীমা জালিয়াতি ও ইচ্ছাকৃতভাবে সম্পদ নষ্টের অভিযোগে মামলা হয়েছে।

তার আগে তিনি অনলাইনে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। ভিডিওতে তিনি কেঁদে কেঁদে বলেন, রোগে ভোগা তিন বছরের মেয়ের জন্যই তিনি টাকা ধার নিয়েছিলেন। ভিডিওটি পরে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

গত সপ্তাহ জুড়েই ঘটনাটি নিয়ে চীনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা চলছে। কথা উঠেছে অর্থনৈতিক চাপ ও পারিবারিক বিষয় নিয়ে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর