আজঃ ২৭শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১১ই ডিসেম্বর ২০১৮ - ভোর ৫:২০

সেই আরজে ‘টেরট বাবা’ গ্রেফতার

Published: মার্চ ০২, ২০১৮ - ৩:৩০ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক:: জনপ্রিয় রেডিও অনুষ্ঠান ‘ডর’-এর ‘ভৌতিক গবেষক’ হিসেবে পরিচয় দেওয়া রাদবি রেজা ওরফে ‘টেরট বাবা’কে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সদস্যরা। বৃহস্পতিবার রাতে রাদবিকে গ্রেফতার করা হয়।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃত রেজা ওরফে টেরট বাবা ২০১৬ সালের অক্টোবর মাস থেকে এবিসি রেডিওর ‘ডর’ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন। প্রথম দিকে সেই অনুষ্ঠানে শুধু ভূতের গল্প বলা হতো। পরবর্তী সময়ে অনুষ্ঠানটিতে মানুষের নানা ধরনের সমস্যা সমাধানের জন্য ‘টেরট কার্ড সেগমেন্ট’ নামে একটি বিষয় যুক্ত করেন। সেই অংশে রেজা মানুষের অতীত, বর্তমান ও ভবিষৎ বলে জ্বিন-ভূতের ভয় দেখাতেন। এর মাধ্যমে সহজ-সরল মানুষের কাছে আতর, মুক্তা, আংটি চড়া দামে বিক্রি করতেন তিনি।

সিআইডির এই কর্মকর্তা জানান, চড়া দামে পণ্য কিনে স্বাভাবিকভাবেই কারো কোনো উপকার হয়নি। প্রতারণার শিকার বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী রেজার বিরুদ্ধে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় মামলা করেন। সেসব মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

নজরুল ইসলাম জানান, রেজা ফেসবুক ও ইউটিউবে বেশ কয়েকটি ভিডিও প্রকাশ করেন। সেগুলোতে দেখানো হয়, তিনি হাত দিয়ে জ্বিন ধরতে পারেন, খালি হাতে মোমবাতি জ্বালাতে পারেন। বিভিন্ন রঙের কার্ড দেখিয়েও প্রতারণা করেন এই যুবক।

সিআইডির এই পুলিশ সুপার আরও জানান, একই ধরনের ঘটনায় জনপ্রিয় রেজিও জকি (আরজে) কিবরিয়াকে চাকরিচ্যুত করেছে এবিসি রেডিও কর্তৃপক্ষ। একই ধরনের প্রতারণায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক:: জনপ্রিয় রেডিও অনুষ্ঠান ‘ডর’-এর ‘ভৌতিক গবেষক’ হিসেবে পরিচয় দেওয়া রাদবি রেজা ওরফে ‘টেরট বাবা’কে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সদস্যরা। বৃহস্পতিবার রাতে রাদবিকে গ্রেফতার করা হয়।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম জানান, গ্রেফতারকৃত রেজা ওরফে টেরট বাবা ২০১৬ সালের অক্টোবর মাস থেকে এবিসি রেডিওর ‘ডর’ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন। প্রথম দিকে সেই অনুষ্ঠানে শুধু ভূতের গল্প বলা হতো। পরবর্তী সময়ে অনুষ্ঠানটিতে মানুষের নানা ধরনের সমস্যা সমাধানের জন্য ‘টেরট কার্ড সেগমেন্ট’ নামে একটি বিষয় যুক্ত করেন। সেই অংশে রেজা মানুষের অতীত, বর্তমান ও ভবিষৎ বলে জ্বিন-ভূতের ভয় দেখাতেন। এর মাধ্যমে সহজ-সরল মানুষের কাছে আতর, মুক্তা, আংটি চড়া দামে বিক্রি করতেন তিনি।

সিআইডির এই কর্মকর্তা জানান, চড়া দামে পণ্য কিনে স্বাভাবিকভাবেই কারো কোনো উপকার হয়নি। প্রতারণার শিকার বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী রেজার বিরুদ্ধে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় মামলা করেন। সেসব মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

নজরুল ইসলাম জানান, রেজা ফেসবুক ও ইউটিউবে বেশ কয়েকটি ভিডিও প্রকাশ করেন। সেগুলোতে দেখানো হয়, তিনি হাত দিয়ে জ্বিন ধরতে পারেন, খালি হাতে মোমবাতি জ্বালাতে পারেন। বিভিন্ন রঙের কার্ড দেখিয়েও প্রতারণা করেন এই যুবক।

সিআইডির এই পুলিশ সুপার আরও জানান, একই ধরনের ঘটনায় জনপ্রিয় রেজিও জকি (আরজে) কিবরিয়াকে চাকরিচ্যুত করেছে এবিসি রেডিও কর্তৃপক্ষ। একই ধরনের প্রতারণায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর