আজঃ ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪৭

সুনামগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ড্রেজার মেশিন জব্দ

Published: নভে ১৪, ২০১৮ - ৯:৪৮ অপরাহ্ণ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জে সুরমা নদীতে অবৈধ ভাবে ড্রেজিং করে মাটি উত্তোলন করায় বুধবার বিকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও এসিল্যান্ড নুসরাত জাহান শশী ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিন সরকারের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় একটি ড্রেজার মেশিন জব্দ ও ৫জনকে আটক করে তাদেরকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা ও আটকৃত ৫জনকে সুনামগঞ্জ সদর থানা পুলিশের কাছে হস্থান্তর করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে,সুরমা নদীর ব্রাম্মণগাও চরে ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলন করছিল কিছু লোক। খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত সেখানে পৌঁছে একটি ড্রেজার মেশিন জব্দ করে। এসময় ড্রেজার মেশিনের শ্রমিক নিকলি উপজেলার দামপাড়া গ্রামের মোঃরায়হান,একই গ্রামের অপু,তুষার ও শরিফ এবং বাজিতপুর উপজেলার বাজিতপুর গ্রামের রেনু মিয়াকে আটক করা হয়। তাদের মেশিনটি জব্দ করে তাদের প্রত্যেককে ২০হাজার টাকা করে এক লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আল আমিন সরকার বলেন,অভিযানে একটি ড্রেজার মেশিন জব্দসহ ১লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় মেশিনের মালিকের বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রমিকরা জনৈক শামসুল আবেদনীন নামক এক ব্যক্তির কথা বলেছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় উপস্থিত ছিলেন সদর ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা কাজী শামসুল হুদা সোহেল,এসআই বাবুল,সার্ভেয়ার আতিকুর রহমান প্রমুখ।

সিলেট প্রতিদিন/১৪নভেম্বর ২০১৮/জেকে

Facebook Comments

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জে সুরমা নদীতে অবৈধ ভাবে ড্রেজিং করে মাটি উত্তোলন করায় বুধবার বিকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও এসিল্যান্ড নুসরাত জাহান শশী ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিন সরকারের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় একটি ড্রেজার মেশিন জব্দ ও ৫জনকে আটক করে তাদেরকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা ও আটকৃত ৫জনকে সুনামগঞ্জ সদর থানা পুলিশের কাছে হস্থান্তর করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে,সুরমা নদীর ব্রাম্মণগাও চরে ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলন করছিল কিছু লোক। খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত সেখানে পৌঁছে একটি ড্রেজার মেশিন জব্দ করে। এসময় ড্রেজার মেশিনের শ্রমিক নিকলি উপজেলার দামপাড়া গ্রামের মোঃরায়হান,একই গ্রামের অপু,তুষার ও শরিফ এবং বাজিতপুর উপজেলার বাজিতপুর গ্রামের রেনু মিয়াকে আটক করা হয়। তাদের মেশিনটি জব্দ করে তাদের প্রত্যেককে ২০হাজার টাকা করে এক লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আল আমিন সরকার বলেন,অভিযানে একটি ড্রেজার মেশিন জব্দসহ ১লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় মেশিনের মালিকের বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রমিকরা জনৈক শামসুল আবেদনীন নামক এক ব্যক্তির কথা বলেছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় উপস্থিত ছিলেন সদর ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা কাজী শামসুল হুদা সোহেল,এসআই বাবুল,সার্ভেয়ার আতিকুর রহমান প্রমুখ।

সিলেট প্রতিদিন/১৪নভেম্বর ২০১৮/জেকে

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর