আজঃ ৩রা পৌষ ১৪২৫ - ১৭ই ডিসেম্বর ২০১৮ - দুপুর ১২:৩৪

সিলেটে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বর্ষবরণ

Published: এপ্রি ১৪, ২০১৮ - ৬:৪০ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: বছরের প্রথম সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে নতুন বছরকে বরণ করে নিচ্ছে বাঙালি। পুরাতন দুঃখ, যাতনা, হতাশা ভুলে গিয়ে কামনা করছে প্রত্যাশিত নতুন বছর।

আজ শনিবার (১৪ এপ্রিল) ১৪২৫ বঙ্গাব্দের প্রথম দিন। সারাদেশের মতো সিলেটেও পহেলা বৈশাখ বরণ করা হচ্ছে নানা বর্ণাঢ্য আয়োজনে। সিলেটবাসী মেতেছে প্রাণের উৎসবে।

বাংলা নববর্ষের প্রথম প্রহরে ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’ এখন বাঙালি সংস্কৃতির অনিবার্য অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। মানবজীবনে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিবাদী এ শোভাযাত্রায় শিক্ষক-ছাত্রসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেন।

সকালে সিলেট জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বের হওয়া বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রায় ছিল রংবেরঙের মুখোশ আর হাতি-ঘোড়া। শোভাযাত্রায় যোগ দেন বিভিন্ন সরকারি-আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ও শিক্ষক-ছাত্রসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ। অংশগ্রহণ করেছিলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

পহেলা বৈশাখে জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করেছেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, লিডিং ইউনিভার্সিটি, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। নিজস্ব ক্যাম্পাসে ছাড়াও নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেছে শোভাযাত্রাগুলো।

পাশাপাশি সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন আয়োজিত দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চলছে বর্ষবরণ। ভোর সাড়ে ৬টায় শতকণ্ঠে বর্ষবরণ করেছে শ্রুতি, সিলেট। এছাড়া দিনব্যাপী বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে আনন্দলোক ও উদীচী, সিলেট।

সাধারণত ভোর থেকে রাত পর্যন্ত বর্ষবরণের অনুষ্ঠান চললেও এবার প্রশাসনের বেঁধে দেয়া সময়ের কারণে সকল অনুষ্ঠান সন্ধ্যার আগেই শেষ হবে বলে জানা গেছে।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: বছরের প্রথম সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে নতুন বছরকে বরণ করে নিচ্ছে বাঙালি। পুরাতন দুঃখ, যাতনা, হতাশা ভুলে গিয়ে কামনা করছে প্রত্যাশিত নতুন বছর।

আজ শনিবার (১৪ এপ্রিল) ১৪২৫ বঙ্গাব্দের প্রথম দিন। সারাদেশের মতো সিলেটেও পহেলা বৈশাখ বরণ করা হচ্ছে নানা বর্ণাঢ্য আয়োজনে। সিলেটবাসী মেতেছে প্রাণের উৎসবে।

বাংলা নববর্ষের প্রথম প্রহরে ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’ এখন বাঙালি সংস্কৃতির অনিবার্য অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। মানবজীবনে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিবাদী এ শোভাযাত্রায় শিক্ষক-ছাত্রসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেন।

সকালে সিলেট জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বের হওয়া বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রায় ছিল রংবেরঙের মুখোশ আর হাতি-ঘোড়া। শোভাযাত্রায় যোগ দেন বিভিন্ন সরকারি-আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ও শিক্ষক-ছাত্রসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ। অংশগ্রহণ করেছিলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

পহেলা বৈশাখে জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করেছেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, লিডিং ইউনিভার্সিটি, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। নিজস্ব ক্যাম্পাসে ছাড়াও নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেছে শোভাযাত্রাগুলো।

পাশাপাশি সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন আয়োজিত দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চলছে বর্ষবরণ। ভোর সাড়ে ৬টায় শতকণ্ঠে বর্ষবরণ করেছে শ্রুতি, সিলেট। এছাড়া দিনব্যাপী বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে আনন্দলোক ও উদীচী, সিলেট।

সাধারণত ভোর থেকে রাত পর্যন্ত বর্ষবরণের অনুষ্ঠান চললেও এবার প্রশাসনের বেঁধে দেয়া সময়ের কারণে সকল অনুষ্ঠান সন্ধ্যার আগেই শেষ হবে বলে জানা গেছে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর