সিলেটে জামায়াতের হরতাল : প্রতিহতের কর্মসূচী ছাত্রলীগের

sylhetprotidin24

জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার ও রিমান্ডে নেয়ার প্রতিবাদে এবং তাদের মুক্তির দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার সিলেটসহ সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে সংগঠনটি।

দলীয় স্বার্থে ডাকা এই হরতালকে জনগন প্রত্যাখ্যান করবে বলে মনে করেন সিলেটের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। তাদের মতে, হরতাল একটি দেশের উন্নতির অন্তরায়। তবে বিশেষ কারণে দেশের স্বার্থে কোন রাজনৈতিক সংগঠন হরতাল ডাকতে পারে। কিন্তু শুধু দলীয় স্বার্থে হরতালের ডাক দেওয়া কোন ভাবেই কাম্য নয়।

আর প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলছেন, হরতালে যে কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকবে পুলিশ। সিলেটের সকল মোড়ে বাড়তি নিরাপত্তাও নিশ্চিত করা হবে।

জামায়াতের হরতালকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, যাদের কোন নিবন্ধন নেই তারা কোনভাবেই হরতাল আহ্বানের অধিকার রাখে না। তাছাড়া যে সকল নেতা কর্মীদের মুক্তির দাবিতে তারা হরতাল ঘোষণা করেছে সেকল নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা থাকায় প্রশাসন তাদেরকে গ্রেফতার করেছে। সুতরাং এরকম একটি বিষয়ে হরতাল ঘোষণার কোন যৌক্তিকতা নেই। সিলেটের মানুষ জামাতের এই হরতালকে প্রত্যাখ্যান করবে।

সিলেট জেলা বিএনপি এর সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, কোন দাবি আদায়ের জন্য যে কোন রাজনৈতিক সংগঠন হরতাল ঘোষণা করার অধিকার রাখে। তিনি বলেণ, জামায়াত ইসলামী যদিও বিশ দলীয় জোটের অন্তর্ভুক্ত সংগঠন তবু তাদের আজকের হরতালে বিএনপির কোন সম্পৃক্ততা নেই। সুতরাং এই হরতাল জনগন মানবে কি মানবে না তা জনগনই বিবেচনা করবে।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী বলেন, জাতীয় পার্টি শান্তিতে বিশ্বাস করে। হরতাল, ভাংচুর এসব বিষয়কে জাতীয় পার্টি সমর্থন করে না। তাছাড়া হরতাল একটি দেশের উন্নয়নের অন্তরায়। তাই জামাতের এই হরতালকে আমি সুন্দর ভাবে বিবেচনা করছি না।

সিলেট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ রেনু বলেন, কোন দল, ব্যক্তি বা গোষ্টির স্বার্থে জনগনের জানমাল জিম্মি কারা উচিত নয়।

সিলেট জেলা আইনজিবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হোসেন আহমদ বলেন, যেহেতু এই হরতালের ব্যাপারে তেমন প্রচারণা হয়নি তাই খুব বেশি একটি প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা দেখছি না। তাছাড়া কোর্টের সকল কার্যক্রমও যথারীতি চলবে।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (গনমাধ্যম) জেদান আল মুসা বলেন, হরতালে নাশকতা ঠেকাতে সিলেটের মহানগর পলিশ তৎপর রয়েছে। সিলেটের সকল মোড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

এদিকে সিলেটে আজকের এই হরতাল প্রতিরোধে এবং জনগণের যাতে কোন অসুবিধা না হয় সেদিকে সর্বাত্মক খেয়াল রাখার ঘোষণা দিয়েছেন সিলেটের ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে হরতালের প্রতিবাদে মিছিলের আয়োজন করেছে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ। তবে, জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এমন দৃশ্যমান কোন কর্মসুচি না নেওয়া হলেও হরতালকারীরা যাতে অপ্রীতিকর কোন ঘটনা ঘটাতে না পারে সে ব্যাপারে সজাগ থাকবেন বলে জানিয়েছেন দায়িত্বশীলরা।

এ ব্যপারে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ বলেন- জামায়াতের এই হরতাল শক্তভাবে প্রতিরোধ করবে সিলেট জেলা ছাত্রলীগ। কোন কর্মসূচী না থাকলেও সর্বদা জনগণের সহায়তায় রাজপথে থাকবে ছাত্রলীগ। সিলেটের বিভিন্ন উপজেলা ইউনিটিগুলোতেও এমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল বাছিত রুম্মান বলেন- জামায়াত কোন রাজনৈতিক সংগঠন নয়, এরা জঙ্গী সংগঠন। আর এদেশের মানুষ এখন হরতাল মানেনা। তবুও কোন অঘটন যাতে না ঘটে সে ব্যপারে সক্রিয় থাকবে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ।

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এম. রায়হান চৌধুরী জানান- সিলেটের যেখানেই জামায়াত হরতাল পালনের চেষ্টা করবে, সেখানেই তাদের প্রতিহত করবে জেলা ছাত্রলীগ। জেলা ছাত্রলীগের আওতাধীন প্রতিটি ইউনিটেই হরতালের বিরুদ্ধে সক্রিয় থাকার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম তুষার বলেন- যুদ্ধপরাধীদের দল জামায়াতের হরতালের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে মিছিল করবে মহানগর ছাত্রলীগ। এছাড়া হরতালকারীরা যাতে সাধারণ জনগণের জানমালের কোন ক্ষতি করতে না পারে সে ব্যপারেও লক্ষ রাখবে ছাত্রলীগ।

Facebook Comments

Leave a Reply