আজঃ ২৯শে কার্তিক ১৪২৫ - ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ - সকাল ১১:৫৩

সিলেটে ক্যান্সার আক্রান্তের ঝুঁকি বেশি

Published: সেপ্টে ০৬, ২০১৮ - ৯:৩৯ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন :: দেশের যেকোন জায়গার চেয়ে সিলেটে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। ভৌগলিক অবস্থান, চা শ্রমিকসহ বিভিন্ন দরিদ্র জনগোষ্টির আধিক্য, খাদ্যাভ্যাস ও ঝুঁকিপূর্ণ পেশার কারণে এখানে ক্যান্সারের ঝুঁকি বেশি। তবে প্রাথমিক অবস্থায় ক্যান্সার নির্নয় করা গেলে, চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সুস্থ করা সম্ভব। সিলেটে সরকারি-বেসরকারি বেশ কয়েকটি হাসপাতালে ক্যান্সারের আধুনিক চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। যেকোন রোগী প্রাথমিক পর্যায়ে আসলে চিকিৎসার মাধ্যমে তাকে সুস্থ করে তোলা সম্ভব।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর একটি হোটেলে ‘ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অব ক্যান্সার এন্ড পেলিয়েটিভ কেয়ার’ শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা একথা বলেন। ঢাকার পর সিলেটে জনসচেতনতা ও সেবা বিষয়ে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও নার্সদের প্রশিক্ষণের জন্য ছয় দিনব্যাপী এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া এই সেমিনারে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পাশাপাশি ৫০ জনের মত সেবিকা প্রশিক্ষণ নেবেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় অধ্যাপক ডা. শায়লা খাতুন প্রধান অতিথি হিসেবে এই সেমিনারের উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন হাভার্ড ইউনির্ভাসিটির সহযোগী অধ্যাপক ডা. বিমলাংশু দে, আয়াত এডুকেশনের চেয়ারম্যান তাহসিন আমান ও প্রধান পৃষ্টপোষক নুসরাত আমান।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম মাহবুবুল হক, ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মুর্শেদ আহমদ চৌধুরী, নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী প্রমুখ। আয়াত এডুকেশন, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল, আমেরিকার ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হাসপাতাল ও বোস্টনের সিমন্স কলেজ যৌথভাবে এই সেমিনারের আয়োজন করেছে।

এই সেমিনারের পাশাপাশি হাভার্ড ইউনির্ভাসিটির হাভার্ড মেডিকেল স্কুলের স্ত্রীরোগ ও প্রজনন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. একে গুডম্যান ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. বিমলাংশু দে সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে ক্যান্সার রোগী দেখবেন এবং কয়েকটি অপারেশন করবেন। স্থানীয় চিকিৎসকদের ক্যান্সার বিষয়ে আধুনিক জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে তারা কাজ করবেন।

বৃহস্পতিবার উদ্বোধনী পর্বের পর ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে আয়োজকদের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়। এতে হাভার্ড ইউনির্ভাসিটির হাভার্ড মেডিকেল স্কুলের বিশেষজ্ঞ সেবিকা নিশা ওয়ালি, ডসনিন হেভার্ড ও এমিলি ক্যান্সার রোগীদের সেবা ও প্রশিক্ষনের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। আজ থেকে শুরু হওয়া মূল প্রশিক্ষণের পর অংশগ্রহণকারীরা দেশের অন্যান্য হাসপাতালের সেবিকাদের ক্যান্সার রোগীদের দেখাশোনার ব্যাপারে প্রশিক্ষণ দেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করবেন।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন :: দেশের যেকোন জায়গার চেয়ে সিলেটে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। ভৌগলিক অবস্থান, চা শ্রমিকসহ বিভিন্ন দরিদ্র জনগোষ্টির আধিক্য, খাদ্যাভ্যাস ও ঝুঁকিপূর্ণ পেশার কারণে এখানে ক্যান্সারের ঝুঁকি বেশি। তবে প্রাথমিক অবস্থায় ক্যান্সার নির্নয় করা গেলে, চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সুস্থ করা সম্ভব। সিলেটে সরকারি-বেসরকারি বেশ কয়েকটি হাসপাতালে ক্যান্সারের আধুনিক চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। যেকোন রোগী প্রাথমিক পর্যায়ে আসলে চিকিৎসার মাধ্যমে তাকে সুস্থ করে তোলা সম্ভব।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর একটি হোটেলে ‘ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অব ক্যান্সার এন্ড পেলিয়েটিভ কেয়ার’ শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা একথা বলেন। ঢাকার পর সিলেটে জনসচেতনতা ও সেবা বিষয়ে ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও নার্সদের প্রশিক্ষণের জন্য ছয় দিনব্যাপী এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া এই সেমিনারে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পাশাপাশি ৫০ জনের মত সেবিকা প্রশিক্ষণ নেবেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় অধ্যাপক ডা. শায়লা খাতুন প্রধান অতিথি হিসেবে এই সেমিনারের উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন হাভার্ড ইউনির্ভাসিটির সহযোগী অধ্যাপক ডা. বিমলাংশু দে, আয়াত এডুকেশনের চেয়ারম্যান তাহসিন আমান ও প্রধান পৃষ্টপোষক নুসরাত আমান।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম মাহবুবুল হক, ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মুর্শেদ আহমদ চৌধুরী, নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী প্রমুখ। আয়াত এডুকেশন, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ, নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল, আমেরিকার ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হাসপাতাল ও বোস্টনের সিমন্স কলেজ যৌথভাবে এই সেমিনারের আয়োজন করেছে।

এই সেমিনারের পাশাপাশি হাভার্ড ইউনির্ভাসিটির হাভার্ড মেডিকেল স্কুলের স্ত্রীরোগ ও প্রজনন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. একে গুডম্যান ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. বিমলাংশু দে সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে ক্যান্সার রোগী দেখবেন এবং কয়েকটি অপারেশন করবেন। স্থানীয় চিকিৎসকদের ক্যান্সার বিষয়ে আধুনিক জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষে তারা কাজ করবেন।

বৃহস্পতিবার উদ্বোধনী পর্বের পর ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে আয়োজকদের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হয়। এতে হাভার্ড ইউনির্ভাসিটির হাভার্ড মেডিকেল স্কুলের বিশেষজ্ঞ সেবিকা নিশা ওয়ালি, ডসনিন হেভার্ড ও এমিলি ক্যান্সার রোগীদের সেবা ও প্রশিক্ষনের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। আজ থেকে শুরু হওয়া মূল প্রশিক্ষণের পর অংশগ্রহণকারীরা দেশের অন্যান্য হাসপাতালের সেবিকাদের ক্যান্সার রোগীদের দেখাশোনার ব্যাপারে প্রশিক্ষণ দেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করবেন।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর