সিলেটের জাবেদের স্পিন ঘুর্ণিতে ইমার্জিং এশিয়া কাপে জিতলো বাংলাদেশ

0
38
sylpro24
sylpro24


নিজস্ব প্রতিবেদক:: ইমার্জিং এশিয়া কাপে নিজেদের দ্বিতীয়  ম্যাচে বড় ব্যবধানেই জিতেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে হংকংকে হারিয়ে এবার দ্বিতীয় ম্যাচে নেপাল এক প্রকার উড়িয়েই দিয়েছে বাংলাদেশ।

দলের এমন জয়ে বড় অবদানই রেখেছেন সিলেটের স্পিনার রাহাতুল ফেরদৌস জাবেদ। জাবেদের ঘুর্ণিতে দিশেহারা নেপালীরা ২৫৮ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে গুটিয়ে গেছে ১৭৪ রানে। জাবেদ একাই নিয়েছেন ৪টি উইকেট। বাদ যাননি সিলেটের আরেক বোলার রাজু। তিনি নিয়েছেন ২টি উইকেট। বাংলাদেশ জয় পায় ৮৩ রানে।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারিয়ে ভীষণ চাপে পড়ে বাংলাদেশ। তবে দলের বিপর্যয়ে হাল ধরেন মি. ফিনিশার খ্যাত নাসির হোসেন। নিউজিল্যান্ড, ভারত কিংবা শ্রীলংকা কোন সিরিজেই জাতীয় দলের স্কোয়াডে জায়গা হয়নি মি. ফিনিশার খ্যাত নাসির হোসেনের । তাই বলে কি হাত-পা গুটিয়ে বসে থাকার পাত্র নন নাসির । জাতীয় দলে ফিরার জন্য কতটা মুখিয়ে আছেন এই ক্রিকেটার তার প্রমাণ দিলেন দুঃসময়ে সেঞ্চুরির হাঁকিয়ে।

ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১ রানেই মাথায় সাজঘরে ফিরেন ওপেনার আজমীর । প্রথম ম্যাচে অর্ধশতকের দেখা পেলেও আজ রানের খাতায় ৭ রান যোগ করেই ফিরে যান সাইফ হাসানও । মোহাম্মদ মিথুন ফিরেন রানের খাতা খোলার আগেই। মিডল অর্ডারের শান্ত ফিরেন ব্যক্তিগত ৪ রানে। এরপর মুমিনুল-নাসিরের দ্বায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে রানের সংখ্যা তিনের কোটায় পৌঁছায় বাংলাদেশ

দলীয় ১১১ রানে ব্যক্তিগত ৬১ রানে বিদায় নেন মমিনুল। মমিনুল ফিরে গেলে আস্থার সঙ্গে খেলেন নাসির। আফিফ সাইফুদ্দিনের সঙ্গে ছোট ছোট জুটি গড়লে, রাজুর সঙ্গে গড়েন ৭৬ রানের জুটি। রাজু করেন ৩০ বলে ২৯ রান।

১১৫ বলে া১০৯ রান করে অপরাজিত ছিলেন নাসির। ১২টি চার আর একটি ছক্কায় সাজানো ছিলো তাঁর ইনিংসটি। নাসিরের শতক ছাড়াও মমিনুলের ৬১ এবং রাজুর ২৯ রানের উপর ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৫৭ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ।

নেপালের হয়ে অবিনাশ সর্বোচ্চ ৩টি এবং সন্দিপ ২টি উইকেট লাভ করেছেন।

২৫৮ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে নেপাল বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৪২.৩ ওভারে অলআউট হয় ১৭৪ রানে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫৬ রান করা ডিএস আইরিকে সাজঘরে পাঠান জাবেদ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪১ রান করা ডি নাথকে সরাসরি বোল্ড করে প্যভালিয়ানে ফেরত পাঠান জাবেদ। এছাড়া অন্য কেউ তেমন রান সংগ্রহ করতে পারেননি।

বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-২৩ দলের হয়ে জাবেদ ৪টি, সাইফুদ্দিন ৩টি ও রাজু ২টি উইকেট লাভ করেন।

মন্তব্য

মন্তব্য