আজঃ ১লা কার্তিক ১৪২৫ - ১৬ই অক্টোবর ২০১৮ - রাত ১২:২৯

সাহেল স্থায়ী বরখাস্ত : সিংচাপইড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদ শূন্য

Published: অক্টো ০১, ২০১৮ - ১২:০১ অপরাহ্ণ

ছাতক প্রতিনিধি :: ছাতক উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে আরেক ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলা, উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবরুদ্ধ করে ফেইসবুকে লাইভ সম্প্রচার করে সমালোচিত হওয়া ছাতকের সিংচাপইড় ইউনিয়নের সেই বিতর্কিত চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন সাহেলকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৫(২) ধারায় এক বিজ্ঞপ্তিতে সিংচাপইড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদটি শূন্য ঘোষণা করেছেন ছাতক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবেদা আফসারী।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১৭ মে হাওর রক্ষা বাধঁ নির্মাণ কাজের অতিরিক্ত বিল আদায়ের দাবিতে ছাতক উপজেলার তৎকালীন নির্বাহী অফিসার নাছির উল্লাহ খান ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাহাদাত হোসেনকে অবরুদ্ধ করে ৫০ মিনিট ফেইসবুক লাইভে গালিগালাজ করেন সাহাব উদ্দিন সাহেল।

এ ঘটনায় গত ১৫ জুলাই তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। পরবর্তীতে ১৭ জুলাই থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্ব পালন করেন ইউপি সদস্য মোফাজ্জল হোসেন। বর্তমানে স্থায়ী বহিস্কার হওয়ায় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকেও তার দ্বায়িত্ব ছাড়তে হলো।

এর আগে গত বছরের ১০ আগস্ট ছাতক উপজেলা পরিষদের সমন্বয়সভা শেষে উপজেলা চত্বরে আরেক ইউপি চেয়ারম্যান ও ছাতক উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল আহমদসহ কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতার উপর অতর্কিত হামলা চালান ইউপি চেয়ারম্যান সাহেল ও তার লোকজন।

এ ঘটনায় গত ১৩ আগস্ট দ্রুত বিচার আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ। গত ৫ সেপ্টেম্বর ওই মামলায় সাহাব উদ্দিন সাহেলকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

Facebook Comments

ছাতক প্রতিনিধি :: ছাতক উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে আরেক ইউপি চেয়ারম্যানের উপর হামলা, উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবরুদ্ধ করে ফেইসবুকে লাইভ সম্প্রচার করে সমালোচিত হওয়া ছাতকের সিংচাপইড় ইউনিয়নের সেই বিতর্কিত চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন সাহেলকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৫(২) ধারায় এক বিজ্ঞপ্তিতে সিংচাপইড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদটি শূন্য ঘোষণা করেছেন ছাতক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবেদা আফসারী।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১৭ মে হাওর রক্ষা বাধঁ নির্মাণ কাজের অতিরিক্ত বিল আদায়ের দাবিতে ছাতক উপজেলার তৎকালীন নির্বাহী অফিসার নাছির উল্লাহ খান ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী সাহাদাত হোসেনকে অবরুদ্ধ করে ৫০ মিনিট ফেইসবুক লাইভে গালিগালাজ করেন সাহাব উদ্দিন সাহেল।

এ ঘটনায় গত ১৫ জুলাই তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। পরবর্তীতে ১৭ জুলাই থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্ব পালন করেন ইউপি সদস্য মোফাজ্জল হোসেন। বর্তমানে স্থায়ী বহিস্কার হওয়ায় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকেও তার দ্বায়িত্ব ছাড়তে হলো।

এর আগে গত বছরের ১০ আগস্ট ছাতক উপজেলা পরিষদের সমন্বয়সভা শেষে উপজেলা চত্বরে আরেক ইউপি চেয়ারম্যান ও ছাতক উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বিল্লাল আহমদসহ কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতার উপর অতর্কিত হামলা চালান ইউপি চেয়ারম্যান সাহেল ও তার লোকজন।

এ ঘটনায় গত ১৩ আগস্ট দ্রুত বিচার আইনে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ। গত ৫ সেপ্টেম্বর ওই মামলায় সাহাব উদ্দিন সাহেলকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর