আজঃ ৪ঠা পৌষ ১৪২৫ - ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪১

সপ্তাহখানেক হাসপাতালে থাকতে হবে জাফর ইকবালকে

Published: মার্চ ০৫, ২০১৮ - ৮:১৮ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক:: জনপ্রিয় এই লেখক বর্তমানে ঢাকা সিএমএইচে ভর্তি আছেন। তিনি আশঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকরা আগেই জানিয়েছিলেন।

জাফর ইকবালের স্ত্রী ইয়াসমিন হক সোমবার শাহবাগে একটি বিক্ষোভ সমাবেশে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, “ছয় দিন মে বি ওরা রাখবে, যাতে কোনো ইনফেকশন না হয়। আমার যেটা ধারণা, আরেক সপ্তাহ তো লাগবেই। তারপরে যত তাড়াতাড়ি ভালো হয়, আসবে।

“প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ফোর্স রেস্ট। আমি বলেছি, যতদিন রাখা দরকার রাখেন। এক্সট্রা রাখলে অসুবিধা কী? ফোর্স রেস্ট বেস্ট হবে, রেস্ট একদমই করে না।”

সোমবার দুপুরেই সিএমএইচে গিয়ে জাফর ইকবালকে দেখে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নেওয়ায় ‘সত্যিকারে অভিভূত’ বলে জানান ইয়াসমিন।

শনিবার সিলেটে নিজের ক্যাম্পাস শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের মধ্যে জাফর ইকবালের উপর ছুরি নিয়ে হামলা করে ফয়জুল হাসান নামে এক যুবক। তিনি জঙ্গিবাদে প্ররোচিত বলে পুলিশের ধারণা।

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে উচ্চকণ্ঠ জাফর ইকবালের উপর হামলার পর প্রতিবাদের ঝড় চলছে সারাদেশে।

সোমবার বিকালে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের এমনই এক কর্মসূচিতে যোগ দেন বিশ্ববিদ্যালয়টির পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ইয়াসমিন হক।

সমাবেশস্থলে এসে অধ্যাপক জাফর ইকবালের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর এবং পরবর্তীতে সারাদেশে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ নিয়ে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন ইয়াসমিন।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে তারা আর কোনো বাড়তি নিরাপত্তা চান না বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, “যতটুকু করা সম্ভব করা হইছে, তাই না? আমরা এর বেশি কিছু চাই না। ১০-১২ জন পুলিশ যদি পেছনে হাঁটে, একটা গাড়ি যদি পেছন থেকে ফলো করে, এটা ডিস্টার্বিং হবে।

“জাফর ইকবাল কিন্তু আগেও বলেছে, ‘এগুলো বন্ধ করেন, আমার ভালো লাগে না’। আমাকে একবার বলেছে, ‘আমি কী করেছি যে আমাকে এমন বন্দি জীবন যাপন করতে হচ্ছে’।”

আগেও অনেক হুমকি আসার প্রসঙ্গ টেনে ইয়াসমিন বলেন, “আমরা তখনও সরকারের কাছে কিছু চাই নাই। এখন পর্যন্ত আমরা যা পেয়েছি, তার চেয়ে বেশি কিছু করা সম্ভব না। এখানে পুলিশ, ওখানে পুলিশ, রাস্তায় পুলিশ, বাসায় পুলিশ… এর বেশি কিছু আমি চাইতে পারি না।”

বিভাগে অধ্যাপক জাফর ইকবালের পাঁচটা কোর্স চলমান আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “সে যাতে ক্যাম্পাসে ফিরে যেতে পারে, সেখানকার স্বাভাবিক জীবন।”

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক:: জনপ্রিয় এই লেখক বর্তমানে ঢাকা সিএমএইচে ভর্তি আছেন। তিনি আশঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকরা আগেই জানিয়েছিলেন।

জাফর ইকবালের স্ত্রী ইয়াসমিন হক সোমবার শাহবাগে একটি বিক্ষোভ সমাবেশে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, “ছয় দিন মে বি ওরা রাখবে, যাতে কোনো ইনফেকশন না হয়। আমার যেটা ধারণা, আরেক সপ্তাহ তো লাগবেই। তারপরে যত তাড়াতাড়ি ভালো হয়, আসবে।

“প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ফোর্স রেস্ট। আমি বলেছি, যতদিন রাখা দরকার রাখেন। এক্সট্রা রাখলে অসুবিধা কী? ফোর্স রেস্ট বেস্ট হবে, রেস্ট একদমই করে না।”

সোমবার দুপুরেই সিএমএইচে গিয়ে জাফর ইকবালকে দেখে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নেওয়ায় ‘সত্যিকারে অভিভূত’ বলে জানান ইয়াসমিন।

শনিবার সিলেটে নিজের ক্যাম্পাস শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের মধ্যে জাফর ইকবালের উপর ছুরি নিয়ে হামলা করে ফয়জুল হাসান নামে এক যুবক। তিনি জঙ্গিবাদে প্ররোচিত বলে পুলিশের ধারণা।

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে উচ্চকণ্ঠ জাফর ইকবালের উপর হামলার পর প্রতিবাদের ঝড় চলছে সারাদেশে।

সোমবার বিকালে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের এমনই এক কর্মসূচিতে যোগ দেন বিশ্ববিদ্যালয়টির পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ইয়াসমিন হক।

সমাবেশস্থলে এসে অধ্যাপক জাফর ইকবালের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর এবং পরবর্তীতে সারাদেশে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ নিয়ে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন ইয়াসমিন।

হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে তারা আর কোনো বাড়তি নিরাপত্তা চান না বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, “যতটুকু করা সম্ভব করা হইছে, তাই না? আমরা এর বেশি কিছু চাই না। ১০-১২ জন পুলিশ যদি পেছনে হাঁটে, একটা গাড়ি যদি পেছন থেকে ফলো করে, এটা ডিস্টার্বিং হবে।

“জাফর ইকবাল কিন্তু আগেও বলেছে, ‘এগুলো বন্ধ করেন, আমার ভালো লাগে না’। আমাকে একবার বলেছে, ‘আমি কী করেছি যে আমাকে এমন বন্দি জীবন যাপন করতে হচ্ছে’।”

আগেও অনেক হুমকি আসার প্রসঙ্গ টেনে ইয়াসমিন বলেন, “আমরা তখনও সরকারের কাছে কিছু চাই নাই। এখন পর্যন্ত আমরা যা পেয়েছি, তার চেয়ে বেশি কিছু করা সম্ভব না। এখানে পুলিশ, ওখানে পুলিশ, রাস্তায় পুলিশ, বাসায় পুলিশ… এর বেশি কিছু আমি চাইতে পারি না।”

বিভাগে অধ্যাপক জাফর ইকবালের পাঁচটা কোর্স চলমান আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “সে যাতে ক্যাম্পাসে ফিরে যেতে পারে, সেখানকার স্বাভাবিক জীবন।”

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর