আজঃ ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪৭

লাখ লাখ মানুষ গ্রেফতার হলে ১ হাজারের তালিকা কেন : নওফেল

Published: নভে ১৩, ২০১৮ - ৪:৪৪ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন :: বিএনপি লাখ লাখ রাজনৈতিক মামলার অভিযোগ তুলছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বিভ্রান্ত করতে। তাদের অভিযোগ সত্য নয়, তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে মাত্র ১ হাজার ২০ জনের তালিকা দিয়েছে, তাহলে বাকিরা কোথায়। সোমবার রাতে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের এক আলোচনায় তিনি একথা বলেন।

ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুলী নওফেল বলেন, বিএনপি আগে থেকেই ভেতরে-ভেতরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলো। তাই নির্বাচনে আসার ঘোষণা দেয়ার সাথেই তারা প্রস্তুত। আর সময় ক্ষেপণের জন্যই নির্বাচন পেছানোর দাবি জানিয়ে আসছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরাই বাংলাদেশে প্রথম বিদেশি পর্যবেক্ষক আনার দাবি জানাই। এখন আমাদের দেশ আগের মতো নেই আমরা উন্নত হয়েছি, নিজেদের উপর নির্ভরতা অর্জন করেছি। বিদেশিরা অনুমোদন না দিলে আমরা রাজনীতি করবো না, এখন বাংলাদেশ সেই অবস্থানে নেই।

তিনি বলেন, জানুয়ারিতে নির্বাচনে না করার বিষয়ে কমিশন অনেকগুলো কারণ দেখিয়েছে, যেমন, পরীক্ষা, বিশ্ব ইজতেমা ইত্যাদি। এগুলো নির্বাচন কমিশনের ব্যাপার এখানে সরকারের কোনো বিষয় নেই। নির্বাচন কমিশনে সরকার হস্তক্ষেপ করে না।

তিনি জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাচনী পর্যবেক্ষক পাঠাতে তাদের ১ বছর সময় লাগে। ১ বছর আগে থেকে প্রস্তুতি নিতে হয়। প্রস্তুতি না থাকায় ইউরোপিয় ইউনিয়ন বাংলাদেশের একাদশ সংসদ নির্বাচনে পর্যবেক্ষক পাঠাতে পারবেনা বলে কিছুদিন আগে জানিয়েছে। এখন বিএনপির কথামতো ইউরোপিয় ইউনিয়ন নির্বাচনে পর্যবেক্ষক পাঠাতে পারছেনা বলে আমরা নির্বাচন না করে বসে থাকবো এমন অবস্থায় বাংলাদেশ এখন নেই। বাংলাদেশ এখন আগের থেকে অনেক এগিয়ে গেছে। সুত্র: ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশন

সিলেট প্রতিদিন/১৩ নভেম্বর ২০১৮/জেকে

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন :: বিএনপি লাখ লাখ রাজনৈতিক মামলার অভিযোগ তুলছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বিভ্রান্ত করতে। তাদের অভিযোগ সত্য নয়, তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে মাত্র ১ হাজার ২০ জনের তালিকা দিয়েছে, তাহলে বাকিরা কোথায়। সোমবার রাতে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের এক আলোচনায় তিনি একথা বলেন।

ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুলী নওফেল বলেন, বিএনপি আগে থেকেই ভেতরে-ভেতরে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছিলো। তাই নির্বাচনে আসার ঘোষণা দেয়ার সাথেই তারা প্রস্তুত। আর সময় ক্ষেপণের জন্যই নির্বাচন পেছানোর দাবি জানিয়ে আসছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরাই বাংলাদেশে প্রথম বিদেশি পর্যবেক্ষক আনার দাবি জানাই। এখন আমাদের দেশ আগের মতো নেই আমরা উন্নত হয়েছি, নিজেদের উপর নির্ভরতা অর্জন করেছি। বিদেশিরা অনুমোদন না দিলে আমরা রাজনীতি করবো না, এখন বাংলাদেশ সেই অবস্থানে নেই।

তিনি বলেন, জানুয়ারিতে নির্বাচনে না করার বিষয়ে কমিশন অনেকগুলো কারণ দেখিয়েছে, যেমন, পরীক্ষা, বিশ্ব ইজতেমা ইত্যাদি। এগুলো নির্বাচন কমিশনের ব্যাপার এখানে সরকারের কোনো বিষয় নেই। নির্বাচন কমিশনে সরকার হস্তক্ষেপ করে না।

তিনি জানান, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাচনী পর্যবেক্ষক পাঠাতে তাদের ১ বছর সময় লাগে। ১ বছর আগে থেকে প্রস্তুতি নিতে হয়। প্রস্তুতি না থাকায় ইউরোপিয় ইউনিয়ন বাংলাদেশের একাদশ সংসদ নির্বাচনে পর্যবেক্ষক পাঠাতে পারবেনা বলে কিছুদিন আগে জানিয়েছে। এখন বিএনপির কথামতো ইউরোপিয় ইউনিয়ন নির্বাচনে পর্যবেক্ষক পাঠাতে পারছেনা বলে আমরা নির্বাচন না করে বসে থাকবো এমন অবস্থায় বাংলাদেশ এখন নেই। বাংলাদেশ এখন আগের থেকে অনেক এগিয়ে গেছে। সুত্র: ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশন

সিলেট প্রতিদিন/১৩ নভেম্বর ২০১৮/জেকে

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর