আজঃ ৫ই পৌষ ১৪২৫ - ১৯শে ডিসেম্বর ২০১৮ - দুপুর ২:৪৪

রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ৩ দিনের শোক কর্মসূচী

Published: মার্চ ১২, ২০১৮ - ৮:৩৯ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেপালে বিমান বিধ্বস্ত হয়ে সিলেটের জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ শিক্ষার্থী হতাহতের ঘটনায় ৩ দিনের শোক কর্মসূচী ঘোষণা করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আবেদ হোসেন বলেন, এ দুর্ঘটনায় কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সকলেই শোকাহত। আমরা কলেজের পক্ষ থেকে ৩ দিনের শোক কর্মসূচী ঘোষণা করেছি।

এর অংশ হিসেবে মঙ্গলবার ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। তিনদিন কলেজের পতাকা অর্ধনিমিত রাখা হবে ও কালো ব্যাজ ধারণ করা হবে।

তিনি জানান, রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজে প্রায় ২৫০ নেপালী শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করে। এদের মধ্যে ১৩ জন পরীক্ষা শেষে সোমবার বাড়ি যাচ্ছিলো। এদের সকলেই মারা গেছে বলে বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে জানান অধ্যক্ষ।

বিধস্ত হওয়া বিমানে যাত্রী ছিলেন রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী- সঞ্জয় পৌডেল, সঞ্জয়া মহারজন, নেগা মহারজন, অঞ্জলি শ্রেষ্ঠ, পূর্নিমা লোহানি, শ্রেতা থাপা, মিলি মহারজন, শর্মা শ্রেষ্ঠ, আলজিরা বারাল, চুরু বারাল, শামিরা বেনজারখার, আশ্রা শখিয়া ও প্রিঞ্চি ধনি।

১৯তম ব্যাচের এই শিক্ষার্থীরা ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে ছুটিতে নিজেদের দেশে বেড়াতে গিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১২ মার্চ) দেশটির নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়। বিমান বিধ্বস্তের এ ঘটনায় ৫০জন প্রাণহানির খবর নিশ্চিত করেছে দেশটির গণমাধ্যম।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: নেপালে বিমান বিধ্বস্ত হয়ে সিলেটের জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ শিক্ষার্থী হতাহতের ঘটনায় ৩ দিনের শোক কর্মসূচী ঘোষণা করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আবেদ হোসেন বলেন, এ দুর্ঘটনায় কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সকলেই শোকাহত। আমরা কলেজের পক্ষ থেকে ৩ দিনের শোক কর্মসূচী ঘোষণা করেছি।

এর অংশ হিসেবে মঙ্গলবার ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ থাকবে। তিনদিন কলেজের পতাকা অর্ধনিমিত রাখা হবে ও কালো ব্যাজ ধারণ করা হবে।

তিনি জানান, রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজে প্রায় ২৫০ নেপালী শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করে। এদের মধ্যে ১৩ জন পরীক্ষা শেষে সোমবার বাড়ি যাচ্ছিলো। এদের সকলেই মারা গেছে বলে বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে জানান অধ্যক্ষ।

বিধস্ত হওয়া বিমানে যাত্রী ছিলেন রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী- সঞ্জয় পৌডেল, সঞ্জয়া মহারজন, নেগা মহারজন, অঞ্জলি শ্রেষ্ঠ, পূর্নিমা লোহানি, শ্রেতা থাপা, মিলি মহারজন, শর্মা শ্রেষ্ঠ, আলজিরা বারাল, চুরু বারাল, শামিরা বেনজারখার, আশ্রা শখিয়া ও প্রিঞ্চি ধনি।

১৯তম ব্যাচের এই শিক্ষার্থীরা ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে ছুটিতে নিজেদের দেশে বেড়াতে গিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১২ মার্চ) দেশটির নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হয়। বিমান বিধ্বস্তের এ ঘটনায় ৫০জন প্রাণহানির খবর নিশ্চিত করেছে দেশটির গণমাধ্যম।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর