আজঃ ১১ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - রাত ৯:৪৫

যারা জীবনে ছাত্রলীগ করেনি, যুবলীগ করেনি, আওয়ামী লীগ করেনি, তাদের কাউকে মনোনয়ন দেবেন না…

Published: মার্চ ০৮, ২০১৭ - ৩:৪২ অপরাহ্ণ

sylpro24sylpro24

জীবনে আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ-যুবলীগ করেনি এমন কাউকে আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন না দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।  এই দাবিতে সোচ্চার হওয়ার জন্য তিনি দলের সবাইকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।ঐতিহাসিক সাতই মার্চ উপলক্ষে মঙ্গলবার নগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন সাবেক মেয়র ও নগর কমিটির সভাপতি মহিউদ্দিন।  এসময় সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনও উপস্থিত ছিলেন।

মহিউদ্দিন বলেন, অনেক বর্ণচোরা যারা আওয়ামী লীগ ও স্বাধীনতার আদর্শে বিশ্বাস করে না, তারা বিভিন্ন কলাকৌশলে দলের নমিনেশন নিয়ে ফেলেছে।  এমপি হয়ে অথবা ক্ষমতার কাছাকাছি থেকে তারা দলের আদর্শবিরোধী কাজ করছে।

‘আমি বাঁশের লাঠি বানিয়েছি।  বর্ণচোরারা যদি আগামীতে আবার দলের নমিনেশন নেয়ার চেষ্টা করে তাদের প্রতিহত করার কাজে এই লাঠি ব্যবহার করা হবে। ’

‘যারা জীবনে ছাত্রলীগ করেনি, যুবলীগ করেনি, আওয়ামী লীগ করেনি, তাদের কাউকে মনোনয়ন দেবেন না।  আমি কেন্দ্রের কাছে অনুরোধ করছি।  নেতাকর্মীদেরও সোচ্চার হওয়ার আহ্বান ‍জানাচ্ছি। ’

নৌ পরিবহন মন্ত্রীর সমালোচনা করে মহিউদ্দিন বলেন, ১৯৭৩ সালে শাজাহান খান গণবাহিনী গঠন করে রাষ্ট্রব্যবস্থাকে অস্থিতিশীল করে রেখেছিল।  তিনি আওয়ামী লীগে এসেছেন।  আমাদের নেত্রী তাকে ক্ষমা করে দিয়েছেন, নমিনেশন দিয়েছেন।  তিনি এমপি হয়েছেন, মন্ত্রী হয়েছেন।  কিন্তু শাজাহান খান সরকারে থেকেও অতীতের চরিত্র মুছে ফেলতে পারেননি।

সাম্প্রতিক পরিবহন ধর্মঘটের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকারে থেকেও শাজাহান খান হরতাল-অবরোধ ডেকে জনগণকে জিম্মি করেছিল।  সেদিন যারা পথে পথে গাড়িতে বাধা দিয়েছে, তারা কেউ পরিবহন শ্রমিক নয়।  তারা বিএনপি-জামায়াতের কর্মী।

বন্দর-পতেঙ্গা আসনের সাংসদ এম এ লতিফের নাম উচ্চারণ না করে মহিউদ্দিন বলেন, পতেঙ্গা এলাকার সাংসদ, সে কি করছে, আপনারা নিশ্চয় জানেন।  আমরা লোকমুখে শুনছি ইয়াবার ব্যবসা করে, বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপের সঙ্গে লিপ্ত।

মহিউদ্দিন আবারও বলেন, জীবনে যারা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ করেনি তাদের কাউকে দয়া করে মনোনয়ন দেবেন না।  আওয়ামী লীগকে আর কাউকে টাকা বানানোর হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার হতে দেব না।

নৌকার পক্ষে প্রচারণায় এখন থেকেই মাঠে নামার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মহিউদ্দিন।

একই আলোচনা সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন নেতাকর্মীদের আদর্শের রাজনীতি চর্চার আহ্বান জানান।  একইভাবে জনগণের মন জয় করে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে জেতানোর জন্য এখন থেকেই কাজ শুরু করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, কর্মীদের জনবান্ধব হতে হবে।  যারা এমপি-মন্ত্রী হয়ে জনবিরাধী কাজ করছে, তাদের দল থেকে দূরে সরিয়ে দিতে হবে।

‘দল বের হচ্ছে, দলের নাম দিয়ে লীগ বের হচ্ছে।  এত লীগ কোত্থেকে আসে, এদের তো আমরা চিনি না।  লীগের নাম ব্যবহার করে অচেনা লোকদের অচেনা কার্যক্রম প্রতিহত করতে হবে। ’ বলেন সুজন

নগরীর লালদীঘির পাড়ে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে নগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরেণ্য শিক্ষাবিদ ও প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.অনুপম সেন

Facebook Comments

জীবনে আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ-যুবলীগ করেনি এমন কাউকে আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন না দেয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।  এই দাবিতে সোচ্চার হওয়ার জন্য তিনি দলের সবাইকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।ঐতিহাসিক সাতই মার্চ উপলক্ষে মঙ্গলবার নগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন সাবেক মেয়র ও নগর কমিটির সভাপতি মহিউদ্দিন।  এসময় সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনও উপস্থিত ছিলেন।

মহিউদ্দিন বলেন, অনেক বর্ণচোরা যারা আওয়ামী লীগ ও স্বাধীনতার আদর্শে বিশ্বাস করে না, তারা বিভিন্ন কলাকৌশলে দলের নমিনেশন নিয়ে ফেলেছে।  এমপি হয়ে অথবা ক্ষমতার কাছাকাছি থেকে তারা দলের আদর্শবিরোধী কাজ করছে।

‘আমি বাঁশের লাঠি বানিয়েছি।  বর্ণচোরারা যদি আগামীতে আবার দলের নমিনেশন নেয়ার চেষ্টা করে তাদের প্রতিহত করার কাজে এই লাঠি ব্যবহার করা হবে। ’

‘যারা জীবনে ছাত্রলীগ করেনি, যুবলীগ করেনি, আওয়ামী লীগ করেনি, তাদের কাউকে মনোনয়ন দেবেন না।  আমি কেন্দ্রের কাছে অনুরোধ করছি।  নেতাকর্মীদেরও সোচ্চার হওয়ার আহ্বান ‍জানাচ্ছি। ’

নৌ পরিবহন মন্ত্রীর সমালোচনা করে মহিউদ্দিন বলেন, ১৯৭৩ সালে শাজাহান খান গণবাহিনী গঠন করে রাষ্ট্রব্যবস্থাকে অস্থিতিশীল করে রেখেছিল।  তিনি আওয়ামী লীগে এসেছেন।  আমাদের নেত্রী তাকে ক্ষমা করে দিয়েছেন, নমিনেশন দিয়েছেন।  তিনি এমপি হয়েছেন, মন্ত্রী হয়েছেন।  কিন্তু শাজাহান খান সরকারে থেকেও অতীতের চরিত্র মুছে ফেলতে পারেননি।

সাম্প্রতিক পরিবহন ধর্মঘটের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকারে থেকেও শাজাহান খান হরতাল-অবরোধ ডেকে জনগণকে জিম্মি করেছিল।  সেদিন যারা পথে পথে গাড়িতে বাধা দিয়েছে, তারা কেউ পরিবহন শ্রমিক নয়।  তারা বিএনপি-জামায়াতের কর্মী।

বন্দর-পতেঙ্গা আসনের সাংসদ এম এ লতিফের নাম উচ্চারণ না করে মহিউদ্দিন বলেন, পতেঙ্গা এলাকার সাংসদ, সে কি করছে, আপনারা নিশ্চয় জানেন।  আমরা লোকমুখে শুনছি ইয়াবার ব্যবসা করে, বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপের সঙ্গে লিপ্ত।

মহিউদ্দিন আবারও বলেন, জীবনে যারা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ করেনি তাদের কাউকে দয়া করে মনোনয়ন দেবেন না।  আওয়ামী লীগকে আর কাউকে টাকা বানানোর হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার হতে দেব না।

নৌকার পক্ষে প্রচারণায় এখন থেকেই মাঠে নামার জন্য নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মহিউদ্দিন।

একই আলোচনা সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন নেতাকর্মীদের আদর্শের রাজনীতি চর্চার আহ্বান জানান।  একইভাবে জনগণের মন জয় করে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে জেতানোর জন্য এখন থেকেই কাজ শুরু করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন বলেন, কর্মীদের জনবান্ধব হতে হবে।  যারা এমপি-মন্ত্রী হয়ে জনবিরাধী কাজ করছে, তাদের দল থেকে দূরে সরিয়ে দিতে হবে।

‘দল বের হচ্ছে, দলের নাম দিয়ে লীগ বের হচ্ছে।  এত লীগ কোত্থেকে আসে, এদের তো আমরা চিনি না।  লীগের নাম ব্যবহার করে অচেনা লোকদের অচেনা কার্যক্রম প্রতিহত করতে হবে। ’ বলেন সুজন

নগরীর লালদীঘির পাড়ে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে নগর আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরেণ্য শিক্ষাবিদ ও প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.অনুপম সেন

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর