আজঃ ৪ঠা পৌষ ১৪২৫ - ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪০

মোমেনার জঙ্গি কানেকশনের খোঁজে অষ্টেলিয়া পুলিশ বাংলাদেশে

Published: মার্চ ০২, ২০১৮ - ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক::সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে হামলাকারী বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মোমেনা সোমার জঙ্গি কানেকশনের খোঁজে বাংলাদেশে এসেছে অস্ট্রেলিয়ান পুলিশের তিন সদস্যের একটি দল। ওই দলটি বৃহস্পতিবার দিনভর কাউন্টার টোরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট কর্মকর্তাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করে। তারা সিটিটিসির কাছে জানতে চেয়েছে, আইএসের সঙ্গে মোমেনার কোনো সম্পর্ক আছে কিনা। জবাবে সিটিটিসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বাংলাদেশের কোনো জঙ্গির সঙ্গে আইএসের কানেকশন নেই। তারা সেলফমেইড জঙ্গি। সিটিটিসির সংশ্লিষ্ট সূত্র যুগান্তরকে এসব তথ্য জানিয়েছে।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করে গ্রেফতার হন মোমেনা। এর সূত্র ধরে মোমেনাদের মিরপুরের বাসায় গেলে তার ছোট বোন আসমাউল হোসনা এক পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলা করেন। পরে আসমাউল হোসনাকে গ্রেফতার করেন সিটিটিসির সদস্যরা। সিটিটিসি সূত্র জানায়, জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে ২০১৫ সালে তুরস্ক হয়ে সিরিয়া যেতে চেয়েছিলেন মামেনা সোমা। তুরস্কের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ভর্তিও হয়েছিলেন। কিন্তু ভিসা না পাওয়ায় তখন তুরস্ক যাওয়া হয়নি। জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে সিরিয়ায় গিয়ে ফিরে আসা গাজী কামরুস সালাম এবং সিরিয়ায় গিয়ে নিরুদ্দেশ হওয়া মেরিন ইঞ্জিনিয়ার নজিবুল্লাহ আনসারীর সঙ্গেও মোমেনা সোমার যোগাযোগ ছিল। নজিবুল্লাহ আনসারীর সঙ্গে তার বিয়ের কথা হয়েছিল। এর ঘটক ছিলেন রাজধানীর লেকহেট গ্রামার স্কুলের এক শিক্ষক। কিন্তু নজিবুল্লাহর পরিবার না চাওয়ায় সেই বিয়ে হয়নি।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক::সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে হামলাকারী বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মোমেনা সোমার জঙ্গি কানেকশনের খোঁজে বাংলাদেশে এসেছে অস্ট্রেলিয়ান পুলিশের তিন সদস্যের একটি দল। ওই দলটি বৃহস্পতিবার দিনভর কাউন্টার টোরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট কর্মকর্তাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করে। তারা সিটিটিসির কাছে জানতে চেয়েছে, আইএসের সঙ্গে মোমেনার কোনো সম্পর্ক আছে কিনা। জবাবে সিটিটিসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বাংলাদেশের কোনো জঙ্গির সঙ্গে আইএসের কানেকশন নেই। তারা সেলফমেইড জঙ্গি। সিটিটিসির সংশ্লিষ্ট সূত্র যুগান্তরকে এসব তথ্য জানিয়েছে।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ায় এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করে গ্রেফতার হন মোমেনা। এর সূত্র ধরে মোমেনাদের মিরপুরের বাসায় গেলে তার ছোট বোন আসমাউল হোসনা এক পুলিশ কর্মকর্তার ওপর হামলা করেন। পরে আসমাউল হোসনাকে গ্রেফতার করেন সিটিটিসির সদস্যরা। সিটিটিসি সূত্র জানায়, জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে ২০১৫ সালে তুরস্ক হয়ে সিরিয়া যেতে চেয়েছিলেন মামেনা সোমা। তুরস্কের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ভর্তিও হয়েছিলেন। কিন্তু ভিসা না পাওয়ায় তখন তুরস্ক যাওয়া হয়নি। জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে সিরিয়ায় গিয়ে ফিরে আসা গাজী কামরুস সালাম এবং সিরিয়ায় গিয়ে নিরুদ্দেশ হওয়া মেরিন ইঞ্জিনিয়ার নজিবুল্লাহ আনসারীর সঙ্গেও মোমেনা সোমার যোগাযোগ ছিল। নজিবুল্লাহ আনসারীর সঙ্গে তার বিয়ের কথা হয়েছিল। এর ঘটক ছিলেন রাজধানীর লেকহেট গ্রামার স্কুলের এক শিক্ষক। কিন্তু নজিবুল্লাহর পরিবার না চাওয়ায় সেই বিয়ে হয়নি।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর