আজঃ ২রা কার্তিক ১৪২৫ - ১৭ই অক্টোবর ২০১৮ - সন্ধ্যা ৭:০২

‘মদ্যপানের পর বদলে যেতেন অলোক নাথ’

Published: অক্টো ১৩, ২০১৮ - ২:৫৩ অপরাহ্ণ

বিনোদন ডেস্ক :: বিনতা নন্দা, নবনীত নিশান, সন্ধ্যা মৃদুলের পর ‘সংস্কারি বাবুজি’ অলোক নাথের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ যেন থামছেই না। এবার অলোক নাথের চরিত্র আর তাঁর আচরণ নিয়ে কথা বলেছেন চলচ্চিত্র আর ছোট পর্দায় তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী রেণুকা সাহানে, হিমানি শিবপুরী ও দীপিকা আমিন। পর্দায় একাধিকবার অলোক নাথের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন রেণুকা সাহানে। অলোক নাথের ব্যাপারে তাঁর অভিযোগ, ‘পেটে মদ পড়লেই মেয়েদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়তেন তিনি।’

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে হিমানি শিবপুরী বলেছেন, ‘অলোক নাথের মধ্যে “ডক্টর জেকিল” আর “মিস্টার হাইড” পারসোনালিটি একসঙ্গে কাজ করে। মদ পেটে পড়লেই অলোক নাথ অন্য মানুষ। মুহূর্তেই একেবারে বদলে যান।’ আপনি নিজে কখনো যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছিলেন? হিমানী শিবপুরী বলেন, ‘উপযুক্ত সময় এলে সব জানাব। যাঁদের ব্যাপারে বলব, তাঁরা সবাই এখনো বেঁচে আছেন। আমার কেরিয়ারের শুরুতেও এমন ঘটনা ঘটেছিল।’

“রেণুকা সাহানে”রেণুকা সাহানে অলোক নাথের সঙ্গে চলচ্চিত্র, টিভি সিরিয়াল আর মঞ্চে কাজ করেছেন দীপিকা আমিন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অলোক নাথের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তিনি। বললেন, ‘অলোক নাথ খুবই বিরক্তিকর মানুষ। মদ্যপ অবস্থায় তিনি যেকোনো মেয়েকে যৌন হেনস্তা করতে দ্বিতীয়বার ভাবেন না। কয়েক বছর আগে একটি টেলিফিল্মের শুটিংয়ের সময় অলোক নাথ জোর করে তাঁর ঘরে ঢুকে পড়েন। ওই সময় তিনি মদ্যপ ছিলেন আর কুৎসিত ব্যবহার করেছেন। ইউনিটের লোকজনের সহায়তায় সেদিন রক্ষা পাই।’

হিমানি শিবপুরী পিটিআইকে আরও বলেন, ‘আইটিএ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য একবার আমরা দুবাই যাচ্ছি। ফ্লাইটেই অলোক নাথ মদ্যপান করেন। এরপর তাঁর আচরণ পাল্টে যায়। ফ্লাইটে খোলা স্থানে প্রস্রাব করেন। পাশাপাশি অন্যদের সঙ্গেও খুবই দুর্ব্যবহার করেন। এসব ঝামেলার জন্য পরে ফ্লাইট থেকে তাঁকে নামিয়ে দেওয়া হয়। এই সময় তাঁর স্ত্রীও সঙ্গে ছিলেন। স্বামীর আচরণে তিনি নিজেও খুব বিব্রত হয়েছিলেন। ওঁর ব্যবহারে আমি বিরক্ত হয়েছিলাম।’

হিমানি শিবপুরী তনুশ্রী দত্ত আর বিনতা নন্দার প্রশংসা করে হিমানি শিবপুরী বলেন, ‘তনুশ্রী ও বিনতা এত দিন পরে হলেও মুখ খুলেছেন, এটা প্রশংসনীয়। আসলে নারীরা সহজে লক্ষ্য হয়ে যান। কারণ, সমাজ সহজেই তাঁদের দিকে আঙুল তোলে।’

বলিউডের বয়োজ্যেষ্ঠ অভিনেতা অলোক নাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ছোট পর্দার স্ক্রিপ্ট রাইটার, পরিচালক ও প্রযোজক বিনতা নন্দা জানিয়েছেন, ১৯ বছর আগে অলোক নাথ তাঁকে ধর্ষণ করেছেন। এবার এই অভিযোগ প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন অভিনেতা অলোক নাথ। ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার না করলেও বিষয়টি সরাসরি নিজের কাঁধেও নিচ্ছেন না তিনি। এ অভিযোগ প্রসঙ্গে অলোক নাথ বলেন, ‘নারীরা দুর্বল বলে লোকে কেবল তাঁদের কথাই শোনে।’

দীপিকা আমিন ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে সিনে অ্যান্ড টিভি আর্টিস্টস অ্যাসোসিয়েশনের (সিনটা) নির্বাহী সদস্য সুশান্ত সিং জানিয়েছেন, এরই মধ্যে অলোক নাথকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

Facebook Comments

বিনোদন ডেস্ক :: বিনতা নন্দা, নবনীত নিশান, সন্ধ্যা মৃদুলের পর ‘সংস্কারি বাবুজি’ অলোক নাথের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ যেন থামছেই না। এবার অলোক নাথের চরিত্র আর তাঁর আচরণ নিয়ে কথা বলেছেন চলচ্চিত্র আর ছোট পর্দায় তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী রেণুকা সাহানে, হিমানি শিবপুরী ও দীপিকা আমিন। পর্দায় একাধিকবার অলোক নাথের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন রেণুকা সাহানে। অলোক নাথের ব্যাপারে তাঁর অভিযোগ, ‘পেটে মদ পড়লেই মেয়েদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়তেন তিনি।’

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে হিমানি শিবপুরী বলেছেন, ‘অলোক নাথের মধ্যে “ডক্টর জেকিল” আর “মিস্টার হাইড” পারসোনালিটি একসঙ্গে কাজ করে। মদ পেটে পড়লেই অলোক নাথ অন্য মানুষ। মুহূর্তেই একেবারে বদলে যান।’ আপনি নিজে কখনো যৌন হেনস্তার শিকার হয়েছিলেন? হিমানী শিবপুরী বলেন, ‘উপযুক্ত সময় এলে সব জানাব। যাঁদের ব্যাপারে বলব, তাঁরা সবাই এখনো বেঁচে আছেন। আমার কেরিয়ারের শুরুতেও এমন ঘটনা ঘটেছিল।’

“রেণুকা সাহানে”রেণুকা সাহানে অলোক নাথের সঙ্গে চলচ্চিত্র, টিভি সিরিয়াল আর মঞ্চে কাজ করেছেন দীপিকা আমিন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অলোক নাথের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তিনি। বললেন, ‘অলোক নাথ খুবই বিরক্তিকর মানুষ। মদ্যপ অবস্থায় তিনি যেকোনো মেয়েকে যৌন হেনস্তা করতে দ্বিতীয়বার ভাবেন না। কয়েক বছর আগে একটি টেলিফিল্মের শুটিংয়ের সময় অলোক নাথ জোর করে তাঁর ঘরে ঢুকে পড়েন। ওই সময় তিনি মদ্যপ ছিলেন আর কুৎসিত ব্যবহার করেছেন। ইউনিটের লোকজনের সহায়তায় সেদিন রক্ষা পাই।’

হিমানি শিবপুরী পিটিআইকে আরও বলেন, ‘আইটিএ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য একবার আমরা দুবাই যাচ্ছি। ফ্লাইটেই অলোক নাথ মদ্যপান করেন। এরপর তাঁর আচরণ পাল্টে যায়। ফ্লাইটে খোলা স্থানে প্রস্রাব করেন। পাশাপাশি অন্যদের সঙ্গেও খুবই দুর্ব্যবহার করেন। এসব ঝামেলার জন্য পরে ফ্লাইট থেকে তাঁকে নামিয়ে দেওয়া হয়। এই সময় তাঁর স্ত্রীও সঙ্গে ছিলেন। স্বামীর আচরণে তিনি নিজেও খুব বিব্রত হয়েছিলেন। ওঁর ব্যবহারে আমি বিরক্ত হয়েছিলাম।’

হিমানি শিবপুরী তনুশ্রী দত্ত আর বিনতা নন্দার প্রশংসা করে হিমানি শিবপুরী বলেন, ‘তনুশ্রী ও বিনতা এত দিন পরে হলেও মুখ খুলেছেন, এটা প্রশংসনীয়। আসলে নারীরা সহজে লক্ষ্য হয়ে যান। কারণ, সমাজ সহজেই তাঁদের দিকে আঙুল তোলে।’

বলিউডের বয়োজ্যেষ্ঠ অভিনেতা অলোক নাথের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ছোট পর্দার স্ক্রিপ্ট রাইটার, পরিচালক ও প্রযোজক বিনতা নন্দা জানিয়েছেন, ১৯ বছর আগে অলোক নাথ তাঁকে ধর্ষণ করেছেন। এবার এই অভিযোগ প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন অভিনেতা অলোক নাথ। ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার না করলেও বিষয়টি সরাসরি নিজের কাঁধেও নিচ্ছেন না তিনি। এ অভিযোগ প্রসঙ্গে অলোক নাথ বলেন, ‘নারীরা দুর্বল বলে লোকে কেবল তাঁদের কথাই শোনে।’

দীপিকা আমিন ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে সিনে অ্যান্ড টিভি আর্টিস্টস অ্যাসোসিয়েশনের (সিনটা) নির্বাহী সদস্য সুশান্ত সিং জানিয়েছেন, এরই মধ্যে অলোক নাথকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর