ভেতরে থাকা জঙ্গিরা ‘নিষ্ক্রিয়’ হয়ে পড়েছে ‘অপারেশন হিটব্যাক’ কার্যত সমাপ্ত..

0
43
sylpro24
sylpro24


মৌলভীবাজারের ফতেহপুরের নাসিরপুরের বাগানবাড়ির জঙ্গি আস্তানায় পরিচালিত ‘অপারেশন হিটব্যাক’ কার্যত সমাপ্ত। তবে আস্তানাটিতে এখন তল্লাশি চালাচ্ছে সোয়াট (স্পেশাল উইপন অ্যান্ড ট্যাকটিস টিম) এর সদস্যরা।
এর আগে বুধবার (৩০ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টার পর নাসিরপুরের জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন হিট ব্যাক’ শুরু করেন ঢাকা থেকে যাওয়া পুলিশের সোয়াট (স্পেশাল উইপন অ্যান্ড ট্যাকটিস টিম) এর সদস্যরা।
ঘণ্টাখানেকের কিছু বেশি সময় ওই জঙ্গি আস্তানায় অভিযান পরিচালনা করে সোয়াট টিম। তবে রাত সাড়ে সাতটার পর থেকে সেখানে আর গুলির আওয়াজ পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছ ভেতরে থাকা জঙ্গিরা ‘নিষ্ক্রিয়’ হয়ে পড়েছে। তবে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া এবং রাতে আলোক স্বল্পতার কারণে পরবর্তীতে অভিযান সকাল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়। ফিরে যায় সোয়াট সদস্যরাও।
পরে বৃহস্পতিবার (মার্চ ৩০) সকাল দশটার দিকে ফের ঘটনাস্থলে পৌঁছায় সোয়াট টিমের সদস্যরা। বর্তমানে তারা জঙ্গি আস্তানা ‘বাগানবাড়ি’তে তল্লাশি চালাচ্ছেন ।
অন্যদিকে বুধবার সন্ধ্যা ছয়টা থেকেই পৌর শহরের ৬ নং ওয়ার্ডের বড়হাট এলাকার জঙ্গি আস্তানা ঘিরে রেখেছে পুলিশের বিশেষ ক্রাইম রেসপন্স টিমের (সিআরটি) সদস্যরা।
সন্ধ্যার আগেই শক্তিশালী সার্চ লাইটের মাধ্যমে বড়হাটের জঙ্গি আস্তানার চারপাশ আলোকিত করে রাখা হয়। নাসিরপুরের ‘অপারেশন হিটব্যাক’ শেষ করে বড়হাটের জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালাবে সোয়াট।
বড়হাট এবং সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের নাসিরপুরে ওই দুটি বাড়ি বুধবার ভোরে পুলিশ ঘিরে ফেলার পর থেকে সারাদিনই থেমে থেমে গুলি ও বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়।
প্রায় ১৮ কিলোমিটার ব্যবধানে ওই দুই বাড়িরই মালিক লন্ডন প্রবাসী এক ব্যক্তি। দুই বাড়িতে নারী ও শিশুসহ জনা দশেক লোক রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
নিরাপত্তার স্বার্থে বড়হাটের বাড়ি ঘিরে পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড ও কুসুমবাগ এলাকা এবং খলিলপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে আশপাশের দুই কিলোমিটার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে রেখেছে জেলা প্রশাসন।
দুই এলাকাতেই সকাল থেকে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের নিরাপদ অবস্থানে থাকার পরামর্শ দিয়ে মাইকিং করা হয়।

মন্তব্য

মন্তব্য