আজঃ ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ - দুপুর ১:৪৮

বিশ্বনাথে আরও ১০টি গরু উদ্ধার

Published: আগ ১২, ২০১৮ - ১:৪৫ অপরাহ্ণ

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: বিশ্বনাথ থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে আরও ১০টি চোরাই গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় উপজেলার উত্তর ধর্মদা গ্রামের এক প্রবাসীর বাড়িতে থেকে চোরাই গরুগুলো উদ্ধার করা হয়।

শনিবার ভোর বেলায় বিশ্বনাথ উপজেলার উত্তর ধর্মদা গ্রামের আবু রেজা (৩৫) ও জগন্নাথপুর উপজেলার বাউরকাপন গ্রামের হেকিম মুন্সির ছেলে আবির মিয়া (৩৫) কে আটক করে পুলিশ। তাদের তথ্যমতো রাতে আর ১০টি গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ। গরুগুলো উত্তর ধর্মদা গ্রামের প্রবাসীর বাড়ির গোয়াল ঘর ভাড়া নিয়ে রাখা হয়েছিল।

পুলিশ জানায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে চুরি হওয়া গরু উদ্ধার করতে গত দুই দিন ধরে ব্যাপক অভিযানে নামে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে উত্তর ধর্মদা গ্রামের আলী রেজার বাড়িতে বেশ কয়েকটি চোরাইকৃত গরু রয়েছে।

এরপর শনিবার ভোরে উপজেলার উত্তর ধর্মদা গ্রামের আলী রেজার বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় ১১টি চোরাই গরু উদ্ধার করে পুলিশ এবং আলী রেজা ও আবির মিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় গরু উদ্ধারের খবর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে বিশ্বনাথ উপজেলা’সহ পার্শ্ববর্তী থানার বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন তাদের চুরি হওয়া গরু সনাক্ত করতে থানায় ভিড় করেন।

এসময় উৎসুক জনতার ভিড়ে থানা পুলিশকে হিমশিম খেতে হয়। পরে হ্যান্ড মাইক দিয়ে লোকজন থানা কম্পাউডের ভিতর থেকে উৎসুক জনতাকে বের করা দেয়া হয়।

এব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, উদ্ধারকৃত কয়েকটি গরু ইতিমধ্যে সনাক্ত করা হয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এপর্যন্ত (শনিবার রাত সাড়ে ১০টা) ২১টি চোরাই গরু উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

Facebook Comments

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: বিশ্বনাথ থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে আরও ১০টি চোরাই গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় উপজেলার উত্তর ধর্মদা গ্রামের এক প্রবাসীর বাড়িতে থেকে চোরাই গরুগুলো উদ্ধার করা হয়।

শনিবার ভোর বেলায় বিশ্বনাথ উপজেলার উত্তর ধর্মদা গ্রামের আবু রেজা (৩৫) ও জগন্নাথপুর উপজেলার বাউরকাপন গ্রামের হেকিম মুন্সির ছেলে আবির মিয়া (৩৫) কে আটক করে পুলিশ। তাদের তথ্যমতো রাতে আর ১০টি গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ। গরুগুলো উত্তর ধর্মদা গ্রামের প্রবাসীর বাড়ির গোয়াল ঘর ভাড়া নিয়ে রাখা হয়েছিল।

পুলিশ জানায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে চুরি হওয়া গরু উদ্ধার করতে গত দুই দিন ধরে ব্যাপক অভিযানে নামে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে উত্তর ধর্মদা গ্রামের আলী রেজার বাড়িতে বেশ কয়েকটি চোরাইকৃত গরু রয়েছে।

এরপর শনিবার ভোরে উপজেলার উত্তর ধর্মদা গ্রামের আলী রেজার বাড়িতে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় ১১টি চোরাই গরু উদ্ধার করে পুলিশ এবং আলী রেজা ও আবির মিয়াকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় গরু উদ্ধারের খবর সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে বিশ্বনাথ উপজেলা’সহ পার্শ্ববর্তী থানার বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন তাদের চুরি হওয়া গরু সনাক্ত করতে থানায় ভিড় করেন।

এসময় উৎসুক জনতার ভিড়ে থানা পুলিশকে হিমশিম খেতে হয়। পরে হ্যান্ড মাইক দিয়ে লোকজন থানা কম্পাউডের ভিতর থেকে উৎসুক জনতাকে বের করা দেয়া হয়।

এব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, উদ্ধারকৃত কয়েকটি গরু ইতিমধ্যে সনাক্ত করা হয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এপর্যন্ত (শনিবার রাত সাড়ে ১০টা) ২১টি চোরাই গরু উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর