আজঃ ৩রা কার্তিক ১৪২৫ - ১৮ই অক্টোবর ২০১৮ - সকাল ১০:১৩

বালিজুড়ী প্রধান শিক্ষক ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি কে তলব.

Published: আগ ০১, ২০১৮ - ১১:৫২ পূর্বাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক :: সুনামগঞ্জের তাহেরপুর উপজেলায় হাইকোর্টের রায় অবমাননা ও মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের কর্তৃক প্রেরিত নির্দেশনা অমান্য করায় বালিজুরী এলাহি বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফাহিমা আক্তার ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি আবুল খায়ের কে ডেকেছেন সিলেট মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান।

এই বিষয়টি মঙ্গলবার বিকালে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সিলেট মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল কুদ্দুছ। তিনি বলেন,তারা কি চায়। কি তাদের সমস্যা। তারা এমন কি ক্ষমতাবান যে হাইকোর্টের নির্দেশ মানছে না।

আমাদের নির্দেশ ও মানে না। তাদের বিদ্যালয়ের না রাখলে কি হবে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতিকে বলেছি বুধবার আমার কার্যালয়ে আসার জন্য না আসলে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

উল্লেখ্য,বালিজুরী এলাহীবক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মিলে বিদ্যালয়ের অসস্থিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান কে ১৭,০১,১৭ইং তারিখে চাকুরী চুতি করেন।

চাকুরী ছাড়তে বাধ্য করেন তা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট এর নির্দেশিত ৩সদস্য বিশিষ্ট্য এই বিষয়ে হাইকোর্টে রিট মামলা নং ১৫৪৩৩দায়ের পর একটি তদন্ত কমিটির তদন্তে প্রমাণ পাওয়া যায়। এবং হাইকোর্ট ৯০দিনের মধ্যে স্বপদে বহাল করার জন্য নির্দেশ দেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে।

তার জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট সচিব মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল আহমদের স্বাক্ষরিত ০৫,০৩,১৮ইং তারিখে হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়নের জন্য একটি পত্রে প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমানকে স্বপদে বহাল রেখে বিদ্যালয়ে দায়িত্বপালন করার নির্দেশ দেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটিকে।

কিন্তু ঐ কমিটি তা অমান্য করে। এরপর আবারও ০২,০৪,১৮ইং পুনরায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট চেয়ারম্যান বরাবর মহামান্য হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়ন করার জন্য আবেদন করেন। এই আবেদনে সুনামগঞ্জ ১আসনের এমপি সাহেবের সুপারিশ ও ছিল। সেই আবেদনের কোন প্রতিকার না পেয়ে আবার হাইকোর্টে রিট মামলা নং ৭৭৫৫/২০১৮দায়ের করেন।

সেখানেও মহামান্য হাইকোর্ট ৩০দিনের মধ্যে পূর্ন বহাল করার রায় প্রধান করেন। রায় বাস্তবায়নের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট আবেদন করেন চাকরী চুত প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান। এত কিছুর-পরও মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে জেলা শিক্ষা অফিসার জাহাঙ্গীর আলমের সাথে যোগ সাজাসে গত ১৯জুলাই সুনামগঞ্জ জেলা থেকে প্রকাশিত একটি পত্রিকায় শেষ পৃষ্টায় প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

এরপর বালিজুরী এলাহীবক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান বলেন,আমি বার বার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতিসহ সবাইকে বলেছি তারা আমাকে কোন সহযোগীতা না করে আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছে। তাই মহামান্য হাইকোর্টের রায় অমান্য করায় জেলা প্রশাসক,মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও সিলেট মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান স্যারকেও লিখিত ভাবে এই বিষয়টি অবগত করেছি।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক :: সুনামগঞ্জের তাহেরপুর উপজেলায় হাইকোর্টের রায় অবমাননা ও মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের কর্তৃক প্রেরিত নির্দেশনা অমান্য করায় বালিজুরী এলাহি বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফাহিমা আক্তার ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতি আবুল খায়ের কে ডেকেছেন সিলেট মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান।

এই বিষয়টি মঙ্গলবার বিকালে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সিলেট মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আব্দুল কুদ্দুছ। তিনি বলেন,তারা কি চায়। কি তাদের সমস্যা। তারা এমন কি ক্ষমতাবান যে হাইকোর্টের নির্দেশ মানছে না।

আমাদের নির্দেশ ও মানে না। তাদের বিদ্যালয়ের না রাখলে কি হবে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতিকে বলেছি বুধবার আমার কার্যালয়ে আসার জন্য না আসলে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

উল্লেখ্য,বালিজুরী এলাহীবক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মিলে বিদ্যালয়ের অসস্থিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান কে ১৭,০১,১৭ইং তারিখে চাকুরী চুতি করেন।

চাকুরী ছাড়তে বাধ্য করেন তা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট এর নির্দেশিত ৩সদস্য বিশিষ্ট্য এই বিষয়ে হাইকোর্টে রিট মামলা নং ১৫৪৩৩দায়ের পর একটি তদন্ত কমিটির তদন্তে প্রমাণ পাওয়া যায়। এবং হাইকোর্ট ৯০দিনের মধ্যে স্বপদে বহাল করার জন্য নির্দেশ দেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে।

তার জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট সচিব মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল আহমদের স্বাক্ষরিত ০৫,০৩,১৮ইং তারিখে হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়নের জন্য একটি পত্রে প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমানকে স্বপদে বহাল রেখে বিদ্যালয়ে দায়িত্বপালন করার নির্দেশ দেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটিকে।

কিন্তু ঐ কমিটি তা অমান্য করে। এরপর আবারও ০২,০৪,১৮ইং পুনরায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট চেয়ারম্যান বরাবর মহামান্য হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়ন করার জন্য আবেদন করেন। এই আবেদনে সুনামগঞ্জ ১আসনের এমপি সাহেবের সুপারিশ ও ছিল। সেই আবেদনের কোন প্রতিকার না পেয়ে আবার হাইকোর্টে রিট মামলা নং ৭৭৫৫/২০১৮দায়ের করেন।

সেখানেও মহামান্য হাইকোর্ট ৩০দিনের মধ্যে পূর্ন বহাল করার রায় প্রধান করেন। রায় বাস্তবায়নের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা র্বোড সিলেট আবেদন করেন চাকরী চুত প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান। এত কিছুর-পরও মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা অমান্য করে জেলা শিক্ষা অফিসার জাহাঙ্গীর আলমের সাথে যোগ সাজাসে গত ১৯জুলাই সুনামগঞ্জ জেলা থেকে প্রকাশিত একটি পত্রিকায় শেষ পৃষ্টায় প্রধান শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়।

এরপর বালিজুরী এলাহীবক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান বলেন,আমি বার বার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানিজিং কমিটির সভাপতিসহ সবাইকে বলেছি তারা আমাকে কোন সহযোগীতা না করে আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছে। তাই মহামান্য হাইকোর্টের রায় অমান্য করায় জেলা প্রশাসক,মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও সিলেট মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান স্যারকেও লিখিত ভাবে এই বিষয়টি অবগত করেছি।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর