আজঃ ৪ঠা কার্তিক ১৪২৫ - ১৯শে অক্টোবর ২০১৮ - ভোর ৫:৪৪

ফোর-জি সেবা ২০ ফেব্রুয়ারি

Published: ফেব্রু ১৩, ২০১৮ - ৩:৫৫ অপরাহ্ণ

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:: দেশে চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক (ফোর-জি) সেবা বিস্তৃত করার জন্য তরঙ্গের নিলাম শুরু হয়েছে। বিটিআরসির সচিব সরওয়ার আলম জানিয়েছেন, নিলামে জয়ী হওয়া মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে ২০ ফেব্রুয়ারি লাইসেন্স দেয়া হবে। এরপর থেকে গ্রাহকরা ফোর-জি সেবা পাবেন।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে শুরু হওয়া নিলাম অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

নিলামে অংশ নিয়েছে মোবাইল ফোন অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক। নিলামে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। এছাড়া নিলাম অংশ নেয়া অপারেটর দুটির শীর্ষ পর্যায়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

নিলাম শেষে সংবাদ সম্মেলন করার কথা রয়েছে দেশের শীর্ষ টেলিকম সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনের।

ফোরজি নীতিমালা অনুসারে ১৮ মাসের মধ্যে সবগুলো জেলা শহরে নতুন প্রজন্মের এ সেবা চালু করতে হবে। আর ৩৬ মাসের মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে এই সেবা নিয়ে যেতে হবে। তবে শুরুর দিকে শুধু বড় শহরেই এই সেবা পাওয়া যাবে। কেননা, এখনও সারাদেশে থ্রিজি নেটওয়ার্ক বিস্তৃত করতে পারেনি টেলিকম অপারেটরগুলো।

Facebook Comments

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক:: দেশে চতুর্থ প্রজন্মের নেটওয়ার্ক (ফোর-জি) সেবা বিস্তৃত করার জন্য তরঙ্গের নিলাম শুরু হয়েছে। বিটিআরসির সচিব সরওয়ার আলম জানিয়েছেন, নিলামে জয়ী হওয়া মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে ২০ ফেব্রুয়ারি লাইসেন্স দেয়া হবে। এরপর থেকে গ্রাহকরা ফোর-জি সেবা পাবেন।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে শুরু হওয়া নিলাম অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

নিলামে অংশ নিয়েছে মোবাইল ফোন অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোন ও বাংলালিংক। নিলামে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। এছাড়া নিলাম অংশ নেয়া অপারেটর দুটির শীর্ষ পর্যায়ের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

নিলাম শেষে সংবাদ সম্মেলন করার কথা রয়েছে দেশের শীর্ষ টেলিকম সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনের।

ফোরজি নীতিমালা অনুসারে ১৮ মাসের মধ্যে সবগুলো জেলা শহরে নতুন প্রজন্মের এ সেবা চালু করতে হবে। আর ৩৬ মাসের মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে এই সেবা নিয়ে যেতে হবে। তবে শুরুর দিকে শুধু বড় শহরেই এই সেবা পাওয়া যাবে। কেননা, এখনও সারাদেশে থ্রিজি নেটওয়ার্ক বিস্তৃত করতে পারেনি টেলিকম অপারেটরগুলো।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর