আজঃ ১লা কার্তিক ১৪২৫ - ১৬ই অক্টোবর ২০১৮ - রাত ১১:৪৬

পাল্টা কর্মসূচি না দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

Published: সেপ্টে ২৬, ২০১৮ - ৭:৫০ অপরাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক:: রাজধানীতে আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। ইতিমধ্যে সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান কিংবা নয়াপল্টন ব্যবহার করার জন্য আবেদন করেছে দলটি। একই দিন মহানগর নাট্যমঞ্চে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল। ১৪ দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিএনপি কোনো ধরনের উসকানিমূলক আচরণ করলে তা প্রতিহত করা হবে। দুই দলের এমন অবস্থানে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা।

এই পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলকে কোনো রকম সংঘাতে জড়ানো যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার ভোরবেলা, নিউইয়র্ক সময় মঙ্গলবার রাতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে প্রধানমন্ত্রী ফোন করে বলেন, বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে কোনো রকম উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড যেন না করা হয়। পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগ যাবে না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। কোনো সংঘাত যেন না হয় সে ব্যাপারে ওবায়দুল কাদেরকে পরিষ্কার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কারণ বিএনপির উদ্দেশ্যই সংঘাতমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টি করা। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপি যদি সমাবেশ করতে চায় এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তাদের সমাবেশ করার অনুমতি দেয় তাহলে তারা সমাবেশ করবে। আওয়ামী লীগ বা ১৪ দল পাল্টাপাল্টি কোনো কর্মসূচিতে যাবে না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কর্মীসভায় যোগদান এবং রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের পাংশার শিয়ালডাঙ্গী থেকে রাজবাড়ীর তালতলা পর্যন্ত দ্বিতীয় অংশের সম্প্রসারণ ও সংস্কার কাজে বর্তমানে ফরিদপুর অবস্থান করছেন। সেখান থেকেই আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং ১৪ দলের সমন্বয়ক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে ফোন করে তিনি কোনো ধরনের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা না করার জন্য এবং উসকানিমূলক কোনো বক্তব্য না দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের কথা জানান। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দল কোনো ধরনের পাল্টা কর্মসূচিতে যাবে না এমন সিদ্ধান্তই হয়েছে।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক:: রাজধানীতে আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। ইতিমধ্যে সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যান কিংবা নয়াপল্টন ব্যবহার করার জন্য আবেদন করেছে দলটি। একই দিন মহানগর নাট্যমঞ্চে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দল। ১৪ দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিএনপি কোনো ধরনের উসকানিমূলক আচরণ করলে তা প্রতিহত করা হবে। দুই দলের এমন অবস্থানে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা।

এই পরিপ্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলকে কোনো রকম সংঘাতে জড়ানো যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার ভোরবেলা, নিউইয়র্ক সময় মঙ্গলবার রাতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে প্রধানমন্ত্রী ফোন করে বলেন, বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে কোনো রকম উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড যেন না করা হয়। পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগ যাবে না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। কোনো সংঘাত যেন না হয় সে ব্যাপারে ওবায়দুল কাদেরকে পরিষ্কার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কারণ বিএনপির উদ্দেশ্যই সংঘাতমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টি করা। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপি যদি সমাবেশ করতে চায় এবং আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তাদের সমাবেশ করার অনুমতি দেয় তাহলে তারা সমাবেশ করবে। আওয়ামী লীগ বা ১৪ দল পাল্টাপাল্টি কোনো কর্মসূচিতে যাবে না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কর্মীসভায় যোগদান এবং রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের পাংশার শিয়ালডাঙ্গী থেকে রাজবাড়ীর তালতলা পর্যন্ত দ্বিতীয় অংশের সম্প্রসারণ ও সংস্কার কাজে বর্তমানে ফরিদপুর অবস্থান করছেন। সেখান থেকেই আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং ১৪ দলের সমন্বয়ক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকে ফোন করে তিনি কোনো ধরনের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা না করার জন্য এবং উসকানিমূলক কোনো বক্তব্য না দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের কথা জানান। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দল কোনো ধরনের পাল্টা কর্মসূচিতে যাবে না এমন সিদ্ধান্তই হয়েছে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর