আজঃ ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ১০:০৫

দক্ষিণ সুরমার বাসার গ্রীল কেটে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেল চোরসহ উদ্ধার,মালিকের নিকট হস্তান্তর

Published: মার্চ ০২, ২০১৭ - ৭:৫৫ অপরাহ্ণ

sylpro24sylpro24

সংবাদদাতা : দক্ষিণ সুরমার বাসার গ্রীল কেটে চুরি যাওয়া ব্যবসায়ীর মোটরসাইকেলটি চোরসহ উদ্ধার করা হয়েছে।  বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ফায়াজ উদ্দিন ফয়েজের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেলটি গতকাল বৃহস্পতিবার মালিকের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গত ১০ ফেব্রুয়ারী ১৭ইং তারিখে দক্ষিণ সুরমার খোজারখলা ২০১/বি বাসা থেকে কে বা কারা কলাপশিপল গেইটের তালা ভেঙ্গে মোটরসাইকেলটি চুরি করে নিয়ে যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠে বাসার মালিক মহাজনপট্রি এলাকার ব্যবসায়ী সাহেল আহমদ নির্ধারিত স্থানে গাড়িটি না পেয়ে বিভিন্নস্থানে খুজাখুজি করতে থাকেন। কোথাও না পেয়ে তিনি দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেন। যার নং ৫৮৮/১৭। গাড়ির মালিক সাহেল আহমদ খবর দেন বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িরসহ বিভিন্ন থানাকে গাড়িটি উদ্ধারের জন্য। কিন্তু খবর পেয়েই গাড়ির সন্ধানে ছুটে পড়েন বন্দর ফাঁড়ির ইনচার্জ ফায়াজ উদ্দিন ফয়েজ। ঐদিনই গাড়িসহ চোরকে আটক করতে সক্ষম তিনি। মোটরসাইকেল চোর আটকের পর তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো ৫টি চোরাই গাড়ী উদ্ধার সক্ষম হন তিনি। আটককৃত চোর মুখলেছুর রহমান (৩৩),পিতা মৃত সেজু মিয়া গ্রাম উত্তরপাড়া,কিশোরগঞ্জ বর্তমানে সে মেন্তিবাগের জালালাবাদ গ্যাস কলোনী এলাকায় বসবাস করছে। আটককৃত মোটরসাইকেল চোর আন্ত:জেলা গাড়ী চোরচক্রের সদস্য। তার বিরুদ্ধে একাধিক মোটরসাইকেল চুরির মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়। দীর্ঘ ১৫দিন পর বাসা থেকে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি গতকাল বৃহস্পতিবার গাড়ির মালিক সাহেল আহমদের নিকট আনুষ্টানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।

Facebook Comments

সংবাদদাতা : দক্ষিণ সুরমার বাসার গ্রীল কেটে চুরি যাওয়া ব্যবসায়ীর মোটরসাইকেলটি চোরসহ উদ্ধার করা হয়েছে।  বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ফায়াজ উদ্দিন ফয়েজের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ গাড়িটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেলটি গতকাল বৃহস্পতিবার মালিকের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গত ১০ ফেব্রুয়ারী ১৭ইং তারিখে দক্ষিণ সুরমার খোজারখলা ২০১/বি বাসা থেকে কে বা কারা কলাপশিপল গেইটের তালা ভেঙ্গে মোটরসাইকেলটি চুরি করে নিয়ে যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠে বাসার মালিক মহাজনপট্রি এলাকার ব্যবসায়ী সাহেল আহমদ নির্ধারিত স্থানে গাড়িটি না পেয়ে বিভিন্নস্থানে খুজাখুজি করতে থাকেন। কোথাও না পেয়ে তিনি দক্ষিণ সুরমা থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেন। যার নং ৫৮৮/১৭। গাড়ির মালিক সাহেল আহমদ খবর দেন বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িরসহ বিভিন্ন থানাকে গাড়িটি উদ্ধারের জন্য। কিন্তু খবর পেয়েই গাড়ির সন্ধানে ছুটে পড়েন বন্দর ফাঁড়ির ইনচার্জ ফায়াজ উদ্দিন ফয়েজ। ঐদিনই গাড়িসহ চোরকে আটক করতে সক্ষম তিনি। মোটরসাইকেল চোর আটকের পর তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো ৫টি চোরাই গাড়ী উদ্ধার সক্ষম হন তিনি। আটককৃত চোর মুখলেছুর রহমান (৩৩),পিতা মৃত সেজু মিয়া গ্রাম উত্তরপাড়া,কিশোরগঞ্জ বর্তমানে সে মেন্তিবাগের জালালাবাদ গ্যাস কলোনী এলাকায় বসবাস করছে। আটককৃত মোটরসাইকেল চোর আন্ত:জেলা গাড়ী চোরচক্রের সদস্য। তার বিরুদ্ধে একাধিক মোটরসাইকেল চুরির মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়। দীর্ঘ ১৫দিন পর বাসা থেকে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি গতকাল বৃহস্পতিবার গাড়ির মালিক সাহেল আহমদের নিকট আনুষ্টানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর