আজঃ ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ - রাত ১২:৪৬

দক্ষিণ সুনামগঞ্জে সরকারি চাল বিতরনে চেয়ারম্যানের অনিয়ম

Published: আগ ১৮, ২০১৮ - ১২:৩৩ অপরাহ্ণ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: পবিত্র ঈদুল-আযহা উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া গরীব অসহায়দের চাল নিয়ে চালবাজী করায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনকে মৌখিকভাবে সতর্ক করে দিয়েছেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লা।

তিনি উপকারভোগীদের চাল ফেরৎ দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে সরকারী চাল বিতরণের সময় এ অনিয়ম ধরা পড়ে।

ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সরকারি ভাবে দরিদ্র ও গরীব পরিবারের মাঝে সুনামগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হলেও এই চেয়ারম্যান সরলমনা গরীবদের মাঝে ১৩ কেজি করে বিতরণ করেন ।

গতকাল শুক্রবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে চাল বিতরণ করেন চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন। দুপুর সাড়ে ১১ টার দিকে চাল কম দেয়ার খবর শুনে পেরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লা। দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান ।

এ সময় ২০ কেজির মধ্যে ১৩ কেজি চাল দেওয়ার সত্যতা পাওয়ার পর ইউএনও চাল বিতরণ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন এবং চেয়ারম্যানকে উপজেলা পরিষদে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনকে উপকারভোগীদের চাল ফিরৎ দেয়ার নির্দেশ দেন।

ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকতে সতর্ক করেন। উপকারভোগীদের কয়েকজন জানান, প্রতিবার আক্তার চেয়ারম্যান চাল কম দিয়ে থাকেন। এমনকি নিজের নামে কিছু চাল রেখে দেন।

গরীবের চাল আত্মসাতের অভিযোগে চেয়ারম্যান এর আগেও একাধিকবার ক্ষমা চেয়েছেন। বিগত কয়েক মাস আগে চেয়ারম্যান চাল বিতরণ না করেই বিপুল পরিমান চাল ইউনিয়ন পরিষদে রেখেছিলেন ।

পরে এলাকাবাসী কানাগুনায় নিমিষেই চাল অন্য কোন একজাগায় পাঠিয়ে দেন । উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লা বলেন, চাল কম দেওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা পাই। যাদের চাল কম দেওয়া হয়েছে তাদের চাল ফেরৎ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলেন তিনি

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করলে তিনি অনেকক্ষণ পরে কল রিসিভ করে ব্যস্থতা দেখিয়ে কল কেটে দেন।

Facebook Comments

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: পবিত্র ঈদুল-আযহা উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া গরীব অসহায়দের চাল নিয়ে চালবাজী করায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনকে মৌখিকভাবে সতর্ক করে দিয়েছেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লা।

তিনি উপকারভোগীদের চাল ফেরৎ দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে সরকারী চাল বিতরণের সময় এ অনিয়ম ধরা পড়ে।

ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সরকারি ভাবে দরিদ্র ও গরীব পরিবারের মাঝে সুনামগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হলেও এই চেয়ারম্যান সরলমনা গরীবদের মাঝে ১৩ কেজি করে বিতরণ করেন ।

গতকাল শুক্রবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে চাল বিতরণ করেন চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন। দুপুর সাড়ে ১১ টার দিকে চাল কম দেয়ার খবর শুনে পেরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লা। দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান ।

এ সময় ২০ কেজির মধ্যে ১৩ কেজি চাল দেওয়ার সত্যতা পাওয়ার পর ইউএনও চাল বিতরণ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন এবং চেয়ারম্যানকে উপজেলা পরিষদে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনকে উপকারভোগীদের চাল ফিরৎ দেয়ার নির্দেশ দেন।

ভবিষ্যতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকতে সতর্ক করেন। উপকারভোগীদের কয়েকজন জানান, প্রতিবার আক্তার চেয়ারম্যান চাল কম দিয়ে থাকেন। এমনকি নিজের নামে কিছু চাল রেখে দেন।

গরীবের চাল আত্মসাতের অভিযোগে চেয়ারম্যান এর আগেও একাধিকবার ক্ষমা চেয়েছেন। বিগত কয়েক মাস আগে চেয়ারম্যান চাল বিতরণ না করেই বিপুল পরিমান চাল ইউনিয়ন পরিষদে রেখেছিলেন ।

পরে এলাকাবাসী কানাগুনায় নিমিষেই চাল অন্য কোন একজাগায় পাঠিয়ে দেন । উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সফি উল্লা বলেন, চাল কম দেওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সত্যতা পাই। যাদের চাল কম দেওয়া হয়েছে তাদের চাল ফেরৎ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলেন তিনি

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান আক্তার হোসেনের সাথে মুঠোফোনে একাধিক বার যোগাযোগ করলে তিনি অনেকক্ষণ পরে কল রিসিভ করে ব্যস্থতা দেখিয়ে কল কেটে দেন।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর