আজঃ ২৯শে কার্তিক ১৪২৫ - ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ - রাত ১১:০৭

‘তিতলি’ তে মজেছেন তারা

Published: অক্টো ১৫, ২০১৮ - ১:০৩ অপরাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক :: ভারতে কন্যা-শিশুর নাম ‘তিতলি’ রাখার ধুম পড়েছে। গেল দুই সপ্তাহ তিতলিতে তটস্থ ছিল ভারত ও বাংলাদেশ।

এই সময়ের মধ্যে জন্ম নেয়া মেয়ে শিশুর নাম ‘তিতলি’ রাখছেন দেশটির অনেক মা-বাবা।

বিশেষ করে উড়িষ্যার গঞ্জাম, জগত সিংপুর ও নয়াগড় জেলায় এমনটি বেশি দেখা যাচ্ছে বলে খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ভারতের অন্ধ্র-উড়িষ্যা উপকূলে আঘাত হানে এ ঘূর্ণিঝড়।

লণ্ডভণ্ড করে দিয়ে যায় উড়িষ্যা ও অন্ধ্রপ্রদেশের কয়েকটি গ্রাম। তিতলির কারণে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু ও ৪ জন নিখোঁজের খবর দিয়েছে দেশটির স্থানীয় ও কলকাতা ভিত্তিক বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

কিন্তু এত ধ্বংস যজ্ঞের পরও তিতলিকে ভালোবেসে ফেলেছেন ভারতীয়রা। তিতলিকে স্মৃতিতে জড়িয়ে রাখতে নিজেদের সদ্য জন্ম নেয়া কন্যার নাম তিতলি রাখছেন অনেকেই।

তিতলির বিপর্যয় কাটেনি এখনও। ত্রাণশিবিরে রয়েছেন অনেক পরিবার। তবু তিতলির সেই রুদ্র রূপ নিয়ে খুব একটা ভাবিত নয় তারা। বরং তারা মজে আছেন তিতলিতেই।

হিন্দুস্তান টাইমসে প্রকাশ, গত বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা ৫ মিনিট ও ৬টা ১২ মিনিটে ভারতের ছত্রপুর হাসপাতালে গৃহবধূ আল্লেম্মার কোলজুড়ে আসে যমজ কন্যা, ঠিক যখন তিতলি আছড়ে পড়েছিল ভারতীয় উপকূলে।

আর সে কারণেই দুই মেয়ের মধ্যে একজনের নাম ‘তিতলি’ রাখতে চান আল্লেম্মা।

একই হাসপাতালে কন্যাসন্তানের জন্ম দেন বিমলা দাস। তিনিও তার মেয়ের নাম রেখেছেন তিতলি।

তিতলি পূর্বাভাস থেকে আঘাত হানার দিন পর্যন্ত ১২ দিনে ভারতের আস্কাঞ্চলের স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৯ মেয়েশিশু জন্মায়।

সেই স্বাস্থ্য কেন্দ্রের চিকিৎসক ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানান, এসব শিশুর বাবা-মায়েরা তাদের সবার নাম তিতলি রেখেছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় হিঞ্জলি এলাকার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চার শিশু জন্মেছে। এর মধ্যে একটি কন্যাসন্তান, যার নাম রাখা হয়েছে তিতলি।

প্রসঙ্গত তিতলি ঘূর্ণিঝড়টির নাম এসেছে পাকিস্তানের প্রস্তাবণায়। তাতেও সমস্যা দেখছেন না ভারতীয়রা। হিন্দি ভাষায় ‘তিতলি’ অর্থ ‘প্রজাপতি’। হয়তো এ অর্থটাই তিতলির তাণ্ডব ভুলে গিয়ে মন কেড়েছে এসব ভারতীয়র।

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক :: ভারতে কন্যা-শিশুর নাম ‘তিতলি’ রাখার ধুম পড়েছে। গেল দুই সপ্তাহ তিতলিতে তটস্থ ছিল ভারত ও বাংলাদেশ।

এই সময়ের মধ্যে জন্ম নেয়া মেয়ে শিশুর নাম ‘তিতলি’ রাখছেন দেশটির অনেক মা-বাবা।

বিশেষ করে উড়িষ্যার গঞ্জাম, জগত সিংপুর ও নয়াগড় জেলায় এমনটি বেশি দেখা যাচ্ছে বলে খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

বৃহস্পতিবার ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ভারতের অন্ধ্র-উড়িষ্যা উপকূলে আঘাত হানে এ ঘূর্ণিঝড়।

লণ্ডভণ্ড করে দিয়ে যায় উড়িষ্যা ও অন্ধ্রপ্রদেশের কয়েকটি গ্রাম। তিতলির কারণে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু ও ৪ জন নিখোঁজের খবর দিয়েছে দেশটির স্থানীয় ও কলকাতা ভিত্তিক বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম।

কিন্তু এত ধ্বংস যজ্ঞের পরও তিতলিকে ভালোবেসে ফেলেছেন ভারতীয়রা। তিতলিকে স্মৃতিতে জড়িয়ে রাখতে নিজেদের সদ্য জন্ম নেয়া কন্যার নাম তিতলি রাখছেন অনেকেই।

তিতলির বিপর্যয় কাটেনি এখনও। ত্রাণশিবিরে রয়েছেন অনেক পরিবার। তবু তিতলির সেই রুদ্র রূপ নিয়ে খুব একটা ভাবিত নয় তারা। বরং তারা মজে আছেন তিতলিতেই।

হিন্দুস্তান টাইমসে প্রকাশ, গত বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা ৫ মিনিট ও ৬টা ১২ মিনিটে ভারতের ছত্রপুর হাসপাতালে গৃহবধূ আল্লেম্মার কোলজুড়ে আসে যমজ কন্যা, ঠিক যখন তিতলি আছড়ে পড়েছিল ভারতীয় উপকূলে।

আর সে কারণেই দুই মেয়ের মধ্যে একজনের নাম ‘তিতলি’ রাখতে চান আল্লেম্মা।

একই হাসপাতালে কন্যাসন্তানের জন্ম দেন বিমলা দাস। তিনিও তার মেয়ের নাম রেখেছেন তিতলি।

তিতলি পূর্বাভাস থেকে আঘাত হানার দিন পর্যন্ত ১২ দিনে ভারতের আস্কাঞ্চলের স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৯ মেয়েশিশু জন্মায়।

সেই স্বাস্থ্য কেন্দ্রের চিকিৎসক ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানান, এসব শিশুর বাবা-মায়েরা তাদের সবার নাম তিতলি রেখেছেন।

জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় হিঞ্জলি এলাকার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চার শিশু জন্মেছে। এর মধ্যে একটি কন্যাসন্তান, যার নাম রাখা হয়েছে তিতলি।

প্রসঙ্গত তিতলি ঘূর্ণিঝড়টির নাম এসেছে পাকিস্তানের প্রস্তাবণায়। তাতেও সমস্যা দেখছেন না ভারতীয়রা। হিন্দি ভাষায় ‘তিতলি’ অর্থ ‘প্রজাপতি’। হয়তো এ অর্থটাই তিতলির তাণ্ডব ভুলে গিয়ে মন কেড়েছে এসব ভারতীয়র।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর