আজঃ ১১ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - দুপুর ১:৪৯

তারুণ্য নির্ভর আর্জেন্টিনার সহজ জয়

Published: সেপ্টে ০৮, ২০১৮ - ৮:৪৮ অপরাহ্ণ

ক্রীড়া ডেস্ক :: লিওনেল মেসি, আনহেল দি মারিয়া, সের্হিও আগুয়েরোর মতো বড় তারকারা ছিলেন না আগে থেকেই। মাউরো ইকার্দি, পাওলো দিবালাদেরও মাঠে নামাননি আর্জেন্টিনা কোচ। তবে তারুণ্য নির্ভর দলটি পেয়েছে অনায়াস জয়। সহজেই হারিয়েছে গুয়াতেমালাকে।

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ সময় সকাল নয়টায় শুরু হওয়া ম্যাচে ৩-০ গোলে জিতেছে আর্জেন্টিনা। গনসালো মার্তিনেসের পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যায় দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জিওভানি লো সেলসো। আর্জেন্টিনার হয়ে অভিষেকে জালের দেখা পান দিয়েগো সিমেওনের ছেলে জিওভানি সিমেওনে।

একেবারে অনভিজ্ঞ একটি দলকে মাঠে নামান লিওনেল স্কালোনি। দশের বেশি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা ছিল কেবল রামিরো ফুনেস মোরির।

নবম মিনিটে ম্যাচের প্রথম ভালো সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। জিওভানি লো সেলসো বল বাড়ান রেনসো সারাভিয়াকে। এই রাইট ব্যাকের ক্রসে সবার উঁচুতে উঠে হেড করেন জিওভানি সিমেওনে। তবে ফিওরেন্তিনার স্ট্রাইকারের চেষ্টা লক্ষ্যে থাকেনি।

আর্জেন্টিনার একের পর এক আক্রমণের ঝাপটা সামলে ধীরে ধীরে পাল্টা আক্রমণে যেতে শুরু করে গুয়াতেমালা। তবে আর্জেন্টিনার রক্ষণকে খুব একটা পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি তারা।

২৭তম মিনিটে রিভার প্লেট মিডফিল্ডার গনসালো মার্তিনেসের সফল স্পট কিকে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। লে সোলসোর শটে ইলিয়াস ভাসকেসের হ্যান্ডবলে পেনাল্টি পেয়েছিল দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

৩৫তম মিনিটে লো সেলসোর দুর্দান্ত ভলিতে ব্যবধান দ্বিগুণ করে আর্জেন্টিনা। কর্নার থেকে ডি বক্সের বাইরে বল পেয়ে যান লো সেলসো। পিএসজি থেকে ধারে রিয়াল বেতিসে যোগ দেওয়া মিডফিল্ডারের বুলেট গতির ভলি ফেরানোর কোনো সুযোগই ছিল না গোলরক্ষকের।

৪৪তম মিনিটে স্কোর লাইন ৩-০ করে ফেলেন সিমেওনে। এক্সেকুয়েল পালাসিওসের কাছ থেকে বল পেয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন ২৩ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার।

দ্বিতীয়ার্ধে একের পর এক আক্রমণে গুয়াতেমালার রক্ষণকে ব্যতিব্যস্ত রাখে আর্জেন্টিনা। কিন্তু ব্যবধান আর বাড়াতে পারেননি লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

একই দিন প্রীতি ম্যাচে ব্রাজিল ২-০ গোলে যুক্তরাষ্ট্রকে হারিয়েছে। মেক্সিকোকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে উরুগুয়ে।

Facebook Comments

ক্রীড়া ডেস্ক :: লিওনেল মেসি, আনহেল দি মারিয়া, সের্হিও আগুয়েরোর মতো বড় তারকারা ছিলেন না আগে থেকেই। মাউরো ইকার্দি, পাওলো দিবালাদেরও মাঠে নামাননি আর্জেন্টিনা কোচ। তবে তারুণ্য নির্ভর দলটি পেয়েছে অনায়াস জয়। সহজেই হারিয়েছে গুয়াতেমালাকে।

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ সময় সকাল নয়টায় শুরু হওয়া ম্যাচে ৩-০ গোলে জিতেছে আর্জেন্টিনা। গনসালো মার্তিনেসের পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যায় দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জিওভানি লো সেলসো। আর্জেন্টিনার হয়ে অভিষেকে জালের দেখা পান দিয়েগো সিমেওনের ছেলে জিওভানি সিমেওনে।

একেবারে অনভিজ্ঞ একটি দলকে মাঠে নামান লিওনেল স্কালোনি। দশের বেশি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা ছিল কেবল রামিরো ফুনেস মোরির।

নবম মিনিটে ম্যাচের প্রথম ভালো সুযোগ পায় আর্জেন্টিনা। জিওভানি লো সেলসো বল বাড়ান রেনসো সারাভিয়াকে। এই রাইট ব্যাকের ক্রসে সবার উঁচুতে উঠে হেড করেন জিওভানি সিমেওনে। তবে ফিওরেন্তিনার স্ট্রাইকারের চেষ্টা লক্ষ্যে থাকেনি।

আর্জেন্টিনার একের পর এক আক্রমণের ঝাপটা সামলে ধীরে ধীরে পাল্টা আক্রমণে যেতে শুরু করে গুয়াতেমালা। তবে আর্জেন্টিনার রক্ষণকে খুব একটা পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি তারা।

২৭তম মিনিটে রিভার প্লেট মিডফিল্ডার গনসালো মার্তিনেসের সফল স্পট কিকে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। লে সোলসোর শটে ইলিয়াস ভাসকেসের হ্যান্ডবলে পেনাল্টি পেয়েছিল দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

৩৫তম মিনিটে লো সেলসোর দুর্দান্ত ভলিতে ব্যবধান দ্বিগুণ করে আর্জেন্টিনা। কর্নার থেকে ডি বক্সের বাইরে বল পেয়ে যান লো সেলসো। পিএসজি থেকে ধারে রিয়াল বেতিসে যোগ দেওয়া মিডফিল্ডারের বুলেট গতির ভলি ফেরানোর কোনো সুযোগই ছিল না গোলরক্ষকের।

৪৪তম মিনিটে স্কোর লাইন ৩-০ করে ফেলেন সিমেওনে। এক্সেকুয়েল পালাসিওসের কাছ থেকে বল পেয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন ২৩ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার।

দ্বিতীয়ার্ধে একের পর এক আক্রমণে গুয়াতেমালার রক্ষণকে ব্যতিব্যস্ত রাখে আর্জেন্টিনা। কিন্তু ব্যবধান আর বাড়াতে পারেননি লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

একই দিন প্রীতি ম্যাচে ব্রাজিল ২-০ গোলে যুক্তরাষ্ট্রকে হারিয়েছে। মেক্সিকোকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে উরুগুয়ে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর