আজঃ ৫ই কার্তিক ১৪২৫ - ২০শে অক্টোবর ২০১৮ - সকাল ৭:০৯

জয় দিয়ে শুরু করতে চায় বাংলাদেশ

Published: অক্টো ০১, ২০১৮ - ১:১৫ অপরাহ্ণ

ক্রিড়া ডেস্ক :: সিলেটে আজ শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট। সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে বি-গ্রুপে বাংলাদেশ-লাওস ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে টুর্নামেন্ট। এর আগে আধঘণ্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বি-গ্রুপের অপর দল ফিলিপাইন। এ-গ্রুপে রয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নেপাল, ফিলিস্তিন ও তাজিকিস্তান। রোববার নগরীর স্টার প্যাসিফিক হোটেলে প্রেস ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ, লাওস, ফিলিপাইন ও ফিলিস্তিন দল অংশ নেয়। বিকেলে তাজিকিস্তান দল সিলেট পৌঁছে। রাতে পৌঁছার কথা নেপালের।

সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ব্যর্থতা ভুলে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য মাঠে নামবেন জামাল ভূঁইয়ারা। অধিনায়কের কথায় সাফের হতাশা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলে দূর করার প্রত্যয়। ৫ অক্টোবর গ্রুপের শেষ ম্যাচে স্বাগতিকদের প্রতিপক্ষ ফিলিপাইন। ফিফার র‌্যাংকিংয়ে দু’দলই বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে।

লাওসের বিপক্ষে সবশেষ দেখায় দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও ড্র করেছিল বাংলাদেশ। সিলেটের বিপলু, মতিন, জনি, সুফিলরা নিজেদের মাঠে চেনা দর্শকের সামনে লাওসকে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভসূচনা করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এক ম্যাচ জিতলেই সেমিফাইনালে ওঠার সুযোগ নষ্ট করতে চান না তারা।

২০১৫ সালে ওই মাঠে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে খেলেছিলেন সিলেটের ওয়াহিদ, তখলিস আহমদ ও ইয়াসিন মুন্না। এবার দলে না থাকলেও শুভকামনা রয়েছে তাদের। ঘরের মাঠে খেলা হলেও জাতীয় দলের আরেক নির্ভরযোগ্য স্ট্রাইকার সিলেটের সাদউদ্দিন নেই স্কোয়াডে। সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে বাদ পড়েছেন দল থেকে।

তবে মাঠে না নামলেও থাকছেন খেলোয়াড়দের সঙ্গে। এবারের টুর্নামেন্টের গ্রুপপর্বের ছয়টি ম্যাচই সিলেট স্টেডিয়ামে। সিলেট থেকে সেমিফাইনালে ওঠা চার দল যাবে কক্সবাজারে। ১২ অক্টোবর ঢাকায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফাইনালের মধ্য দিয়ে পর্দা নামবে টুর্নামেন্টের।

Facebook Comments

ক্রিড়া ডেস্ক :: সিলেটে আজ শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট। সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে বি-গ্রুপে বাংলাদেশ-লাওস ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে টুর্নামেন্ট। এর আগে আধঘণ্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বি-গ্রুপের অপর দল ফিলিপাইন। এ-গ্রুপে রয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নেপাল, ফিলিস্তিন ও তাজিকিস্তান। রোববার নগরীর স্টার প্যাসিফিক হোটেলে প্রেস ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ, লাওস, ফিলিপাইন ও ফিলিস্তিন দল অংশ নেয়। বিকেলে তাজিকিস্তান দল সিলেট পৌঁছে। রাতে পৌঁছার কথা নেপালের।

সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ব্যর্থতা ভুলে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য মাঠে নামবেন জামাল ভূঁইয়ারা। অধিনায়কের কথায় সাফের হতাশা বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবলে দূর করার প্রত্যয়। ৫ অক্টোবর গ্রুপের শেষ ম্যাচে স্বাগতিকদের প্রতিপক্ষ ফিলিপাইন। ফিফার র‌্যাংকিংয়ে দু’দলই বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে।

লাওসের বিপক্ষে সবশেষ দেখায় দুই গোলে পিছিয়ে পড়েও ড্র করেছিল বাংলাদেশ। সিলেটের বিপলু, মতিন, জনি, সুফিলরা নিজেদের মাঠে চেনা দর্শকের সামনে লাওসকে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভসূচনা করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এক ম্যাচ জিতলেই সেমিফাইনালে ওঠার সুযোগ নষ্ট করতে চান না তারা।

২০১৫ সালে ওই মাঠে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে খেলেছিলেন সিলেটের ওয়াহিদ, তখলিস আহমদ ও ইয়াসিন মুন্না। এবার দলে না থাকলেও শুভকামনা রয়েছে তাদের। ঘরের মাঠে খেলা হলেও জাতীয় দলের আরেক নির্ভরযোগ্য স্ট্রাইকার সিলেটের সাদউদ্দিন নেই স্কোয়াডে। সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে বাদ পড়েছেন দল থেকে।

তবে মাঠে না নামলেও থাকছেন খেলোয়াড়দের সঙ্গে। এবারের টুর্নামেন্টের গ্রুপপর্বের ছয়টি ম্যাচই সিলেট স্টেডিয়ামে। সিলেট থেকে সেমিফাইনালে ওঠা চার দল যাবে কক্সবাজারে। ১২ অক্টোবর ঢাকায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফাইনালের মধ্য দিয়ে পর্দা নামবে টুর্নামেন্টের।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর