আজঃ ১লা অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ - রাত ৪:৫০

জিন্দবাাজারে আ’লীগ নেতা আহাদ হত্যা : প্রতিবাদে কুয়েতে সভা

Published: সেপ্টে ০২, ২০১৮ - ১০:৪০ অপরাহ্ণ

প্রবাস ডেস্ক :: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আব্দুর আহাদ ঈদের ছুটিতে দেশে গিয়ে সিলেটে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হওয়ার ঘটনায় প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখা ।

রোববার স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখা ও কুয়েত প্রবাসীদের উদ্যোগে কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

এর আগে শনিবার কুয়েত সিটির একটি হোটেলে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কুয়েত আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউল গণি মামুনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক শাহ নেওয়াজ নজরুলের উপস্থাপনায় ওই প্রতিবাদ সভায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অতি দ্রুত খুনিদেন গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি জানান বক্তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটি কুয়েতের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন পাটোয়ারী, বিজনেস কাউন্সিলের সভাপতি লুতফর রহমান মোকাই আলী, আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখার সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ কামাল, আওয়ামী লীগ নেতা ও সাংবাদিক আব্দুর রব মাওলা, আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা মাসুম, শফিকুর রহমান, মঈন উদ্দিনসহ বিভিন্ন সামজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারাসহ গণমাধ্যমকর্মীরা।

এ সময় বক্তারা বলেন, আব্দুল আহাদ ছিল একজন মুজিব আদর্শের সৈনিক। টাকা ও সুবিধা ভোগ করতে অনেককেই দল পাল্টাতে দেখা যায়। কিন্তু আহাদ মুজিব আদর্শ হতে একটুও নড়েনি। দল ও সংগঠনের প্রয়োজনে শত ব্যস্ততার মাঝেও এগিয়ে আসতেন সবার আগে। তার এই অপ্রত্যাশিত মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে কুয়েত প্রবাসীদের মাঝে।

প্রতিবাদ সভা শেষে নিহতের আত্মার মাগফিতার কামনায় দোয়া মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রতিবাদ সভার সমাপ্তি ঘটে।

গত ৩১ আগস্ট দলীয় মিটিং শেষে বাসায় ফেরার পথে রাত সাড়ে ১০টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে ৫-৬ জনের একদল দুর্বৃত্ত জিন্দাবাজার তাঁতিপাড়া গলিতে আব্দুল আহাদকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয়রা তাকে দ্রুত ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১১টায় তার মৃত্যু হয়।

Facebook Comments

প্রবাস ডেস্ক :: বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আব্দুর আহাদ ঈদের ছুটিতে দেশে গিয়ে সিলেটে সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হওয়ার ঘটনায় প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখা ।

রোববার স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখা ও কুয়েত প্রবাসীদের উদ্যোগে কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

এর আগে শনিবার কুয়েত সিটির একটি হোটেলে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কুয়েত আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউল গণি মামুনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক শাহ নেওয়াজ নজরুলের উপস্থাপনায় ওই প্রতিবাদ সভায় সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অতি দ্রুত খুনিদেন গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবি জানান বক্তারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটি কুয়েতের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন পাটোয়ারী, বিজনেস কাউন্সিলের সভাপতি লুতফর রহমান মোকাই আলী, আওয়ামী লীগ কুয়েত শাখার সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ কামাল, আওয়ামী লীগ নেতা ও সাংবাদিক আব্দুর রব মাওলা, আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা মাসুম, শফিকুর রহমান, মঈন উদ্দিনসহ বিভিন্ন সামজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারাসহ গণমাধ্যমকর্মীরা।

এ সময় বক্তারা বলেন, আব্দুল আহাদ ছিল একজন মুজিব আদর্শের সৈনিক। টাকা ও সুবিধা ভোগ করতে অনেককেই দল পাল্টাতে দেখা যায়। কিন্তু আহাদ মুজিব আদর্শ হতে একটুও নড়েনি। দল ও সংগঠনের প্রয়োজনে শত ব্যস্ততার মাঝেও এগিয়ে আসতেন সবার আগে। তার এই অপ্রত্যাশিত মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে কুয়েত প্রবাসীদের মাঝে।

প্রতিবাদ সভা শেষে নিহতের আত্মার মাগফিতার কামনায় দোয়া মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রতিবাদ সভার সমাপ্তি ঘটে।

গত ৩১ আগস্ট দলীয় মিটিং শেষে বাসায় ফেরার পথে রাত সাড়ে ১০টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে ৫-৬ জনের একদল দুর্বৃত্ত জিন্দাবাজার তাঁতিপাড়া গলিতে আব্দুল আহাদকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয়রা তাকে দ্রুত ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১১টায় তার মৃত্যু হয়।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর