আজঃ ৪ঠা ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ - ১৯শে আগস্ট ২০১৮ ইং - রাত ১:০২

জামানত হারালেন জামায়াতের জুবায়েরসহ ৫ মেয়রপ্রার্থী

Published: জুলা ৩১, ২০১৮ - ২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জামানত হারাতে যাচ্ছেন জামায়াতে ইসলামি বাংলাদেশের সিলেট মহানগরের আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়েরসহ ৫ প্রার্থী।

সোমবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এই পাঁচ প্রার্থী জামানত টিকিয়ে রাখতে পারেনি। জামানত ঠিকিয়ে রাখতে যতো ভোটের প্রয়োজন তা তারা রাখতে পারেনি।

নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের চেয়ে ৪ হাজার ৬২৬ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন।

১৩২টি কেন্দ্রে আরিফুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

জানা যায়- স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) নির্বাচন বিধিমালা-২০১০ এর ৪৪ বিধির ৩ উপবিধি অনুযায়ী ভোটগ্রহণ বা ভোট গণনা শেষ হওয়ার পর যদি দেখা যায় কোনও প্রার্থী প্রদত্ত ভোটের ৮ শতাংশ ভোট পেতে ব্যর্থ হয়েছেন, তাহলে তার জামানত সরকারের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত হবে। এবারের সিসিক নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ১ লক্ষ ৯৮ হাজার ৬শত ৫৭ জন ভোটার। মোট ভোটারের ৬২ শতাংশ ভোট প্রয়োগ করেন ভোটাররা। এরমধ্যে জামানত ঠিকিয়ে রাখতে ওই পাঁচ মেয়র প্রার্থীদের ভোট প্রয়োজন ছিল ১৬ হাজারের মতো উপরে। কিন্তু কাজের মতো সেই কাজ করতে পারেন নি ওই পাঁচ প্রার্থী। কিন্তু ৫ প্রার্থীর কেউই এ পরিমাণ ভোট পাননি।

কমিশন সূত্রে জানা যায়- নাগরিক ফোরামের প্রার্থী মহানগর জামায়াতে ইসলামির আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়ের টেবিল ঘড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ১০ হাজার ৯ শত ৫৪ ভোট; ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী ডা. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন হাত পাখা প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ১ শত ৯৫ ভোট; সিপিবি-বাসদ মনোনীত প্রার্থী আবু জাফর মই প্রতীকে পেয়েছেন ৯ শত ভোট; নাগরিক কমিটির প্রার্থী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম বাসগাড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ৫ শত ৮২ ভোট; এবং সচেতন নাগরিক সমাজের প্রার্থী মো. এহছানুল হক তাহের হরিণ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ শত ৯২ ভোট।

এছাড়া স্থগিত হওয়া দুটি কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ৪ হাজার ৮ শত ৭৭ জন।

স্থগিত দুই কেন্দ্রের সবগুলো ভোট পেলেও এই পাঁচ প্রার্থীর কারোরই জামানত টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে না।

উল্লেখ্য- সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩ লক্ষ ২১ হাজার ৭৩২ জন ভোটার ছিলেন।

Facebook Comments

আরো খবর

বাঙালি জাতির প্রাণপুরুষ বঙ্গবন্ধু : লুৎফুর রহমান... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেট জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা...
গোলাপগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের গোলাগুলি চলছে... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেটের গোলাপগঞ্জে স্থানীয় স্বেচ্ছ...
লালাবাজারে একঘণ্টার ব্যবধানে ফের দুর্ঘটনা, আহত ২... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লালাব...
পুনঃনিরীক্ষণে সিলেটে ফেল থেকে পাস করেছে ১৭ জন... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: এইচএসসি পুনঃনিরীক্ষণে সিলেট বোর্ডে...
ঘরে ফেরার আন্দোলনে ১৬৬ ফিলিস্তিনি নিহত... আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: ১৯৪৮ সালে দখলদার ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠি...

সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জামানত হারাতে যাচ্ছেন জামায়াতে ইসলামি বাংলাদেশের সিলেট মহানগরের আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়েরসহ ৫ প্রার্থী।

সোমবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এই পাঁচ প্রার্থী জামানত টিকিয়ে রাখতে পারেনি। জামানত ঠিকিয়ে রাখতে যতো ভোটের প্রয়োজন তা তারা রাখতে পারেনি।

নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের চেয়ে ৪ হাজার ৬২৬ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন।

১৩২টি কেন্দ্রে আরিফুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

জানা যায়- স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) নির্বাচন বিধিমালা-২০১০ এর ৪৪ বিধির ৩ উপবিধি অনুযায়ী ভোটগ্রহণ বা ভোট গণনা শেষ হওয়ার পর যদি দেখা যায় কোনও প্রার্থী প্রদত্ত ভোটের ৮ শতাংশ ভোট পেতে ব্যর্থ হয়েছেন, তাহলে তার জামানত সরকারের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত হবে। এবারের সিসিক নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ১ লক্ষ ৯৮ হাজার ৬শত ৫৭ জন ভোটার। মোট ভোটারের ৬২ শতাংশ ভোট প্রয়োগ করেন ভোটাররা। এরমধ্যে জামানত ঠিকিয়ে রাখতে ওই পাঁচ মেয়র প্রার্থীদের ভোট প্রয়োজন ছিল ১৬ হাজারের মতো উপরে। কিন্তু কাজের মতো সেই কাজ করতে পারেন নি ওই পাঁচ প্রার্থী। কিন্তু ৫ প্রার্থীর কেউই এ পরিমাণ ভোট পাননি।

কমিশন সূত্রে জানা যায়- নাগরিক ফোরামের প্রার্থী মহানগর জামায়াতে ইসলামির আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়ের টেবিল ঘড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ১০ হাজার ৯ শত ৫৪ ভোট; ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী ডা. মো. মোয়াজ্জেম হোসেন হাত পাখা প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ১ শত ৯৫ ভোট; সিপিবি-বাসদ মনোনীত প্রার্থী আবু জাফর মই প্রতীকে পেয়েছেন ৯ শত ভোট; নাগরিক কমিটির প্রার্থী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম বাসগাড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ৫ শত ৮২ ভোট; এবং সচেতন নাগরিক সমাজের প্রার্থী মো. এহছানুল হক তাহের হরিণ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ শত ৯২ ভোট।

এছাড়া স্থগিত হওয়া দুটি কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ৪ হাজার ৮ শত ৭৭ জন।

স্থগিত দুই কেন্দ্রের সবগুলো ভোট পেলেও এই পাঁচ প্রার্থীর কারোরই জামানত টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে না।

উল্লেখ্য- সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৩ লক্ষ ২১ হাজার ৭৩২ জন ভোটার ছিলেন।

Facebook Comments

আরো খবর

বাঙালি জাতির প্রাণপুরুষ বঙ্গবন্ধু : লুৎফুর রহমান... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেট জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা...
গোলাপগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের গোলাগুলি চলছে... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেটের গোলাপগঞ্জে স্থানীয় স্বেচ্ছ...
লালাবাজারে একঘণ্টার ব্যবধানে ফের দুর্ঘটনা, আহত ২... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লালাব...
পুনঃনিরীক্ষণে সিলেটে ফেল থেকে পাস করেছে ১৭ জন... সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক :: এইচএসসি পুনঃনিরীক্ষণে সিলেট বোর্ডে...
ঘরে ফেরার আন্দোলনে ১৬৬ ফিলিস্তিনি নিহত... আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: ১৯৪৮ সালে দখলদার ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠি...