আজঃ ১১ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - সকাল ৯:৫০

জাফর ইকবালের নিরাপত্তায় ত্রুটি ছিল না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Published: মার্চ ০৪, ২০১৮ - ২:৪৪ অপরাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ মুহম্মদ জাফর ইকবালের নিরাপত্তার কোনো ত্রুটি ছিল না বলে দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

রবিবার সকালে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের নাজনীন স্কুল অ্যান্ড কলেজে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে দাবি করেন মন্ত্রী।

জাফর ইকবালের ওপর হামলার হুমকি ছিল বারবার। ২০১৬ সালের ১২ অক্টোবর জাফর ইকবালের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে বার্তা পাঠানো হয়। ওই বার্তায় লেখা ছিল Hi Unbeliever! We will strangulate you soon’।

এর আগে ২০১৫ সালের ২১ মে ডাকযোগে পাঠানো ইংরেজিতে লেখা একটি চিঠিতে মুহম্মদ জাফর ইকবালসহ ১০ বিশিষ্ট নাগরিককে হত্যার হুমকি দেয় আল কায়েদা-আনসারুল্লাহ বাংলাটিম।

আর পুলিশ সদরদপ্তরের সিদ্ধান্তে ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে জাফর ইকবালকে সশস্ত্র পুলিশি নিরাপত্তা দেয়া হয়। তখন দিনের বেলায় দুজন এবং রাতে তিনজন সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়।

শনিবার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বরেণ্য এই শিক্ষাবিদের ওপর হামলার সময় মঞ্চেই ছিলেন কয়েকজন পুলিশ সদস্য। এদের মধ্যে দুইজন মোবাইলে ফোন ঘাঁটাঘাঁটিতে ব্যস্ত ছিলেন। আর জাফর ইকবালের পেছনে দাঁড়ানো যুবকই ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন তার ওপর। হামলার পর পরই সেখানে উপস্থিত সাধারণ ছাত্ররা ওই যুবককে আটক করতে সক্ষম হলেও পুলিশ সদস্যরা তা পারেনি।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, ‘ঘটনাস্থলে নিরাপত্তার কোনো ত্রুটি ছিল না। ত্রুটি থাকলে হামলাকারী ধরা পড়ত না। হামলাকারী ধরা পড়েছে, তার কাছে হামলার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারব।’

ছাত্র না হওয়ার পরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে কীভাবে হামলাকারী ঘটনাস্থলে গেছে- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তদন্ত করে দেখছি। তারপর বিস্তারিত জানা যাবে।’

কোনো উগ্রবাদী গোষ্ঠী হামলা চালিয়েছে কি না- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘এজন্য আপনাদের আরেকটু অপেক্ষা করতে হবে। তার জবানবন্দিটা নিয়ে নেই। কেন বা কারা এই হামলা করেছে জানতে পারব।’

হামলাকারী সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘যতটুকু জানতে পেরেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই তার একটা কম্পিউটারের দোকান ছিল। সে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে, তার কাছে হামলার উদ্দেশ্য জানতে পারব।’

শনিবার জাফর ইকবালের ওপর হামলার পর সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে রাতে তাকে আনা হয় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল- সিএমএইচে।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: বিশিষ্ট লেখক ও শিক্ষাবিদ মুহম্মদ জাফর ইকবালের নিরাপত্তার কোনো ত্রুটি ছিল না বলে দাবি করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

রবিবার সকালে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের নাজনীন স্কুল অ্যান্ড কলেজে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে দাবি করেন মন্ত্রী।

জাফর ইকবালের ওপর হামলার হুমকি ছিল বারবার। ২০১৬ সালের ১২ অক্টোবর জাফর ইকবালের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে বার্তা পাঠানো হয়। ওই বার্তায় লেখা ছিল Hi Unbeliever! We will strangulate you soon’।

এর আগে ২০১৫ সালের ২১ মে ডাকযোগে পাঠানো ইংরেজিতে লেখা একটি চিঠিতে মুহম্মদ জাফর ইকবালসহ ১০ বিশিষ্ট নাগরিককে হত্যার হুমকি দেয় আল কায়েদা-আনসারুল্লাহ বাংলাটিম।

আর পুলিশ সদরদপ্তরের সিদ্ধান্তে ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে জাফর ইকবালকে সশস্ত্র পুলিশি নিরাপত্তা দেয়া হয়। তখন দিনের বেলায় দুজন এবং রাতে তিনজন সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত হয়।

শনিবার শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বরেণ্য এই শিক্ষাবিদের ওপর হামলার সময় মঞ্চেই ছিলেন কয়েকজন পুলিশ সদস্য। এদের মধ্যে দুইজন মোবাইলে ফোন ঘাঁটাঘাঁটিতে ব্যস্ত ছিলেন। আর জাফর ইকবালের পেছনে দাঁড়ানো যুবকই ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন তার ওপর। হামলার পর পরই সেখানে উপস্থিত সাধারণ ছাত্ররা ওই যুবককে আটক করতে সক্ষম হলেও পুলিশ সদস্যরা তা পারেনি।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, ‘ঘটনাস্থলে নিরাপত্তার কোনো ত্রুটি ছিল না। ত্রুটি থাকলে হামলাকারী ধরা পড়ত না। হামলাকারী ধরা পড়েছে, তার কাছে হামলার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারব।’

ছাত্র না হওয়ার পরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে কীভাবে হামলাকারী ঘটনাস্থলে গেছে- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তদন্ত করে দেখছি। তারপর বিস্তারিত জানা যাবে।’

কোনো উগ্রবাদী গোষ্ঠী হামলা চালিয়েছে কি না- এমন প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘এজন্য আপনাদের আরেকটু অপেক্ষা করতে হবে। তার জবানবন্দিটা নিয়ে নেই। কেন বা কারা এই হামলা করেছে জানতে পারব।’

হামলাকারী সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘যতটুকু জানতে পেরেছি, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই তার একটা কম্পিউটারের দোকান ছিল। সে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে, তার কাছে হামলার উদ্দেশ্য জানতে পারব।’

শনিবার জাফর ইকবালের ওপর হামলার পর সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে রাতে তাকে আনা হয় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল- সিএমএইচে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর