রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন

জনভিত্তি না থাকায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে ভাঙন : আওয়ামী লীগ

জনভিত্তি না থাকায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে ভাঙন : আওয়ামী লীগ

প্রতিদিন ডেস্ক :: জনভিত্তি ছাড়া কোনো ঐক্য টিকতে পারে না। আমরা আগেই বলেছিলাম ড. কামাল ও বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি. চৌধুরী) দের ঐক্যে কোনো ফলাফল আসবে না। কারণ শূন্য যোগ শূন্য সমান শূন্যই হয়। অনেকগুলো শূন্য যোগ করলেও অন্য কোনো অঙ্কের ফিগার দাঁড়াবে না। কারণ এসব নেতা ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত, কিন্তু জনভিত্তি নেই। কথাগুলো বলেন, আওয়ামী লীগের দু’জন প্রেসিডিয়াম সদস্য কর্নেল (অব.) মুহম্মদ ফারুক খান ও ড. আবদুর রাজ্জাক।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট- এর সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করার ঘোষণা দিয়েছেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ও যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান, সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি চৌধুরী) এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী কর্নেল (অব.) মুহম্মদ ফারুক খান বলেন, ড. কামাল ও বি. চৌধুরীরা ঐক্য করলো কি না করলো সেটা নিয়ে আমাদের কোনো মাথাব্যথা নেই। তবে তাদের ঐক্য করায় মোটামুটি খুশি হয়েছিলাম যে এই ঐক্য নির্বাচনে অংশ নেবে।

তিনি বলেন, যারা একত্রিত হয়ে ঐক্য করেছে তাদের সবাইকে মানুষ চেনে। তারা কখন কোন রাজনৈতিক দল করেছেন সেটাও মানুষ জানে। তবে ঐক্য থাকুক আর না থাকুক তারা যেন নির্বাচনে অংশ নেয়। অতীত ভুলে নতুন করে গঠনমূলক কিছু করলে খুশি হবো।

এ সংক্রান্ত আরেক প্রশ্নের জবাবে সাবেক খাদ্যমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক জাগো নিউজকে বলেন, যখন তারা ঐক্য করে তখনই বলে দিয়েছি ঐক্য হলেও আমরা শঙ্কিত না। কারণ তাদের আমরাও চিনি বাংলাদেশের মানুষও চেনে। বাংলাদেশের মানুষ তাদের চেনে ব্যক্তি হিসেবে। তাদের ঐক্য কোনো কাজে আসবে না। কারণ শূন্য যোগ শূন্য সমান শূন্যই হয়। এ পথ হারা পাখি। তাদের প্রত্যেকের ব্যক্তিগত একটা ভাবমূর্তি আছে। কিন্তু জনভিত্তি নেই। এ কারণে রাজনীতিতে তারা সফল হতে পারবে না। তবে বিএনপি নিঃসন্দেহে একটা বড় দল। কিন্তু দুর্নীতি আর লুটপাটের কারণে তারাও তাদের গ্রহণযোগ্যতা হারিয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার সন্ধ্যায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট- এর সঙ্গে সম্পর্কছেদ করার ঘোষণা দিয়েছেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ও যুক্তফ্রন্ট চেয়ারম্যান, সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী (বি চৌধুরী)। তবে তাদের (বিকল্পধারা) দুটি শর্ত পূরণ হলেই ঐক্য প্রক্রিয়ায় যুক্ত হবে বিকল্পধারা।

শর্ত দু’টি প্রসঙ্গে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, যুদ্ধাপরাধী ও স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে কোনো ঐক্য প্রক্রিয়ায় আমরা যুক্ত হবো না। আমরা ভারসাম্যের রাজনীতি চাই। কোনো একক দলের আধিপত্য চাই না। এছাড়া সংসদে ভারসাম্য এবং স্বেচ্ছাচারিতা বন্ধ করতে নিজ দলের জন্য ১৫০ আসন দাবি করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন






© All rights reserved © 2019 sylhetprotidin24