আজঃ ৪ঠা কার্তিক ১৪২৫ - ১৯শে অক্টোবর ২০১৮ - ভোর ৫:৪৬

জগন্নাথপুরে প্রবাসীর বাড়ী ডাকাতি : ৩ ডাকাত গ্রেফতার

Published: এপ্রি ১৭, ২০১৮ - ৮:৫৪ অপরাহ্ণ

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে দুই প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ তিন ডাকাত দলের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে।

মঙ্গলবার তাদেরকে সুনামগঞ্জ কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হচ্ছে উপজেলার সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নের ব্রাক্ষনগাঁও গ্রামের আবদুল জলিলের ছেলে এনামুল হোসেন, উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের লাউতলা গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে রফুমিয়া ও বিশ্বনাথ উপজেলার রমজানপুর গ্রামের রইছ আলীর ছেলে আসমান আলী।

পুলিশ সূত্র জানায়, গত ১২এপ্রিল একদল ডাকাত উপজেলার সৈয়দপুর শাহারপাড় ইউনিয়নের ব্রাহ্মনগাঁও গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী আকমল হোসেন ও তার চাচা সৌদি আরব প্রবাসী আবুল বশরের ঘরে হানা দিয়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ প্রায় ৩৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

এঘটনায় যুক্তরাজ প্রবাসী আকমল হোসেনের বাবা আবুল হোসেন বাদী জগন্নাথপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এরপর থেকে পুলিশ ডাকাতদের গ্রেফতার করতে একাধিক স্থানে অভিযান চালায়। সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের এরালিয়াবাজার সংলগ্ন হাওর থেকে এলাকাবাসীর সহায়তায় তিন ডাকাত দলের সদস্যকে গ্রেফতার করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক লুৎফুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গ্রেফতারকৃত তিন ডাকাত প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

তাদেরকে সুনামগঞ্জ জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে বলেন, অভিযানকালে ধৃতডাকাত রফু মিয়ার কাছে ৩৪পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়।

জগন্নাথপুর থানার ওসি হারুনুর রশিদ চৌধুরী জানান, গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের ১০দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। এছাড়াও ইয়াবা থাকার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে মাদক দ্রব্যআইনে আরেকটি মামলা দায়ের করে।

এদিকে – মালামাল সম্পর্কে কোনো ধরনের হদিস পাননি বলে মামলার বাদী আবুল হোসেন বলেন, আমাদের মালামাল যাতে পাই। সেদিকে প্রশাসন একটু বেশি নজরদারী হতে হবে। পাশাপাশি ডাকাতির ঘটনার মুলহোতাকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে আহ্বান জানিয়েছেন।

ভোক্তভোগীদের মালামাল উদ্ধার করতে পুলিশ সর্বাত্মক কাজ করছে বলে মামলার তদন্তকারী লুৎফুর রহমান জানিয়েছেন।

পূর্বের সংবাদ : 

জগন্নাথপুরে প্রবাসীর বাড়ীতে ডাকাতি : ৩৫ লক্ষ টাকার মালামাল লুট

Facebook Comments

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে দুই প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ তিন ডাকাত দলের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে।

মঙ্গলবার তাদেরকে সুনামগঞ্জ কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হচ্ছে উপজেলার সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নের ব্রাক্ষনগাঁও গ্রামের আবদুল জলিলের ছেলে এনামুল হোসেন, উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের লাউতলা গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে রফুমিয়া ও বিশ্বনাথ উপজেলার রমজানপুর গ্রামের রইছ আলীর ছেলে আসমান আলী।

পুলিশ সূত্র জানায়, গত ১২এপ্রিল একদল ডাকাত উপজেলার সৈয়দপুর শাহারপাড় ইউনিয়নের ব্রাহ্মনগাঁও গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী আকমল হোসেন ও তার চাচা সৌদি আরব প্রবাসী আবুল বশরের ঘরে হানা দিয়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ প্রায় ৩৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

এঘটনায় যুক্তরাজ প্রবাসী আকমল হোসেনের বাবা আবুল হোসেন বাদী জগন্নাথপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এরপর থেকে পুলিশ ডাকাতদের গ্রেফতার করতে একাধিক স্থানে অভিযান চালায়। সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের এরালিয়াবাজার সংলগ্ন হাওর থেকে এলাকাবাসীর সহায়তায় তিন ডাকাত দলের সদস্যকে গ্রেফতার করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক লুৎফুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গ্রেফতারকৃত তিন ডাকাত প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

তাদেরকে সুনামগঞ্জ জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে বলেন, অভিযানকালে ধৃতডাকাত রফু মিয়ার কাছে ৩৪পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায়।

জগন্নাথপুর থানার ওসি হারুনুর রশিদ চৌধুরী জানান, গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের ১০দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। এছাড়াও ইয়াবা থাকার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে মাদক দ্রব্যআইনে আরেকটি মামলা দায়ের করে।

এদিকে – মালামাল সম্পর্কে কোনো ধরনের হদিস পাননি বলে মামলার বাদী আবুল হোসেন বলেন, আমাদের মালামাল যাতে পাই। সেদিকে প্রশাসন একটু বেশি নজরদারী হতে হবে। পাশাপাশি ডাকাতির ঘটনার মুলহোতাকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে আহ্বান জানিয়েছেন।

ভোক্তভোগীদের মালামাল উদ্ধার করতে পুলিশ সর্বাত্মক কাজ করছে বলে মামলার তদন্তকারী লুৎফুর রহমান জানিয়েছেন।

পূর্বের সংবাদ : 

জগন্নাথপুরে প্রবাসীর বাড়ীতে ডাকাতি : ৩৫ লক্ষ টাকার মালামাল লুট

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর