আজঃ ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ - রাত ২:৪৬

ছাত্রলীগের তাৎক্ষণিক সভা, পণ্ড হল কাদের সিদ্দিকীর পথসভা

Published: নভে ০৯, ২০১৮ - ১:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: টাঙ্গাইল শহরের শহীদ মিনারে একই স্থানে ছাত্রলীগের পাল্টা সভা ডাকায় পণ্ড হয়ে গেছে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর পথসভা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় স্থানীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে পথসভা করার কথা ছিল কাদের সিদ্দিকীর। জাতীয় ঐক্যফন্টে যোগ দেয়ার পর টাঙ্গাইলে পথসভার কথা ছিল কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের এই নেতার। কিন্তু সেটা তিনি করতে পারেনি।

পাল্টা-পাল্টি সভা ডাকার জের ধরে শহরের পৌর উদ্যানসহ বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছে জেলা পুলিশ প্রশাসন। ছাত্রলীগের দাবি, তারা কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে কোনো পাল্টা সভা ডাকেনি। ঘটনাস্থলে তাদের পূর্বনির্ধারিত সভা ছিল।

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে টাঙ্গাইলে ফেরার পথে কাদের সিদ্দিকী শহরের শহীদ মিনারে পথসভা করতে চেয়েছিলেন। মির্জাপুরের গোড়াই পাড় হয়ে খবর পাওয়া যায়, শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের লোকজন দখল করেছে। এসময় পুলিশও শহীদ মিনার ও আশপাশে অবস্থান নেয়। কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভার জন্য মাইক টানাতে বাধা দেয় ছাত্রলীগের লোকজন। কিন্তু কাদের সিদ্দিকী কোনো অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে দিতে চাননি। তাই তিনি সেখানে পথসভা করতে যাননি।

জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে স্বাগত জানাতে আগে থেকে ছাত্রলীগ একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শহীদ মিনারে। সেখানে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কোনো পথসভা ছিল বলে জানা ছিল না।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক সায়েদুর রহমান বলেন, কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য দেয়ার মতো পরিবেশ সেখানে ছিল না। এজন্য হয়তো তারা পথসভা করেনি। নিরাপত্তার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সেখানে মোতায়েন ছিল।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন ডেস্ক :: টাঙ্গাইল শহরের শহীদ মিনারে একই স্থানে ছাত্রলীগের পাল্টা সভা ডাকায় পণ্ড হয়ে গেছে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর পথসভা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় স্থানীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে পথসভা করার কথা ছিল কাদের সিদ্দিকীর। জাতীয় ঐক্যফন্টে যোগ দেয়ার পর টাঙ্গাইলে পথসভার কথা ছিল কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের এই নেতার। কিন্তু সেটা তিনি করতে পারেনি।

পাল্টা-পাল্টি সভা ডাকার জের ধরে শহরের পৌর উদ্যানসহ বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছে জেলা পুলিশ প্রশাসন। ছাত্রলীগের দাবি, তারা কাদের সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে কোনো পাল্টা সভা ডাকেনি। ঘটনাস্থলে তাদের পূর্বনির্ধারিত সভা ছিল।

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে টাঙ্গাইলে ফেরার পথে কাদের সিদ্দিকী শহরের শহীদ মিনারে পথসভা করতে চেয়েছিলেন। মির্জাপুরের গোড়াই পাড় হয়ে খবর পাওয়া যায়, শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের লোকজন দখল করেছে। এসময় পুলিশও শহীদ মিনার ও আশপাশে অবস্থান নেয়। কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভার জন্য মাইক টানাতে বাধা দেয় ছাত্রলীগের লোকজন। কিন্তু কাদের সিদ্দিকী কোনো অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে দিতে চাননি। তাই তিনি সেখানে পথসভা করতে যাননি।

জেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে স্বাগত জানাতে আগে থেকে ছাত্রলীগ একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শহীদ মিনারে। সেখানে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের কোনো পথসভা ছিল বলে জানা ছিল না।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক সায়েদুর রহমান বলেন, কাদের সিদ্দিকীর বক্তব্য দেয়ার মতো পরিবেশ সেখানে ছিল না। এজন্য হয়তো তারা পথসভা করেনি। নিরাপত্তার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সেখানে মোতায়েন ছিল।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর