আজঃ ১১ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - রাত ৯:৪৪

চিরকুটে বেঁচে থাকল ভালোবাসা

Published: মার্চ ১৩, ২০১৮ - ৫:২৬ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত বাংলাদেশের বেসরকারি বিমানসংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি উড়োজাহাজ। সোমবার দুপুরের একটি মুহূর্তে ঝরে গেছে তাজা ৫০টি প্রাণ।

বাংলাদেশিদের সঙ্গে নিহতদের মধ্যে রয়েছে নেপালীরাও। বাংলাদেশি যারা বিমানটিতে ছিলেন তাদের কেউ যাচ্ছিলেন ছুটি কাটাতে, কেউ বিবাহবার্ষিকী উদযাপানে। বিধ্বস্ত হয়ে বিমানটিতে আগুন ধরে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুড়েছে তাদের ঘিরে থাকা অসংখ্য স্বপ্নও।

শুভ্র মেঘ ছুয়ে যে বিমানটি অবতরণ করতে চেয়েছিল কাঠমান্ডুর ত্রিভূবন ইন্টারন্যাশনাল বিমানবন্দরে সে বিমানটিরিই সবকিছু ছাই হয়েছে আগুনে পুড়ে।

ধূসর ছাই, কালো ধ্বংসাবশেষের মধ্যেও বেঁচে আছে কত শত আবেগ। ত্রিভূবন এয়ারপোর্টে পাওয়া একটা চিরকুটে যেন কথা বলছে সেই আবেগরই।

ওখানে পাওয়া একটা চিরকুটে ইংরেজিতে লেখা- ‘আই ডোন্ট নো হোয়েদার ইউ ইউল লাইক ইট অর নট বাট, অয়ের ইট।’ অর্থ করলে দাঁড়ায়- আমি জানি না তোমার এটা পছন্দ হবে কি না, কিন্তু পরো।

বিমানে থাকা যাত্রীদের কেউ হয়তো তার কোনো প্রিয়জনের জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন কোনো পোশাক। হয়তো যা দিতে চেয়েছিলেন সারপ্রাইজ হিসেবে।

চিরকুটটি কার বা কার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সে সব কিছুই এখনো জানা যায়নি।

তবে হাতের লেখা দেখে কেউ হয়তো চিনে নেবেন চিরকুটটির প্রাপক তিনিই। তার জন্যই কেউ নিয়ে আসছিলেন কোনো উপহার, ভালোবাসামাখা।

Facebook Comments

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত বাংলাদেশের বেসরকারি বিমানসংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি উড়োজাহাজ। সোমবার দুপুরের একটি মুহূর্তে ঝরে গেছে তাজা ৫০টি প্রাণ।

বাংলাদেশিদের সঙ্গে নিহতদের মধ্যে রয়েছে নেপালীরাও। বাংলাদেশি যারা বিমানটিতে ছিলেন তাদের কেউ যাচ্ছিলেন ছুটি কাটাতে, কেউ বিবাহবার্ষিকী উদযাপানে। বিধ্বস্ত হয়ে বিমানটিতে আগুন ধরে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুড়েছে তাদের ঘিরে থাকা অসংখ্য স্বপ্নও।

শুভ্র মেঘ ছুয়ে যে বিমানটি অবতরণ করতে চেয়েছিল কাঠমান্ডুর ত্রিভূবন ইন্টারন্যাশনাল বিমানবন্দরে সে বিমানটিরিই সবকিছু ছাই হয়েছে আগুনে পুড়ে।

ধূসর ছাই, কালো ধ্বংসাবশেষের মধ্যেও বেঁচে আছে কত শত আবেগ। ত্রিভূবন এয়ারপোর্টে পাওয়া একটা চিরকুটে যেন কথা বলছে সেই আবেগরই।

ওখানে পাওয়া একটা চিরকুটে ইংরেজিতে লেখা- ‘আই ডোন্ট নো হোয়েদার ইউ ইউল লাইক ইট অর নট বাট, অয়ের ইট।’ অর্থ করলে দাঁড়ায়- আমি জানি না তোমার এটা পছন্দ হবে কি না, কিন্তু পরো।

বিমানে থাকা যাত্রীদের কেউ হয়তো তার কোনো প্রিয়জনের জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন কোনো পোশাক। হয়তো যা দিতে চেয়েছিলেন সারপ্রাইজ হিসেবে।

চিরকুটটি কার বা কার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সে সব কিছুই এখনো জানা যায়নি।

তবে হাতের লেখা দেখে কেউ হয়তো চিনে নেবেন চিরকুটটির প্রাপক তিনিই। তার জন্যই কেউ নিয়ে আসছিলেন কোনো উপহার, ভালোবাসামাখা।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর