আজঃ ২৬শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১০ই ডিসেম্বর ২০১৮ - দুপুর ১:৪৬

চলে গেলেন নোবেলজয়ী ঔপন্যাসিক ভি এস নাইপল

Published: আগ ১২, ২০১৮ - ৫:১৯ অপরাহ্ণ

প্রতিদিন ডেস্ক :: নোবেলজয়ী ঔপন্যাসিক ভি এস নাইপল আর নেই। শনিবার তিনি লন্ডনের নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। স্ত্রী নাদিরা নাইপলের বরাত দিয়ে ব্রিটেনের প্রেস অ্যাসোসিয়েশন এ তথ্য জানিয়েছে।

১৯৩২ সালের ১৭ আগস্ট ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাকোতে এক ভারতীয় পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন নাইপল। তবে তিনি তার জীবনের বেশির ভাগ সময় ইংল্যান্ডে কাটিয়েছেন।

২০০১ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পাওয়া নাইপল ৩০টির বেশি বই লিখেছেন। যার মধ্যে ‘ইন এ ফ্রি স্টেট’, ‘এ বেন্ড ইন দ্য রিভার’, ‘এ হাউস ফর মিস্টার বিশ্বাস’ অন্যতম। নোবেল কমিটির প্রশংসাপত্রে নাইপলকে জোসেফ কনরাডের উত্তরসূরি হিসেবে অভিহিত করা হয়। ১৯৭১ সালে ‘ইন এ ফ্রি স্টেট’ উপন্যাসের জন্য বুকার পান এই ঔপন্যাসিক।

নাইপলকে ‘সব অর্জন মিলিয়ে একজন কিংবদন্তি’ উল্লেখ করে তার স্ত্রী বলেছেন, নাইপল যাদের ভালোবাসতেন, যাদের সঙ্গে উদ্যমী ও সৃষ্টিশীল অসাধারণ এক জীবন কাটিয়েছেন, তার শেষ সময়টাও তাদের সান্নিধ্যেই কেটেছে।

নাইপলের ঘনিষ্ঠ বন্ধু দ্য মেইল সম্পাদক জেরার্ডি গ্রেগ শোক প্রকাশ করে বলেছেন, ‘তার মৃত্যুতে ব্রিটেনের সাহিত্য ঐতিহ্য নিঃসন্দেহে ক্ষতিগ্রস্ত হলো। কিন্তু তার বইগুলো বেঁচে থাকবে।’

নাইপল অক্সফোর্ডে ইংরেজি সাহিত্যে পড়াশুনা করেছেন। যুক্তরাজ্যে স্থায়ী হলেও তিনি ঘুরে বেড়িয়েছেন বিশ্বময়। ২০১৬ সালে ঢাকা লিট ফেস্টে অতিথি হিসেবে এসেছিলেন কিংবদন্তি এই লেখক। সূত্র: সিএনএন ও বিবিসি

Facebook Comments

প্রতিদিন ডেস্ক :: নোবেলজয়ী ঔপন্যাসিক ভি এস নাইপল আর নেই। শনিবার তিনি লন্ডনের নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। স্ত্রী নাদিরা নাইপলের বরাত দিয়ে ব্রিটেনের প্রেস অ্যাসোসিয়েশন এ তথ্য জানিয়েছে।

১৯৩২ সালের ১৭ আগস্ট ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাকোতে এক ভারতীয় পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন নাইপল। তবে তিনি তার জীবনের বেশির ভাগ সময় ইংল্যান্ডে কাটিয়েছেন।

২০০১ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পাওয়া নাইপল ৩০টির বেশি বই লিখেছেন। যার মধ্যে ‘ইন এ ফ্রি স্টেট’, ‘এ বেন্ড ইন দ্য রিভার’, ‘এ হাউস ফর মিস্টার বিশ্বাস’ অন্যতম। নোবেল কমিটির প্রশংসাপত্রে নাইপলকে জোসেফ কনরাডের উত্তরসূরি হিসেবে অভিহিত করা হয়। ১৯৭১ সালে ‘ইন এ ফ্রি স্টেট’ উপন্যাসের জন্য বুকার পান এই ঔপন্যাসিক।

নাইপলকে ‘সব অর্জন মিলিয়ে একজন কিংবদন্তি’ উল্লেখ করে তার স্ত্রী বলেছেন, নাইপল যাদের ভালোবাসতেন, যাদের সঙ্গে উদ্যমী ও সৃষ্টিশীল অসাধারণ এক জীবন কাটিয়েছেন, তার শেষ সময়টাও তাদের সান্নিধ্যেই কেটেছে।

নাইপলের ঘনিষ্ঠ বন্ধু দ্য মেইল সম্পাদক জেরার্ডি গ্রেগ শোক প্রকাশ করে বলেছেন, ‘তার মৃত্যুতে ব্রিটেনের সাহিত্য ঐতিহ্য নিঃসন্দেহে ক্ষতিগ্রস্ত হলো। কিন্তু তার বইগুলো বেঁচে থাকবে।’

নাইপল অক্সফোর্ডে ইংরেজি সাহিত্যে পড়াশুনা করেছেন। যুক্তরাজ্যে স্থায়ী হলেও তিনি ঘুরে বেড়িয়েছেন বিশ্বময়। ২০১৬ সালে ঢাকা লিট ফেস্টে অতিথি হিসেবে এসেছিলেন কিংবদন্তি এই লেখক। সূত্র: সিএনএন ও বিবিসি

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর