আজঃ ৮ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - সকাল ৭:৩৯

গোয়ালাবাজারে মাইক্রোবাস চালককে আটকের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ ভোগান্তিতে যাত্রীরা

Published: মার্চ ০৩, ২০১৮ - ১০:৪৯ অপরাহ্ণ

ওসমানীনগর সংবাদদাতা::ওসমানীনগরের গোয়ালাবাজারে মাইক্রোবাস চালক আটকের প্রতিবাদে শ্রমিকরা গাছ ফেলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে। প্রায় দুই ঘন্টা ধরে অবরোধের কারণে মহাসড়কের দুই পাশে হাজার হাজার যানবাহন আটকা পড়েছে। এতে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন যাত্রীরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শ্রমিকরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে লাটিসোটা নিয়ে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করছে।

জানা যায়, আজ বিকাল আনুমানিক তিনটায় গোয়ালাবাজারে লাইটেস স্ট্যান্ডের কাছাকাছি এলাকায় একটি জুয়ার আসরে  ওসমানীনগর থানা পুলিশ এক অভিযান চালায়। এস আই বাদল মিয়া্র নেতৃত্বে অভিযানে ঘটনাস্থল থেকে লিটন মিয়া নামক এক মাইক্রো শ্রমিককে আটক করে থানা পুলিশ।

কিন্তু শ্রমিকদের দাবী সেখানে সে প্রশ্রাব করতে গিয়েছিল। এ সময় ড্রাইভার লিটনকে মাইক্রো অফিসে এনে পুলিশ তার সাথে আর কে কে ছিলো জিজ্ঞাসাবাদ ও মারধর করেন বলে অভিযোগ করেন শ্রমিকরা। এসময় ক্ষিপ্ত শ্রমিকরা মাইক্রো অফিসে পুলিশকে আটকে রাখে এবং ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানার ওসি ঘটনাস্থলে পৌছে কিছু সময় পর লিটনকে ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে থানায় নিয়ে যান। কয়েক ঘন্টা পরে থানা থেকে জানানো হয় আসামীকে ছাড়া যাবেনা। এ খবরে শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে রাত ৮ টা থেকে  ঢাকা সিলেট মহাসড়কের গোয়ালাবাজার এলাকায় গাছ ফেলে অবরোধ করে রাখে।

মাইক্রোবাস সমিতির সভাপতি কাপ্তান মিয়া সুরমা নিউজকে বলেন, নির্দোষ লিটনকে ছেড়ে দেওয়া ও এস আই বাদল মিয়াকে অপসারণ না করা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

এ বিষয়ে জানার জন্য ওসমানীনগরের ওসি মোঃ শহিদুল্লাহ মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি রিসিভ করেন নি।

Facebook Comments

ওসমানীনগর সংবাদদাতা::ওসমানীনগরের গোয়ালাবাজারে মাইক্রোবাস চালক আটকের প্রতিবাদে শ্রমিকরা গাছ ফেলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে। প্রায় দুই ঘন্টা ধরে অবরোধের কারণে মহাসড়কের দুই পাশে হাজার হাজার যানবাহন আটকা পড়েছে। এতে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন যাত্রীরা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শ্রমিকরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে লাটিসোটা নিয়ে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করছে।

জানা যায়, আজ বিকাল আনুমানিক তিনটায় গোয়ালাবাজারে লাইটেস স্ট্যান্ডের কাছাকাছি এলাকায় একটি জুয়ার আসরে  ওসমানীনগর থানা পুলিশ এক অভিযান চালায়। এস আই বাদল মিয়া্র নেতৃত্বে অভিযানে ঘটনাস্থল থেকে লিটন মিয়া নামক এক মাইক্রো শ্রমিককে আটক করে থানা পুলিশ।

কিন্তু শ্রমিকদের দাবী সেখানে সে প্রশ্রাব করতে গিয়েছিল। এ সময় ড্রাইভার লিটনকে মাইক্রো অফিসে এনে পুলিশ তার সাথে আর কে কে ছিলো জিজ্ঞাসাবাদ ও মারধর করেন বলে অভিযোগ করেন শ্রমিকরা। এসময় ক্ষিপ্ত শ্রমিকরা মাইক্রো অফিসে পুলিশকে আটকে রাখে এবং ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানার ওসি ঘটনাস্থলে পৌছে কিছু সময় পর লিটনকে ছেড়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে থানায় নিয়ে যান। কয়েক ঘন্টা পরে থানা থেকে জানানো হয় আসামীকে ছাড়া যাবেনা। এ খবরে শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে রাত ৮ টা থেকে  ঢাকা সিলেট মহাসড়কের গোয়ালাবাজার এলাকায় গাছ ফেলে অবরোধ করে রাখে।

মাইক্রোবাস সমিতির সভাপতি কাপ্তান মিয়া সুরমা নিউজকে বলেন, নির্দোষ লিটনকে ছেড়ে দেওয়া ও এস আই বাদল মিয়াকে অপসারণ না করা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

এ বিষয়ে জানার জন্য ওসমানীনগরের ওসি মোঃ শহিদুল্লাহ মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি রিসিভ করেন নি।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর