আজঃ ১১ই আশ্বিন ১৪২৫ - ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ - দুপুর ১:৫০

গোলাপগঞ্জে বিএনপির মনোনয়ন ফিরিয়ে দিলেন নার্জিস

Published: সেপ্টে ০৭, ২০১৮ - ৮:৩৬ অপরাহ্ণ

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি :: সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা বিএনপি নেতা ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস। তিনি মনোনয়ন পেলেও দলকে মনোনয়ন ফিরিয়ে দিয়েছেন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানিয়েছেন।

মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস বলেন- বিএনপি থেকে আমাকে মনোনয়ন প্রদান করা হলেও আমার এলাকার ভোটাররা চাচ্ছে আমি যেনো কোনো দলের প্রার্থী না হই। তাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবেই আমি নির্বাচন করবো।

গত বুধবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে উপজেলা ও পৌর বিএনপির যৌথ সভায় ১৬ জন প্রার্থী বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্য থেকে মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে একক প্রার্থী হিসেবে চুড়ান্ত করা হয়। অন্য প্রার্থীরা এসময় তাদের নাম প্রত্যাহার করে নেন।

বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) রাতে নিজ এলাকার ভোটারদের নিয়ে বৈঠক করেন মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস।

নার্জিস জানান, বৈঠক এলাকাবাসী তাকে দলীয় প্রতিকে নির্বাচন না করতে প্রস্তাব করেন। এর পরিপেক্ষিতে তিনি বিএনপির দলীয় প্রতিকে নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত নেন।

উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস জানান, আমি বিএনপির সক্রিয় কর্মী হিসেবে ইচ্ছে ছিল দলীয় প্রতিকে উপ-নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। কিন্তু এলাকাবাসীর স্বার্থে আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল জব্বার চৌধুরী গত ৩১ মে মৃত্যু বরণ করলে শূন্য হওয়া মেয়র পদের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। গত সোমবার সিলেট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও গোলাপগঞ্জ পৌররসভার উপনির্বাচনে দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তা খুরশেদ আলম এ তফসিল ঘোষণা করেন। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন ৯ সেপ্টেম্বর; ১০ সেপ্টেম্বর বাছাই; ১৭ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন।

Facebook Comments

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি :: সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন জেলা বিএনপি নেতা ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস। তিনি মনোনয়ন পেলেও দলকে মনোনয়ন ফিরিয়ে দিয়েছেন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানিয়েছেন।

মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস বলেন- বিএনপি থেকে আমাকে মনোনয়ন প্রদান করা হলেও আমার এলাকার ভোটাররা চাচ্ছে আমি যেনো কোনো দলের প্রার্থী না হই। তাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবেই আমি নির্বাচন করবো।

গত বুধবার (৫ সেপ্টেম্বর) রাতে গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে উপজেলা ও পৌর বিএনপির যৌথ সভায় ১৬ জন প্রার্থী বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্য থেকে মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে একক প্রার্থী হিসেবে চুড়ান্ত করা হয়। অন্য প্রার্থীরা এসময় তাদের নাম প্রত্যাহার করে নেন।

বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) রাতে নিজ এলাকার ভোটারদের নিয়ে বৈঠক করেন মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস।

নার্জিস জানান, বৈঠক এলাকাবাসী তাকে দলীয় প্রতিকে নির্বাচন না করতে প্রস্তাব করেন। এর পরিপেক্ষিতে তিনি বিএনপির দলীয় প্রতিকে নির্বাচন না করার সিদ্ধান্ত নেন।

উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস জানান, আমি বিএনপির সক্রিয় কর্মী হিসেবে ইচ্ছে ছিল দলীয় প্রতিকে উপ-নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো। কিন্তু এলাকাবাসীর স্বার্থে আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল জব্বার চৌধুরী গত ৩১ মে মৃত্যু বরণ করলে শূন্য হওয়া মেয়র পদের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। গত সোমবার সিলেট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও গোলাপগঞ্জ পৌররসভার উপনির্বাচনে দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তা খুরশেদ আলম এ তফসিল ঘোষণা করেন। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন ৯ সেপ্টেম্বর; ১০ সেপ্টেম্বর বাছাই; ১৭ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর