কোম্পানীগঞ্জে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। তবে, আটককৃত আসামির দাবি জনতা নয়, কিছু শত্রু  তাকে ফাঁসানোর জন্য রাস্তায় মেয়ে সহ আক্রমণ করে এই নাটক সাজিয়েছে এবং পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন সময়ে তাকে শারিরিক ও মানবিক নির্যাতন করেছে বলে দাবি আসামি কর্তৃপক্ষের।
গত শনিবার বিকেল ৩টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার থানাবাজার কাঁঠালবাড়ি নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। আটক যুবকের নাম সাইদুল ইসলাম (২৭)। তিনি উপজেলার পাউন্না বাজারের জুলাখাল গ্রামের আকমল হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় হালিমা আক্তার (১৮), পিতা: সিকন্দর আলী, সাং- ঢোলাখাল এর বাসিন্দা সাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করে। পুলিশ আটক যুবককে আদালতে পাঠালে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
জানা যায়, গত ১০ জুন বিকাল ৩টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার থানাবাজার কাঁঠালবাড়ি নামক স্থান থেকে স্থানীয় জনতা হালিমা আক্তার (১৮) সহ সাইদুল ইসলামকে আটক করে। কিন্তু আটকের ২ দিন পর ৩দিনের মাথায় পুলিশ থাকে আদালতে সৌপর্দ করে। এই ৩দিন পুলিশি হেফাজতে থাকাকালীন সময়ে তাকে শারিরিক ও মানবিক নির্যাতন করেছে বলে দাবি আসামি ও আসামি কর্তৃপক্ষের। তার শরীরের ভিবিন্ন যায়গায় ক্ষত দাগও রয়েছে বলে জানান আসামি কর্তৃপক্ষরা।
এ ব্যাপারে কোম্পানিগঞ্জ থানার ওসি আলতাফ হোসেন জানান, জনতা সাইদুল ইসলামকে পুলিশের হাতে দিয়েছে। হালিমা আক্তার (১৮), পিতা: সিকন্দর আলী, সাং- ঢোলাখাল এর বাসিন্দা সাইদুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

Leave a Reply