কানাইঘাট প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের সাথে নবাগত ইউএনও তানিয়া সুলতানার মতবিনিময়

কানাইঘাট প্রতিনিধি:: কানাইঘাট উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা কানাইঘাট প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ ও কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় উপজেলা সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা বলেন, ইউএনও হিসাবে তিনি পূর্বে সুনামগঞ্জ উপজেলার বিশ^ম্ভপুর উপজেলায় এক বছর দায়িত্ব পালন করেছিলেন। দায়িত্ব পালনকালে অবহেলিত ছোট্ট উপজেলা বিশ^ম্ভপুরের উন্নয়নে তিনি নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছিলেন। সকল ক্ষেত্রে স্বচ্ছতার সহিত সরকারী দায়িত্ব পালনে তিনি আন্তরিক ছিলেন। উপজেলার রাজশ্ব ফান্ড ১ কোটি টাকায় তিনি নিয়ে গিয়েছিলেন। দুর্নীতি ও অনিয়ম বন্ধ করতে সেই উপজেলার কর্মসৃজনের ৫২ লক্ষ টাকা ফেরত গেছে। এরমধ্য দিয়ে আমি একটি ম্যাসেজ দিতে চাই, সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের কোন ধরনের দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না।

কানাইঘাট উপজেলায় দ্বিতীয় নারী ইউএনও হিসাবে যোগদানের বিষয়টি তুলে ধরে বলেন, দেশ ও সমাজের উন্নয়নে নারী পুরুষ সবাইকে কাজ করতে হবে। সীমান্তবর্তী কানাইঘাট একটি বড় উপজেলা। অনেক ইতিহাস ঐতিহ্য এ জনপদের মানুষের রয়েছে। এখানে সরকারী দায়িত্ব পালনের সময় তিনি সমাজের দর্পন সাংবাদিক সহ সকল দল মতের মানুষের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, কানাইঘাটে একটি পাথর কোয়ারী রয়েছে। সেই এলাকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য রক্ষা ও পরিবেশ বিধ্বংসী যে কোন ধরনের তৎপরতা কঠোর ভাবে দমন করা হবে। কাউকে আইনের বাইরে কোন কাজ করতে দেয়া হবে না।

অবৈধভাবে সুরমা নদী থেকে বালু উত্তোলন বন্ধ, সরকারী সম্পদ রক্ষা, পাথর কোয়ারী এলাকায় পরিবেশ বিধ্বংসী তৎপরতা বন্ধ শিক্ষার উন্নয়ন এবং সরকারী উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড জনগণের দূরগোড়ায় পৌঁছে দিতে তিনি সততার সহিত কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা বলেন, পূণ্যভূমি সিলেটের সাথে আমার নাভির সম্পর্ক রয়েছে। আমার মামা আলী ইমাম মজুমদার সিলেট জেলার ডিসি ছিলেন। আমার পিতা একজন বীরমুক্তিযোদ্ধা, তিনি সিলেটের ৪নং সেক্টরে যুদ্ধ করেছিলেন। একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসাবে আমাকে কোন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে যে কোন মহল কোন ধরনের অন্যায় কাজ করাতে পারবে না।

সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকারী দায়িত্ব পালনে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। যানজট নিরসন, পর্যটন এলাকার সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি, অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ, তীরখেলা সহ সকল প্রকার অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধ, সরকারী উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড সচ্ছতার সহিত বাস্তবায়ন এবং উপজেলার সীমানা এলাকায় প্রশাসনের উদ্যোগে পাকা তোরন নির্মাণে দাবী জানান।

মতবিনিময় কালে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ কানাইঘাট উপজেলার সমস্যা সম্ভাবনার চিত্র তুলে ধরে বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহিলা হিসাবে আপনি দ্বিতীয় বারের মতো যোগদান করেছেন। আপনার সুযোগ্য কর্ম তৎপরতায় কানাইঘাট উপজেলা আরো উন্নয়নের এগিয়ে যাবে। সেই সাথে সরকারী দায়িত্ব পালনের সময় নবাগত ইউএনও তানিয়া সুলতানাকে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ।

মতবিনিময় কালে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বর্তমান কার্যনির্বাহি কমিটির সিনিয়র সদস্য সাংবাদিক এম.এ হান্নান, প্রেসক্লাবের বর্তমান সভাপতি রোটারিয়ান শাহজাহান সেলিম বুলবুল, সহ সভাপতি আব্দুর রব, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এখলাছুর রহমান, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ মিসবাহুল ইসলাম চৌধুরী, ক্রীড়া সংস্কৃতি ও প্রকশনা সম্পাদক মাহবুবুর রশিদ, সিনিয়র সদস্য বাবুল আহমদ, কাওছার আহমদ, আমিনুল ইসলাম, আলা উদ্দিন আলাই, শাহীন আহমদ, সুজন চন্দ অনুপ, জসীম উদ্দিন, সহযোগী সদস্য আহমেদুল কবির মান্না, মুমিন রশিদ, রোটারিয়ান ইকবাল হোসেন, ফটোগ্রাফার দুদু মিয়া।

Facebook Comments

Leave a Reply