আজঃ ৩০শে অগ্রহায়ণ ১৪২৫ - ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৮ - বিকাল ৫:২৮

কানাইঘাটের উন্মুক্ত ভাইস ফাবিজুরি নদীতে অভিযান

Published: সেপ্টে ২৫, ২০১৮ - ৯:৩০ অপরাহ্ণ

কানাইঘাট প্রতিনিধি :: কানাইঘাট ৫নং বড়চতুল ইউপির উন্মুক্ত ভাইস ফাবিজুরি নদীর উপর সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে দুইটি স্থানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বাঁশ দিয়ে গড় তৈরী করে নির্বিচারে মাছ শিকারের বাধ ভেংগে ও উপড়ে ফেলেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) লুসিকান্ত হাজং।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে তিনি উপজেলা মৎস্য অফিসের কর্মকর্তা, থানা পুলিশ, ভূমি অফিসের কর্মকর্তাদের নিয়ে নৌকা যোগে ভাইস ফাবিজুরি নদীতে অভিযান চালিয়ে জন সাধারনের চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করে নদীর ২টি স্থানে বাঁশের গড় তৈরী করে এবং খাটি দ্বারা নির্বিচারে সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে মাছ শিকারের ঘটনায় বাঁশের ২টি গড় অপসারন করা হয়। পুনরায় একই স্থানে কেউ গড় দিয়ে জনসাধারণের চলাফেরার বিঘ্ন সৃষ্টি ও নৌকা চলাচলে বাধা প্রদান এবং উন্মুক্ত এ জলাসয়ে কেউ স্বাভাবিক ভাবে পোনা মাছ ব্যতিত মাছ শিকারে বাধা দিলে তাদের বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের হুঁশিয়ার উচ্চারন কনে। সম্প্রতি এলাকার কয়েকটি গ্রামের জনসাধারন বাদী হয়ে নদীতে বাঁশের গড় দিয়ে এলাকার প্রভাবশালী স্থানীয় আগফৌদ গ্রামের ফারুক আহমদ, আব্দুল মালিক, নুয়াছ উদ্দিন, আব্দুল মালিক, রাঙ্গারাই গ্রামের আহমদ আলী, আবু বক্কর, কাদির গ্রামের কালাম উদ্দিন, সিফত উল্লাহ, দূর্গাপুর গ্রামের আব্দুন নূর, শহর উল্লা, সরুখেল গ্রামের নিরুধ চন্দ্র দাস, ফাবিজুরি নদীর ২টি স্থানে মাছ শিকার করায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে অভিযোগ দাখিল করেন।

স্থানীয় লোকজনদের অভিযোগ উল্লেখিত ব্যক্তিরা বাঁশ দিয়ে নদীর ২টি জাগায় শক্তিশালী বাঁশের গড় তৈরী করে স্থানীয় লোকজনদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে নদী থেকে মাছ শিকারে বাধা প্রদান নদী পথে মানুষের যাতায়াতের প্রতিবন্ধকতা ও নৌকা চলাচলে প্রতিবন্ধকতা করায় এ অভিযান চালানো হয় বলে জানা গেছে।

Facebook Comments

কানাইঘাট প্রতিনিধি :: কানাইঘাট ৫নং বড়চতুল ইউপির উন্মুক্ত ভাইস ফাবিজুরি নদীর উপর সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে দুইটি স্থানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বাঁশ দিয়ে গড় তৈরী করে নির্বিচারে মাছ শিকারের বাধ ভেংগে ও উপড়ে ফেলেছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) লুসিকান্ত হাজং।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে তিনি উপজেলা মৎস্য অফিসের কর্মকর্তা, থানা পুলিশ, ভূমি অফিসের কর্মকর্তাদের নিয়ে নৌকা যোগে ভাইস ফাবিজুরি নদীতে অভিযান চালিয়ে জন সাধারনের চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করে নদীর ২টি স্থানে বাঁশের গড় তৈরী করে এবং খাটি দ্বারা নির্বিচারে সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে মাছ শিকারের ঘটনায় বাঁশের ২টি গড় অপসারন করা হয়। পুনরায় একই স্থানে কেউ গড় দিয়ে জনসাধারণের চলাফেরার বিঘ্ন সৃষ্টি ও নৌকা চলাচলে বাধা প্রদান এবং উন্মুক্ত এ জলাসয়ে কেউ স্বাভাবিক ভাবে পোনা মাছ ব্যতিত মাছ শিকারে বাধা দিলে তাদের বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের হুঁশিয়ার উচ্চারন কনে। সম্প্রতি এলাকার কয়েকটি গ্রামের জনসাধারন বাদী হয়ে নদীতে বাঁশের গড় দিয়ে এলাকার প্রভাবশালী স্থানীয় আগফৌদ গ্রামের ফারুক আহমদ, আব্দুল মালিক, নুয়াছ উদ্দিন, আব্দুল মালিক, রাঙ্গারাই গ্রামের আহমদ আলী, আবু বক্কর, কাদির গ্রামের কালাম উদ্দিন, সিফত উল্লাহ, দূর্গাপুর গ্রামের আব্দুন নূর, শহর উল্লা, সরুখেল গ্রামের নিরুধ চন্দ্র দাস, ফাবিজুরি নদীর ২টি স্থানে মাছ শিকার করায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে অভিযোগ দাখিল করেন।

স্থানীয় লোকজনদের অভিযোগ উল্লেখিত ব্যক্তিরা বাঁশ দিয়ে নদীর ২টি জাগায় শক্তিশালী বাঁশের গড় তৈরী করে স্থানীয় লোকজনদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে নদী থেকে মাছ শিকারে বাধা প্রদান নদী পথে মানুষের যাতায়াতের প্রতিবন্ধকতা ও নৌকা চলাচলে প্রতিবন্ধকতা করায় এ অভিযান চালানো হয় বলে জানা গেছে।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর