আজঃ ২রা পৌষ ১৪২৫ - ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৮ - সকাল ৮:৩৭

কলকাতার ছবিতেও নিয়মিত অভিনয় করার ইচ্ছা আছে: অপু বিশ্বাস

Published: আগ ০১, ২০১৮ - ১:০৭ অপরাহ্ণ

বিনোদন ডেস্ক :: চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। সংসার জীবনে বিচ্ছেদের পর কয়েকটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। কিছুদিন আগে কলকাতার একটি ছবিতেও কাজ শেষ করেছেন। বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো…’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

সম্প্রতি একটি মিউজিক কোম্পানি লঞ্চিং প্রোগ্রাম হল। আমি সেখানে গেস্ট হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলাম। প্রতিষ্ঠানটি আমাকে নিয়ে একটি গানও প্রকাশ করেছে। কোনো অনুষ্ঠানে নিজের নামে গান এটা আমার নতুন অভিজ্ঞতা। প্রতিষ্ঠানটি সিনেমাও প্রযোজনা করেছে। তাই তাদের ডাকে সাড়া দিয়েছি। এর বাইরে আর কিছু নেই।

কলকাতায় নচিকেতার লেখা গল্পের একটি ছবিতে কাজ করেছেন। সেটার খবর কী?

ছবিটির নাম ‘শর্টকাট’। কলকাতার ছবি এটি। শুটিং শেষ। এখন সম্ভবত সম্পাদনার কাজ চলছে। এটি আমার অভিনীত প্রথম কলকাতার ছবি। মুক্তি কবে পাবে সেটা এখনই বলতে পারছি না। বিস্তারিত জেনে জানাতে পারব।

এরপর কী কলকাতার ছবিতে নিয়মিত দেখা যাবে?

দর্শকরা আমাকে চলচ্চিত্রের নায়িকা হিসেবে চেনেন। তাই সবসময় ভালো কাজ করতে চাই। কলকাতায় যে ছবিটি করলাম এর গল্প দারুণ। কিছুটা অফট্র্যাকের। তবে আমার মনে হয়েছে এটি আমার জন্য বেটার। এমন ছবির প্রস্তাব আগামীতে এলে অবশ্যই কলকাতার ছবিতেও নিয়মিত অভিনয় করার ইচ্ছা রয়েছে।

দেশীয় যে দুটি ছবিতে অভিনয় করছিলেন সেগুলোর খবর কী?

দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত শ্বশুরবাড়ি ‘জিন্দাবাদ টু’ ছবির শুটিং প্রায় শেষের পথে। এর নায়ক বাপ্পি। অন্যটি সাইমনের সঙ্গে ‘ওপারের চন্দ্রবতী’। এ ছবির শুটিংও শিগগিরই শুরু হবে বলে শুনেছি। পাশাপাশি আরও একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে আছি। শিগগিরই সেটারও শিডিউল দেব। আরও কিছু চলচ্চিত্রে কাজ করার বিষয়ে কথা হচ্ছে।

কিন্তু আপনাকে তো এখন অভিনয়ের চেয়ে স্টেজ শোতে ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে…

স্টেজ শো আর অভিনয় দুটি দুই জিনিস। পুরো মাস তো আর অভিনয়ের ব্যস্ততা থাকে না। এ ছাড়াও দীর্ঘদিন বিরতির পর হাতে চলচ্চিত্রও ছিল না। সে সময়টা স্টেজ শোয়ের প্রচুর প্রস্তাব পাই। তখন এতেও সময় দিই। স্টেজ শোর মাধ্যমে সরাসরি দর্শকদের সামনে পারফর্ম করা অন্যরকম এক অভিজ্ঞতা। এতেও বেশ সাড়া পাচ্ছি।

ছেলে আব্রাম খান জয়কে নিয়ে ব্যক্তিগত জীবন কেমন যাচ্ছে?

জয়ই তো আমার পৃথিবী। আমার সব চিন্তা-পরিকল্পনা এখন শুধু তাকে ঘিরেই। কাজ শেষে যখন বাসায় গিয়ে ছেলের মুখটা দেখি পৃথিবীটা আমার কাছে স্বর্গ মনে হয়। আবার ঘুম থেকে উঠার পরও ছেলের মুখ দেখলে সকালে নতুন কাজের প্রেরণা পাই।

Facebook Comments

বিনোদন ডেস্ক :: চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। সংসার জীবনে বিচ্ছেদের পর কয়েকটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। কিছুদিন আগে কলকাতার একটি ছবিতেও কাজ শেষ করেছেন। বর্তমান ব্যস্ততা ও অন্যান্য প্রসঙ্গ নিয়ে আজকের ‘হ্যালো…’ বিভাগে কথা বলেছেন তিনি

সম্প্রতি একটি মিউজিক কোম্পানি লঞ্চিং প্রোগ্রাম হল। আমি সেখানে গেস্ট হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলাম। প্রতিষ্ঠানটি আমাকে নিয়ে একটি গানও প্রকাশ করেছে। কোনো অনুষ্ঠানে নিজের নামে গান এটা আমার নতুন অভিজ্ঞতা। প্রতিষ্ঠানটি সিনেমাও প্রযোজনা করেছে। তাই তাদের ডাকে সাড়া দিয়েছি। এর বাইরে আর কিছু নেই।

কলকাতায় নচিকেতার লেখা গল্পের একটি ছবিতে কাজ করেছেন। সেটার খবর কী?

ছবিটির নাম ‘শর্টকাট’। কলকাতার ছবি এটি। শুটিং শেষ। এখন সম্ভবত সম্পাদনার কাজ চলছে। এটি আমার অভিনীত প্রথম কলকাতার ছবি। মুক্তি কবে পাবে সেটা এখনই বলতে পারছি না। বিস্তারিত জেনে জানাতে পারব।

এরপর কী কলকাতার ছবিতে নিয়মিত দেখা যাবে?

দর্শকরা আমাকে চলচ্চিত্রের নায়িকা হিসেবে চেনেন। তাই সবসময় ভালো কাজ করতে চাই। কলকাতায় যে ছবিটি করলাম এর গল্প দারুণ। কিছুটা অফট্র্যাকের। তবে আমার মনে হয়েছে এটি আমার জন্য বেটার। এমন ছবির প্রস্তাব আগামীতে এলে অবশ্যই কলকাতার ছবিতেও নিয়মিত অভিনয় করার ইচ্ছা রয়েছে।

দেশীয় যে দুটি ছবিতে অভিনয় করছিলেন সেগুলোর খবর কী?

দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত শ্বশুরবাড়ি ‘জিন্দাবাদ টু’ ছবির শুটিং প্রায় শেষের পথে। এর নায়ক বাপ্পি। অন্যটি সাইমনের সঙ্গে ‘ওপারের চন্দ্রবতী’। এ ছবির শুটিংও শিগগিরই শুরু হবে বলে শুনেছি। পাশাপাশি আরও একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়ে আছি। শিগগিরই সেটারও শিডিউল দেব। আরও কিছু চলচ্চিত্রে কাজ করার বিষয়ে কথা হচ্ছে।

কিন্তু আপনাকে তো এখন অভিনয়ের চেয়ে স্টেজ শোতে ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে…

স্টেজ শো আর অভিনয় দুটি দুই জিনিস। পুরো মাস তো আর অভিনয়ের ব্যস্ততা থাকে না। এ ছাড়াও দীর্ঘদিন বিরতির পর হাতে চলচ্চিত্রও ছিল না। সে সময়টা স্টেজ শোয়ের প্রচুর প্রস্তাব পাই। তখন এতেও সময় দিই। স্টেজ শোর মাধ্যমে সরাসরি দর্শকদের সামনে পারফর্ম করা অন্যরকম এক অভিজ্ঞতা। এতেও বেশ সাড়া পাচ্ছি।

ছেলে আব্রাম খান জয়কে নিয়ে ব্যক্তিগত জীবন কেমন যাচ্ছে?

জয়ই তো আমার পৃথিবী। আমার সব চিন্তা-পরিকল্পনা এখন শুধু তাকে ঘিরেই। কাজ শেষে যখন বাসায় গিয়ে ছেলের মুখটা দেখি পৃথিবীটা আমার কাছে স্বর্গ মনে হয়। আবার ঘুম থেকে উঠার পরও ছেলের মুখ দেখলে সকালে নতুন কাজের প্রেরণা পাই।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর