আজঃ ৫ই কার্তিক ১৪২৫ - ২০শে অক্টোবর ২০১৮ - সকাল ৭:১২

ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে চুরি হওয়া শিশু উদ্ধার, আটক ৩

Published: অক্টো ০২, ২০১৮ - ৪:৩৯ পূর্বাহ্ণ

সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক::ওসমানী হাসপাতালে চুরি হওয়া এক শিশু ৩দিন পর নগরীর শিবগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ২ মহিলাসহ ৩ জনকে আটক করেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যার দিকে হাতিমবাগ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার ও তাদেরকে আটক করে পুলিশ।

আটককৃতরা হচ্ছে- নগরীর লালাদীঘিরপারের শামীম মিয়ার স্ত্রী শিউলী বেগম (২৫) ও তার ভাবী শাহপরান থানার খাদিমপাড়া এলাকার পরগনা গ্রামের বাদশা মিয়ার স্ত্রী বর্তমানে নগরীর শিবগঞ্জ হাতিমবাগ দুপাই মিয়ার বাসার বাসিন্দা সাকি বেগম (২৫) এবং তার স্বামী বাদশা মিয়া (২৮)। পুলিশ তাদের ৩জনকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যাচ্ছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতোয়ালী থানার এসআই বাবুল মিয়া জানান, গত ২৭ সেপ্টেম্বর সিলেট ওসমানী হাসপাতালের নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলা বর্হিবিভাগে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানার নৈখাই গ্রামের আলী হোসেনে স্ত্রী সুমি বেগমের (২৫) অসুস্থ্য ১১ মাসের কন্যা সন্তান মাইশা আক্তারকে নিয়ে ডাক্তার দেখাতে সেখানে যান। দুপুর ১২ টার দিকে ওই শিশুটি শিউলী বেগম কৌশলে চুরি করে তার ভাবী সাকি বেগমের কাছে ৩ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়। তিনি বলেন, পরে এ ঘটনায় শিশু মা বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে কোতোয়ালী থানায় (নং-৪৫-২৭-৯-১৮) একটি মামলা করলে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য মাঠে নামে।

এক পর্যায়ে কোতোয়ালী থানার এসআই দেবাশীষসহ পুলিশের একটি দল গতকাল সোমবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিকেল ৩ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত ব্যাপক অভিযান চালিয়ে নগরীর শিবগঞ্জ হাতিমবাগ দুপাই মিয়ার ভাড়াটে বাসা থেকে শিউলী বেগম ও সাকি বেগমকে আটক করে।

এ সময় তাদের কাছ থেকে চুরি হওয়া ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। তিনি জানান, বিষয়টি আটককৃতরা প্রাথমিকভাবে স্বীকারও করেছে। উদ্ধার হওয়া শিশুটির মা-বাবাকে খবর দেয়া হয় বলে জানান তিনি।

Facebook Comments

সিলেট প্রতিদিন প্রতিবেদক::ওসমানী হাসপাতালে চুরি হওয়া এক শিশু ৩দিন পর নগরীর শিবগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ২ মহিলাসহ ৩ জনকে আটক করেছে। গতকাল সোমবার সন্ধ্যার দিকে হাতিমবাগ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার ও তাদেরকে আটক করে পুলিশ।

আটককৃতরা হচ্ছে- নগরীর লালাদীঘিরপারের শামীম মিয়ার স্ত্রী শিউলী বেগম (২৫) ও তার ভাবী শাহপরান থানার খাদিমপাড়া এলাকার পরগনা গ্রামের বাদশা মিয়ার স্ত্রী বর্তমানে নগরীর শিবগঞ্জ হাতিমবাগ দুপাই মিয়ার বাসার বাসিন্দা সাকি বেগম (২৫) এবং তার স্বামী বাদশা মিয়া (২৮)। পুলিশ তাদের ৩জনকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যাচ্ছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতোয়ালী থানার এসআই বাবুল মিয়া জানান, গত ২৭ সেপ্টেম্বর সিলেট ওসমানী হাসপাতালের নতুন ভবনের দ্বিতীয় তলা বর্হিবিভাগে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানার নৈখাই গ্রামের আলী হোসেনে স্ত্রী সুমি বেগমের (২৫) অসুস্থ্য ১১ মাসের কন্যা সন্তান মাইশা আক্তারকে নিয়ে ডাক্তার দেখাতে সেখানে যান। দুপুর ১২ টার দিকে ওই শিশুটি শিউলী বেগম কৌশলে চুরি করে তার ভাবী সাকি বেগমের কাছে ৩ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়। তিনি বলেন, পরে এ ঘটনায় শিশু মা বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে কোতোয়ালী থানায় (নং-৪৫-২৭-৯-১৮) একটি মামলা করলে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধারের জন্য মাঠে নামে।

এক পর্যায়ে কোতোয়ালী থানার এসআই দেবাশীষসহ পুলিশের একটি দল গতকাল সোমবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিকেল ৩ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত ব্যাপক অভিযান চালিয়ে নগরীর শিবগঞ্জ হাতিমবাগ দুপাই মিয়ার ভাড়াটে বাসা থেকে শিউলী বেগম ও সাকি বেগমকে আটক করে।

এ সময় তাদের কাছ থেকে চুরি হওয়া ওই শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। তিনি জানান, বিষয়টি আটককৃতরা প্রাথমিকভাবে স্বীকারও করেছে। উদ্ধার হওয়া শিশুটির মা-বাবাকে খবর দেয়া হয় বলে জানান তিনি।

Facebook Comments

এ জাতীয় আরো খবর